দেশ পরিচিতি

প্রকাশ : ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৭, ০০:০০

অনলাইন ডেস্ক

ব্রুনাই

রাষ্ট্রীয় নাম : নেগারা ব্রুনাই দারুস সালাম (the sultanate of Brunei)

রাজধানী : বন্দর সেরি বেগওয়ান।

রাষ্ট্রপ্রধান : সুলতান হাসসান আল বলকিয়াহ।

ধর্ম : ১০০ শতাংশ মুসলমান।

ভৌগোলিক অবস্থান : বোর্নিওর উত্তর-পশ্চিম উপকূলীয় দেশ ব্রুনাই। দেশটি দক্ষিণ ও পূর্বে সারাওয়াক রাজ্য দ্বারা বেষ্টিত। পশ্চিম ও উত্তরে দক্ষিণ চীন সাগর।

আয়তন : ব্রুনাইয়ের মোট আয়তন ৫,৭৬৫ বর্গ কিলোমিটার।

জনসংখ্যা : ২০১১ সালের গণনা অনুযায়ী এর জনসংখ্যা প্রায় তিন লাখ।

ভাষা : সরকারি ভাষা মালয়, তবে অন্যান্য কাজে ইংরেজি ভাষার প্রচলন রয়েছে।

রাষ্ট্রধর্ম : ব্রুনাইয়ের রাষ্ট্রীয় ধর্ম ইসলাম।

সংক্ষিপ্ত ইতিহাস : ষোড়শ শতাব্দীতে ব্রুনাই সালতানাত ছিল শক্তিশালী একটি রাষ্ট্র। কিন্তু ষোড়শ শতাব্দীর শেষদিকে জলদস্যুদের আক্রমণ এবং অভ্যন্তরীণ বিশৃঙ্খলার ফলে এর শক্তি কমে আসতে থাকে। ১৯৮৮ সালে এক চুক্তি বলে ব্রুনাই ব্রিটেনের আশ্রিত রাজ্যে পরিণত হয়। ১৯৭৯ সালের ৭ জানুয়ারি ব্রুনাই সুলতান ও ব্রিটিশ সরকারের মধ্যে এক চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। চুক্তি অনুসারে ১৯৮৩ সালের ৩১ ডিসেম্বর ব্রুনাই পুরোপুরি স্বাধীন ও সার্বভৌম রাষ্ট্রে পরিণত হয়। ২১ সেপ্টেম্বর ১৯৮৮ ব্রুনাই জাতিসংঘের সদস্য পদ লাভ করে।

মুদ্রা : ব্রুনাই ডলার। ১ মার্কিন ডলার = ১.৯৩ ব্রুনাই ডলার।

আন্তর্জাতিক সম্পর্ক : ব্রুনাই জাতিসংঘ, কমনওয়েলথ এবং আসিয়ানের সদস্য।

কৃষি সম্পদ : ব্রুনাইয়ের কৃষিদ্রব্যের মধ্যে রয়েছে ধান, কলা ও অন্যান্য ফলমূল। গবাদিপশু সম্পদের মধ্যে রয়েছে গরু, মহিষ, শূকর এবং হাঁস-মুরগি।

বনজ সম্পদ : দেশের অধিকাংশ এলাকাজুড়েই রয়েছে বনাঞ্চল। এসব বনাঞ্চলে মূল্যবান কাঠ পাওয়া যায়। কাঠের বার্ষিক গড় উৎপাদন তিন লাখ কিউবিক মিটার।

শিল্প ও বাণিজ্য : ব্রুনাই প্রাথমিক পর্যায়ে তেল শিল্পের ওপর নির্ভরশীল। দেশের মোট কর্মজীবীদের ১০ ভাগ এ শিল্পে কর্মরত। অন্যান্য শিল্পের মধ্যে রয়েছে রাবার, কাগজ এবং কাঠশিল্প। এছাড়া কুটির শিল্পের মধ্যে রয়েছে নৌকা তৈরি, বস্ত্র বুনন, তামা ও ইস্পাতের বাসনপত্র ইত্যাদি।

"