সিএটি কোয়ালিফিকেশন শুরু করল এসিসিএ বাংলাদেশ

প্রকাশ : ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০০:০০

অনলাইন ডেস্ক

সার্টিফায়েড অ্যাকাউন্টিং টেকনিশিয়ান (সিএটি) কোয়ালিফিকেশন শুরু করেছে দ্য অ্যাসোসিয়েশন অব চার্টার্ড সার্টিফায়েড অ্যাকাউন্ট্যান্টস (এসিসিএ) বাংলাদেশ। ৩ সেপ্টেম্বর এক অনলাইন অনুষ্ঠানের মাধ্যমে এই কোয়ালিফিকেশনটি সবার জন্য উন্মুক্ত করা হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে সিএটির উদ্বোধন করেন শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী। অনুষ্ঠানে জানানো হয়, বর্তমানে দেশে এন্ট্রি লেভেলে দক্ষ অ্যাকাউন্ট্যান্ট খুঁজে পাওয়া যায় না। অনেক ছোট প্রতিষ্ঠান বা স্টার্টআপের ক্ষেত্রে এই সমস্যা আরও প্রকট। দক্ষ অ্যাকাউন্ট্যান্ট একটি প্রতিষ্ঠানে প্রাথমিক হিসাবরক্ষণের কাজ করতে পারে। দেশে এ সংক্রান্ত নির্দিষ্ট কোনো কোয়ালিফিকেশনও নেই। এসব বিবেচনায় নিয়ে সিএটি কোয়ালিফিকেশনটি শুরু হলো। এটি অর্জন করতে নয়টি পেপার পাস করার পাশাপাশি এক বছরের অভিজ্ঞতারও প্রয়োজন হয়। শিক্ষার্থীরা অনলাইনে পরীক্ষা দিতে পারবেন।

অনুষ্ঠানের শুরুতে এসিসিএ বাংলাদেশের কান্ট্রি ম্যানেজার মো. এহসানুল হক বাশার বলেন, আমরা বিশ্বাস করি, ছোট বড় সব প্রতিষ্ঠান সিএটি কোয়ালিফিকেশনের সুবিধা নিতে পারবে। আশা করছি বাংলাদেশে সিএটির যাত্রা সফল হবে। অনুষ্ঠানে শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী বলেন, সিএটি একটি আন্তর্জাতিক কোয়ালিফিকেশন। অ্যাকাউন্টিং টেকনিশিয়ানদের সংখ্যা কীভাবে বৃদ্ধি করা যায়, সে বিষয়ে আমাদের পদক্ষেপ নিতে হবে। আমরা গ্র্যাজুয়েটদেরও এ ব্যাপারে সচেতন করতে পারি। গ্র্যাজুয়েট অনেকের প্রফেশনাল বা টেকনিক্যাল স্কিলভিত্তিক অ্যাকাউন্টিং কোয়ালিফিকেশন না থাকার কারণে কর্মসংস্থান হচ্ছে না। তারা এই যোগ্যতা অর্জনে উদ্যোগী হতে পারেন। সেক্ষেত্রে আমাদের টেকনিক্যাল এডুকেশন বোর্ড, এসিসিএ বাংলাদেশের সঙ্গে একসঙ্গে কাজ করতে পারে।

অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন মহাহিসাব নিরীক্ষক ও নিয়ন্ত্রক (সিএজি) মোহাম্মদ মুসলিম চৌধুরী, বাংলাদেশ টেকনিক্যাল এডুকেশন বোর্ডের (বিটিইবি) চেয়ারম্যান ড. মো. মোরাদ হোসেন মোল্লাহ, ফাইন্যান্সিয়াল রিপোর্টিং কাউন্সিলের (এফআরসি) নির্বাহী পরিচালক এম আনোয়ারুল করিম, ব্রিটিশ কাউন্সিলের ডিরেক্টর এক্সামস জিম ও’নেইল, সামিট কমিউনিকেশনসের এমডি ও সিইও এবং এসিসিএ বাংলাদেশের মেম্বার অ্যাডভাইজরি কমিটির চেয়ারম্যান আরিফ আল ইসলাম, বিশ্বব্যাংকের দক্ষিণ এশীয় এডুকেশন গ্লোবাল প্র্যাকটিসের এডুকেশন স্পেশালিস্ট এবং টিম লিডার টিএম আসাদুজ্জামান, এলসিবিএস ঢাকা লিমিটেডের সিইও এবং চেয়ারম্যান এম এ কালাম, এসিসিএ মধ্যপ্রাচ্য ও দক্ষিণ এশিয়ার মার্কেট ডিরেক্টর স্টুয়ার্ট ডানলপ, এসিসিএ বাংলাদেশ থেকে ছিলেন সিনিয়র বিজনেস ডেভেলপমেন্ট ম্যানেজার (লার্নিং) শাহ ওয়ালীউল মনজুর, এডুকেশন ম্যানেজার প্রমা তাপসী খান,

সিনিয়র বিজনেস ডেভেলপমেন্ট ম্যানেজার মো. শাফায়াত আলী চয়ন, মার্কেটিং ম্যানেজার আব্দুল্লাহ আল হাসান এবং বিজনেস সার্ভিস ও কমপ্লায়েন্স ম্যানেজার জিএম রাশেদ। এ ছাড়া এসিসিএ বাংলাদেশের লার্নিং পার্টনার এডবেস প্রফেশনালস এবং প্রফেশনাল স্কুল অব বিজনেসের (পিএসবি) প্রতিনিধিরাও উপস্থিত ছিলেন। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি।

 

 

 

"