সূর্যের অবাক দৃশ্য!

প্রকাশ : ০৫ আগস্ট ২০২০, ০০:০০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

ভারতের তামিলনাড়ুর রামনাথাপুরাম জেলার রামেস্বরাম শহরের আকাশে দেখা গেল এক অপূর্ব দৃশ্য। গত সোমবার মানুষ প্রথমবারের মতো সূর্যকে এত কাছে থেকে দেখেছে। সেই অদ্ভুত দৃশ্য দেখে স্থানীয় মানুষজনের বক্তব্য ছিল, তারা প্রথমবারের জন্য এত সুন্দর সূর্য দেখেছে।

গত সোমবার বিকালে রামেস্বরামে সূর্যের চারপাশে দেখা গেছে একটি রিং। ২২ ডিগ্রি কোণে বায়ুম-লীয় বরফের স্ফটিক এবং আলোর প্রতিবিম্বের কারণে এই রিং তৈরি হয়। মজার বিষয় হলো ৩৬৫ দিনের মধ্যে ১০০ দিন এমন দৃশ্য দেখতে পাওয়া যায়। এই অদ্ভুত দৃশ্যের ভিডিও শেয়ার করেছে এএনআই। সেটি এরই মধ্যে ভাইরাল হয়ে গেছে।

স্থানীয়রা বলছেন, আকাশে ৩০ মিনিটেরও বেশি সময় ধরে এই দৃশ্য দেখা গেছে। বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, সূর্যের বাইরের স্তরগুলো যা ফটোস্ফিয়ারের ওপর কয়েক হাজার কিলোমিটার বিস্তৃত তাকেই প্রভাম-ল বলে। রামেস্বরাম ভারতের দক্ষিণ ভাগের প্রান্তিক স্থান। এটি পাম্বান দ্বীপে অবস্থিত পাম্বান চ্যানেল দ্বারা প্রধানভূমি ভারত থেকে পৃথক এবং শ্রীলঙ্কার মান্নার দ্বীপ থেকে ৪০ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত। নতুন সূর্য পৃথিবীরই কাছে, তাকে ঘিরে পাক খাচ্ছে দুই দানব গ্রহ, বিরল ঘটনা!

‘মাল্টিপল এক্সোপ্ল্যানেট সিস্টেম’ খুব কমই দেখা যায়। ইএসওর ‘ভেরি লার্জ টেলিস্কোপ’ (ঠখঞ)-এ ধরা দিয়েছে পৃথিবীর সৌরম-লের মতোই আরো এক গ্রহ-নক্ষত্রের ভরা সংসার। তবে এখানে গ্রহের সংখ্যা দুই। তাদের অধিপতি একজনই। পৃথিবী থেকে ৩০০ আলোকবর্ষ দূরেই এই নতুন পরিবার রয়েছে। সূর্যেরই মতো চেহারা। ভরও প্রায় এক। তেজেও কমতি নেই। শুধু বয়সটাই কম। এমন কমবয়সি সূর্যের চারপাশে আগুনে চেহারা নিয়ে ঘুরপাক খাচ্ছে দুই বিশাল গ্রহ। ভরে ও আয়তনে তারা পৃথিবীর চেয়ে ঢের বড়। উত্তাপও বেশি। সাধারণত এমন নক্ষত্রের দোসর হয় একটিই গ্রহ, কিন্তু এখানে দুটি পেল্লায় গ্রহ একেবারে আষ্টেপৃষ্ঠে বেঁধে ফেলেছে সূর্যের মতো ওই তারাকে। মহাকাশে গ্রহ-তারার এই নতুন সংসারে উঁকি দিল ইউরোপিয়ান সাদার্ন অবজারভেটরি (ঊঝঙ) ।

সূর্যের মতো সেই তারার নাম ঞণঈ ৮৯৯৮-৭৬০-১। ভর প্রায় এক। তবে বয়স ১ কোটি ৭০ লাখ বছরের কাছাকাছি। সূর্যের বয়স যেখানে ধরা হয় ৪৬০ কোটি বছর। এমন নবীন সূর্যের তেজও কিছু কম নয়। তার টানেই অবিরাম পাক খেয়ে চলেছে দুই গ্রহ।

নেদারল্যান্ডসের লেইডেন ইউনিভার্সিটির মহাকাশবিজ্ঞানী এবং এই গবেষণার অন্যতম মুখ্য বিজ্ঞানী আলেক্সান্ডার বন বলেছেন, ঞণঈ ৮৯৯৮-৭৬০-১ নক্ষত্রকে ঘিরে যে দুই গ্রহ পাক খাচ্ছে তাদের ভর পৃথিবীর চেয়ে বেশি। বৃহস্পতির ভরের চেয়েও ১৪ গুণ বেশি। তাদের কক্ষপথ বৃহস্পতি ও শনির থেকেও ৩০ গুণ বড়। পৃথিবী ও সূর্যের মাঝে যে দূরত্ব, এই দুই গ্রহ থেকে ওই নবীন সূর্যের দূরত্ব ১৬০ থেকে ৩২০ গুণ বেশি। এই দুই গ্রহেরই তাপ অনেক বেশি।

 

"