গাজীপুর প্রতিনিধি

  ২৭ জানুয়ারি, ২০২১

গাজীপুরে স্থানীয় সরকারমন্ত্রী

মানসম্মত-টেকসই কাজ নিশ্চিত হয় প্রশিক্ষণেই

স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম বলেছেন, প্রকৌশলীদের প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা থাকলেও ঠিকাদার এবং শ্রমিকদের কোনো শিক্ষা বা প্রশিক্ষণ থাকে না। সে কারণে কাজের গুণগত মান নিয়ন্ত্রণ নিশ্চিত করা এবং টেকসই করা সম্ভব হয় না। তাই কাজের গুণগত মান নিশ্চিত এবং টেকসই করতে প্রকৌশলী, ঠিকাদার ও শ্রমিকদের উন্নত প্রশিক্ষণের বিকল্প নেই। গতকাল মঙ্গলবার গাজীপুরে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের ‘নির্মাণ দক্ষতা প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে’র ভিত্তিপ্রস্তর অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন মন্ত্রী।

স্থানীয় সরকারমন্ত্রী বলেন, টেকসই নির্মাণকাজের জন্য প্রশিক্ষিত প্রকৌশলী, ঠিকাদার ও শ্রমিক প্রয়োজন। এ বিষয়ে অনুধাবন করেই এলজিইডির অধীনে একটি প্রশিক্ষণ সেন্টার নির্মাণ করার নির্দেশনা দেওয়া হয়। এখান থেকে প্রশিক্ষণ গ্রহণের পর গ্রামের অদক্ষ শ্রমিকদের প্রশিক্ষিত করা সম্ভব হবে এবং এলজিইডি নির্মিত অবকাঠামোগুলোর গুণগত মান ও স্থায়িত্ব বৃদ্ধি পাবে, পাশাপাশি আত্মকর্মসংস্থানও তৈরি হবে।

------
মন্ত্রী বলেন, যে ঠিকাদার শিডিউল মেনে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে মানসম্মত ও টেকসই কাজ করবে, সেই ঠিকাদারকে আরো বেশি কাজ দেওয়া হবে। আর যারা নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে কাজ করতে পারবে না অথবা নিম্নমানের কাজ করবে, তাদের শুধু কালো তালিকাভুক্ত নয়, তাদের বিরুদ্ধে সব ধরনের আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ডিজাইনবহির্ভূত কেউ কোনো কাজ করলে তাকে চিহ্নিত করে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে জানিয়ে তিনি এ বিষয়ে সাংবাদিকসহ সবার সহযোগিতা কামনা করেন।

স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর-এলজিইডির কাজের গুণগত মান নিয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, এলজিইডি এর আগে যেসব রাস্তাঘাট, সেতু-কালভার্ট করেছে, দেশের আর্থিক অবস্থা বিবেচনায় সেগুলো ‘লো কস্টে’ করা হয়েছে। স্থানীয় সরকারমন্ত্রীর দায়িত্ব গ্রহণের পর মানসম্মত এবং টেকসই কাজ করার জন্য ডিজাইন পরিবর্তন করা হয়েছে এবং ‘ইস্টিমেট’ বাড়ানো হয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, এর ফলে এখন থেকে দেশে আর কোনো নিম্নমানের কাজ হবে না। এলজিইডির অধীনে সব কর্মকর্তা-কর্মচারী দেশের উন্নয়নের স্বার্থে টেকসই কাজ করার বিষয়ে অত্যন্ত আন্তরিক ও প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।

ট্রেনিং সেন্টারে আসার আগে গাজীপুর সিটি করপোরেশনের চলমান কার্যক্রম পরিদর্শন করা নিয়ে সাংবাদিকের অন্য এক প্রশ্নের জবাবে মো. তাজুল ইসলাম বলেন, এলাকার মানুষের সহযোগিতা নিয়ে রাস্তা প্রশস্তকরণসহ যেসব উন্নয়নকাজ মেয়র করছেন, তা অত্যন্ত প্রশংসনীয়।

ভিত্তিপ্রস্তর অনুষ্ঠানে গাজীপুর সিটি করপোরেশনের মেয়র মো. জাহাঙ্গীর আলম, স্থানীয় সরকার বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মেজবাহ উদ্দিন, এলজিইডির প্রধান প্রকৌশলী মো. আবদুর রশিদ খান এবং এলজিইডির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

 

 

"

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close