reporterঅনলাইন ডেস্ক
  ২০ সেপ্টেম্বর, ২০২২

বিশ্ব ওজোন দিবস উদযাপন

১৯৮৭ সালের ১৬ সেপ্টেম্বর ওজোনস্তর রক্ষার উদ্দেশে বিশ্ব নেতারা কানাডার মন্ট্রিল শহরে মন্ট্রিল প্রটোকল নামে একটি প্রটোকল স্বাক্ষর করেন। দিবসটি স্মরণীয় করে রাখা এবং ওজোনস্তর রক্ষার জন্য জনসচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে ১৯৯৫ সাল থেকে বিশ্ব ওজোন দিবস বিশ্বব্যাপী পালিত হচ্ছে। জাতিসংঘ পরিবেশ কর্মসূচি কর্তৃক এ বছরের প্রতিপাদ্য নির্ধারণ করা হয়েছে “Montreal [email protected] : global cooperation protecting life on earth” যার ভাবার্থ করা হয়েছে- “পঁয়ত্রিশে মন্ট্রিল প্রটোকল- জীবন রক্ষায় অঙ্গীকার অবিচল”।

দিবসটি উদযাপন উপলক্ষে পরিবেশ অধিদপ্তর এবং পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয় বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করেছে। এ উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী ও উপমন্ত্রী এবং পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের সচিব বাণী দিয়েছেন। দিবসটি উপলক্ষে জাতীয় দৈনিকে ক্রোড়পত্র প্রকাশ করা হয়েছে।

দিবসটি উপলক্ষে পরিবেশ অধিদপ্তরের অডিটোরিয়ামে সোমবার (১৯ সেপ্টেম্বর) বেলা ১১টায় একটি আলোচনা সভা করা হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিন, এমপি এবং বিশেষ অতিথি ছিলেন পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন উপমন্ত্রী হাবিবুন নাহার, এমপি এবং সচিব ড. ফারহিনা আহমেদ। সম্মানিত অতিথি ছিলেন অতিরিক্ত সচিব মো. মনিরুজ্জামান এবং UNDP-এর আবাসিক প্রতিনিধি Mr. Stefan Liller। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন পরিবেশ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ড. আবদুল হামিদ এবং সংক্ষিপ্ত উপস্থাপনা ও ভিডিও ডকুমেন্টারি প্রদর্শন করেন পরিবেশ অধিদপ্তরের পরিচালক মো. জিয়াউল হক।

এ সময় National Cooling Plan উপস্থাপন করা হয়। মুক্ত আলোচনায় উপস্থিতিরা এ বিষয়ে মতামত প্রদান করেন। বিশেষ অতিথির বক্তব্যে সচিব ড. ফারহিনা আহমেদ সব স্টেক হোল্ডারের সঙ্গে আলোচনাক্রমে একটি যুগোপযোগী ‘National Cooling Plan’ প্রণয়নের নির্দেশনা প্রদান করেন।

মন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিন বলেন, ১৯৮৫ সালের ২২ মার্চ ওজোনস্তর রক্ষার লক্ষ্যে Viena Convention গৃহীত হয় এবং পরবর্তীতে ১৯৮৭ সালের ১৬ সেপ্টেম্বর জাতিসংঘ পরিবেশ কর্মসূচি ও বিজ্ঞানীদের সময়োচিত তৎপরতায় এবং বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রনায়কদের বলিষ্ঠ ভূমিকার ফলশ্রুতিতে কানাডার মন্ট্রিল শহরে ওজোনস্তর রক্ষা সংক্রান্ত মন্ট্রিল প্রটোকল স্বাক্ষরিত হয়। বাংলাদেশ ১৯৯০ সালে Viena Convention ও Montreal Protocol স্বাক্ষর করে। প্রটোকল অনুযায়ী বাংলাদেশে অন্যতম ওজোনস্তর ক্ষয়কারী দ্রব্য সিএফসি, হ্যালন, কার্বনটেট্রাক্লোরাইড, মিথাইল ক্লোরোফরম ও মিথাইল ব্রোমাইডের ব্যবহার বিগত ১ জানুয়ারি ২০১০ সালে রোধ করা হয়েছে। এ ছাড়া ২০১২ সালে ঔষধ শিল্পে ব্যবহৃত অবিশিষ্ট সিএফসির ব্যবহার সম্পূর্ণরূপে বন্ধ করা হয়েছে।

বাংলাদেশ মন্ট্রিল প্রটোকল বাস্তবায়নের সব কয়টি ধাপ যথাসময়ে সঠিকভাবে অতিক্রম করেছে এবং প্রটোকলের বাধ্যবাধকতা পালনের ক্ষেত্রে Compliance -এ রয়েছে। মন্ট্রিল প্রটোকল অত্যন্ত সফলভাবে বাস্তবায়নের স্বীকৃতিস্বরূপ ২০১২, ২০১৭ এবং ২০১৯ সালে UN Environment কর্তৃক বাংলাদেশ প্রশংসিত ও পুরস্কৃত হয়েছে। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি।

"

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close