টিকিট বিক্রি শুরু, শঙ্কা কাটল সৌদি প্রবাসীদের

প্রকাশ : ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০০:০০

বদরুল আলম মজুমদার

প্রবাসীদের টানা পাঁচ দিনের বিক্ষোভ শেষে অবশেষে টিকিট দেওয়া শুরু করেছে সৌদি অ্যারাবিয়ান এয়ারলাইনস ও বাংলাদেশ বিমান। গতকাল দুপুর ২টা থেকে টিকিট দেওয়া শুরু হয়। প্রথম দিনে প্রায় ৫০০ যাত্রীকে টিকিট দেওয়া হয়েছে। আগামী তিন দিনে সাউদিয়া আরো প্রায় ১ হাজার ৫০০ টিকিট ইস্যু করবে প্রবাসীদের সুবিধার্থে। এছাড়া পরবর্তী টিকিট পেতেও নেওয়া হয়েছে বাড়তি প্রস্তুতি। তাছাড়া যাত্রীদের টিকিট দেওয়া অব্যহত রাখার কথাও বলেছে বিমান সংস্থাটি। সৌদি আরবের অনুমতি না মেলায় সেদেশে নিয়মিত বাণিজ্যিক ফ্লাইট পুনরায় চালু করতে পারেনি বিমান। ফলে সৌদিতে কর্মরত অনেক বাংলাদেশি বিমানের টিকিট কেটে রেখেও যেতে পারছিলেন না। অন্যদিকে ফ্লাইট কম থাকায় সৌদি অ্যারাবিয়ান এয়ারলাইনসও এত যাত্রীর চাপ নিতে পারছিল না।

এতে বিক্ষুব্ধ হয়ে রাজধানীর সোনারগাঁও হোটেল ও প্রবাসীকল্যাণ ভবনের সামনে টানা কয়েক দিন ধরে বিক্ষোভ করেন দেশে আটকেপড়া সৌদি প্রবাসীরা। তবে আকামার মেয়াদ বৃদ্ধিসহ নতুন সিদ্ধান্তগুলোর পরিপ্রেক্ষিতে বিশেষ বিমানের ব্যবস্থা করেছে বাংলাদেশ বিমানও।

গতকাল পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে আগামী ১ অক্টোবর থেকে সৌদি আরবের সঙ্গে সব ধরনের বাণিজ্যিক ফ্লাইট চলাচল শুরু করবে। এছাড়া বিশেষ দুটি বিমান আগামী ২৬ ও ২৭ তারিখে প্রবাসীদের নিয়ে সৌদি আরবে গমন করবে বলে নিশ্চিত করেছে মন্ত্রণালয়। এদিকে সৌদিগামী বাতিল হওয়া সব রুটের ফ্লাইট আগামী ১ অক্টোবর চালু হবে বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেন। পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ওমানের প্রবাসীরাও কাজে ফিরতে পারবেন ১ অক্টোবর থেকে। তবে পিসিআর টেস্টের রিপোর্ট থাকতে হবে এবং পৌছে ১৪ দিন কোয়ারেন্টাইন করতে হবে সব যাত্রীকে। বিমান বাংলাদেশের এক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, বাংলাদেশ বিমানের যেসব যাত্রী ১৬ ও ১৭ মার্চের জেদ্দা ও রিয়াদের বিমানের রিটার্ন কেটেছিলেন তাদের আগামী ২৬ সেপ্টেম্বর (ঢাকা-জেদ্দা) ও ২৭ সেপ্টেম্বর (ঢাকা-রিয়াদে) যাত্রীবাহী ফ্লাইটে সৌদি আরব নিয়ে যাওয়া হবে। এর আগে বিমানের বেশ কয়েকটি বিশেষ ফ্লাইট সৌদি গেলেও সেখানে যাত্রী নেওয়া হয়েছিল নিবন্ধন ও ‘আগে আসলে আগে পাবেন’ ভিত্তিতে। এবারই প্রথম রিটার্ন টিকিট কাটা যাত্রীদের অগ্রাধিকার দেওয়া হলো।

তবে সৌদি এয়ারলাইনসের কর্মকর্তারা জানান, করোনা প্রাদুর্ভাব শুরুর আগে রিটার্ন টিকিট কেটে যারা দেশে ফিরেছেন, এখন শুধু তাদের টিকিট দেওয়া হবে। নতুন করে কোনো টিকিট ইস্যু করা হবে না। গতকাল বৃহস্পতিবার ১ থেকে ৫০০ পর্যন্ত টোকেনধারীদের টিকিট দেওয়া হয়েছে। এছাড়া আজ শুক্রবার ৫০১ থেকে ৮৫০, শনিবার ৮৫১ থেকে ১২০০ এবং রোববার ১২০১ থেকে ১৫০০ টোকেনধারীদের টিকিট দেওয়া হবে।

গত দুই দিনের মতো গতকাল টিকিট নিতে আসা যাত্রীদের রাস্তায় অবস্থান নিতে দেখা গেছে। ৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে টিকিট পাওয়ার আশায় সৌদি অ্যারাবিয়ান এয়ারলাইনস ও বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের অফিসের সামনে ভিড় করেছেন তারা। গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই কাওরানবাজারে সাউদিয়া ও মতিঝিলে বিমানের বিক্রয়কেন্দ্রের সামনে জড়ো হয়েছেন প্রবাসীরা। পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে উভয় স্থানেই অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রাখা হয়েছিল।

গতকাল সরেজমিন দেখা যায়, কাওরানবাজারে সোনারগাঁও হোটেলের সামনে সকাল থেকেই জড়ো হতে থাকেন প্রবাসীরা। বৃষ্টি উপেক্ষা করেই তারা সেখানে অবস্থান নেন। তবে প্রবাসীরা যেন রাস্তা অবরোধ না করেন, সে বিষয়ে পুলিশেরও তৎপরতা দেখা গেছে। আবদুল হালিম নামে এক প্রবাসী বলেন, টিকিটের সিন্ডিকেট যেন না হয়। সিন্ডিকেট করে অতিরিক্ত ভাড়া যেন না নেয়। আমরা এর বেশি কিছু চাই না। লতিফুর রহমান নামের অপর এক প্রবাসী বলেন, গত কয়েকদিন টোকেন নম্বর দিলেও টিকিট ঠিকমতো দেয়নি। আজ দেবে কিনা জানি না। কিন্তু আমাদের তো ভিসার মেয়াদ বেশি দিন নেই।

তবে নির্ধারিত তারিখের টিকিটধারী ছাড়াও অন্য তারিখের যাত্রীরা ভিড় করেছেন মতিঝিলে বিমানের বিক্রয় কেন্দ্রের সামনে। সেখানেও যান চলাচল স্বাভাবিক রাখতে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।

গিয়াস উদ্দিন বলেন, ১৫ মার্চ আমার চট্টগ্রাম টু জেদ্দা রিটার্ন টিকিট ছিল। ফ্লাইট বন্ধ হওয়ার কারণে যেতে পারিনি। এখন আমার ইকামা আর ভিসা দুটির মেয়াদ ৮ সেপ্টেম্বর শেষ হয়ে গেছে। এখন আমি কী বিমান অফিসে আসব টিকিট রিকনফার্ম করার জন্য, নাকি ইকামা ও ভিসার মেয়াদ থাকতে হবে, এ বিষয়ে কোনো তথ্য পাচ্ছি না। তাই আজ বিমান অফিসে আসলাম জানতে।

আন্তর্জাতিক ফ্লাইট চালু করার পর বাংলাদেশিদের সৌদি আরবে কর্মস্থলে ফেরার সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে লক্ষাধিক প্রবাসীর। তবে ভিসার মেয়াদ, ফ্লাইট সংকট থাকায় কিছুটা জটিলতায় পড়তে হচ্ছে প্রবাসীদের। সৌদি অ্যারাবিয়ান এয়ারলাইনস বিশেষ ফ্লাইটের পাশাপাশি নিয়মিত ফ্লাইটে যাত্রী নেওয়া ?শুরু করেছে। বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসও প্রবাসীদের সৌদিতে ফেরাতে ফ্লাইট পরিচালনা শুরু করবে। তবে করোনা মহামারির মধ্যে সৌদিতে ফিরতে প্রবাসীদের মানতে হবে স্বাস্থ্যবিধিসহ কিছু শর্ত।

এদিকে গত বুধবার পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম জানান, আকামার মেয়াদ আরবি সফর মাসের শেষ দিন পর্যন্ত (মানে ২৩ সেপ্টেম্বর থেকে আরো ২৪ দিন) বাড়ানো হয়েছে। এছাড়া বাংলাদেশ বিমানকে রিয়াদ এবং জেদ্দায় সপ্তাহে মোট চার ফ্লাইট পরিচালনার অনুমতি দেওয়া হয়েছে। ঢাকায় সৌদি আরব দূতাবাসের ভিসা অফিস রোববার (২৭ সেপ্টেম্বর) থেকে খোলা থাকবে এবং কোভিড-১৯ সংক্রান্ত নতুন নিয়মাবলি মেনে কনস্যুলার সেবা প্রদান শুরু করবে।

এ বিষয়ে সৌদি আরবে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী বলেন, প্রবাসীদের সৌদি আরবে আসার পথ খোলা হয়েছে। দুই দেশের সরকারের মধ্যে আলোচনার মাধ্যমে সমস্যা সমাধান করা হয়েছে। আশা করি, প্রবাসীদের মনে আর কোনো দুঃখ-কষ্ট থাকবে না। সৌদিতে বসবাসরত বাংলাদেশিদের ব্যাপারে সৌদি সরকার খুবই আন্তরিক। ঢাকায় আটকেপড়া প্রবাসীদের বিষয়টি সৌদি সরকারকে অবহিত করার পরই তারা দ্রুত সিদ্ধান্ত নিয়েছে। দুই দেশের নিয়মিত ফ্লাইট চালু ও প্রবাসীদের আকামার মেয়াদ বাড়ানোর জন্য সৌদি কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আমরা কথা বলছি। তারা বিষয়টি ইতিবাচক দৃষ্টিতে দেখছে।

 

 

"