reporterঅনলাইন ডেস্ক
  ২৬ নভেম্বর, ২০২১

মেয়রের উন্নয়ন ভাবনা

মানুষের সেবাই আমার লক্ষ্য

আমরা তো কত কিছুই বলি, নির্বাচিত হলে এটা দেব, সেটা দেব, এই করব আরো কত কী, কিন্তু এগুলো ঠিক নয়, নাগরিক সুবিধা বলতে যেটা দরকার সেটাই দিতে আমি চেষ্টা করব। ছোটবেলা থেকেই মানুষের সেবা করতে এবং কারো বিপদে ঝাঁপিয়ে পড়তে শিখেছি। সব সময়ই অন্যায়, মাদক ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে ছিলাম, ভবিষ্যতেও থাকব। একজন মাদকসেবী বা মাদক ব্যবসায়ী তারা নিজেকে ধ্বংস করে, পরিবারকে ধ্বংস করে, সমাজ এবং রাষ্ট্রকে ধ্বংস করে। মাদক নিয়ে কেউ আটক হলে আমি তাদের ব্যাপারে কখনো সুপারিশ করিনি করবও না। পৌরসভাকে নিয়ে সবাই স্বপ্ন দেখেন। আমি দায়িত্ব পাওয়ার পর থেকেই পৌরবাসীর সেবায় নিজেকে নিয়োজিত রাখার চেষ্টা করেছি।

অবকাঠামোগত উন্নয়নসহ নাগরিকসেবা নিশ্চিতের জন্য কাজ করার চেষ্টা করেছি। সামনে আরো ভালো করার চেষ্টা করব। তারপরও আমরা অনেকে বলি, আধুনিক, অনেকে বলে ডিজিটাল আবার আলোকিত। কিন্তু আমি আধুনিক হোক আর ডিজিটাল হোক- সব ধরনের নাগরিক সুবিধা সম্পন্ন একটি মডেল পৌরসভা গড়তে চাই। প্রতিদিনের সংবাদের সঙ্গে আলাপে এ কথা বলেছেন ভেদরগঞ্জ পৌরসভার মেয়র আবুল বাশার চোকদার। সাক্ষাৎকার নিয়েছেন শরীয়তপুর প্রতিনিধি রায়েজুল আলম।

ভেদরগঞ্জ পৌরসভা প্রতিষ্ঠিত হয় ১৯৯৭ সালের ৭ অক্টোবর। আর ২০১৭ সালের ১২ ডিসেম্বর দ্বিতীয় শ্রেণিতে উন্নীত হয়। এর আয়তন ২ দশমিক ২৭ বর্গকিলোমিটার। জনসংখ্যা ১৩ হাজার, ওয়ার্ড ৯টি। ভোটার সংখ্যা ৮ হাজার ৫০০ জন। এখানে একটি সরকারি কলেজ, সরকারি উচ্চবিদ্যালয়, তিনটি প্রাথমিক বিদ্যালয়, একটি ডিগ্রি মাদরাসা, ২৬টি মসজিদ ও একটি মন্দিরসহ আরো অনেক বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান রয়েছে। চলতি বছরের ৩০ জানুয়ারির পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র নির্বাচিত হন আবুল বাশার চোকদার। তিনি দায়িত্ব নেন ২৫ ফেব্রুয়ারি।

মেয়র বলেন, আমাদের কিছু লক্ষ্য এবং স্বপ্ন থাকে, যদি প্রতিনিধিত্ব করা না যায়। তবে সেগুলো বাস্তবায়ন করা সম্ভব হয় না। আর জনগণের বাইরে থেকে রাজনীতি করে সব কাজ করাও সম্ভব নয়। মানুষ আমাকে ভালোবাসে, ভালো জানে, তাই তারা আমাকে মেয়র হিসেবে নির্বাচিত করেছে। ভবিষ্যতের বিষয়ে আগাম কিছু বলা ঠিক নয়। কত মানুষ বলে আপনি এটা হবেন সেটা হবেন। আমার এত দরকার নেই, আমি যে অবস্থানে আছি, সে অবস্থান নিয়েই চিন্তা করি। ভবিষ্যতের কথা ভবিষ্যতেই বলা ভালো।

মেয়র বলেন, ডিজিটাল প্রযুক্তি ব্যবহারে ভেদরগঞ্জ পৌরসভা অনেকটাই এগিয়ে রয়েছে। ভবিষ্যতে এগুলোর পুরো প্রক্রিয়াই অনলাইনের মাধ্যমে সম্পাদন করা হবে। ভবিষ্যতে এগুলো অনলাইনের মাধ্যমে সম্পন্ন করতে পৌরসভার কার্যক্রমকে আরো বেগবান করা হবে। পৌরশহরে ৪৫ কিলোমিটার পাকা ও ২০ কিলোমিটরা কাঁচা রাস্তা রয়েছে। ছয়টি ব্রিজ, ১৫টি কালভার্ট, ছয় কিলোমিটার পাকা ড্রেনও ১০ কিলোমিটার কাঁচা ড্রেন রয়েছে। ড্রেনেজ ব্যবস্থা এমনভাবে করা হয়েছে যাতে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি না হয়। এছাড়া পৌর এলাকার ময়লা-আবর্জনা নির্দিষ্ট স্থানে ফেলা হয়।

ভেদরগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক কোষাধ্যক্ষ মেয়র আবুল বাশার চোকদার পৌরসভার ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা সম্পর্কে বলেন, শরীয়তপুর-৩ আসনের সংসদ সদস্য নাহিম রাজ্জাকের সহযোগিতায় পৌরসভার বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজ এগিয়ে যাচ্ছে। পৌরবাসীর সেবা প্রাপ্তি সহজ করার জন্য সেবাদান পদ্ধতি ডিজিটালাইজড করব। পৌরসভাকে একটি মডেল পৌরসভায় রূপ দিতে সর্বোচ্চ চেষ্টা করব ইনশাআল্লাহ।

আগামীকাল পড়ুন

গোবিন্দগঞ্জ পৌর মেয়রের কথা

"

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close