নিজস্ব প্রতিবেদক

  ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০২১

লিবিয়ায় পাচার

২৬ বাংলাদেশি হত্যায় ৪১ জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট

লিবিয়ায় পাচার হওয়া ২৬ বাংলাদেশিকে ২০২০ সালের ২৭ মে হত্যার অভিযোগে রাজধানীর পল্টন থানায় করা মামলায় ৪১ জনের বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)।

সম্প্রতি ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সিআইডির পুলিশ পরিদর্শক আছলাম আলী ৪১ জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট দাখিল করেন। অন্যদিকে অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় ৫ জনকে মামলার দায় থেকে অব্যাহতি দিতে আবেদন করেন তদন্ত কর্মকর্তা। এরপর ঢাকার মানব পাচার অপরাধ দমন ট্রাইব্যুনাল মামলার চার্জশিট গ্রহণ করে ৫ জন আসামিকে মামলার দায় থেকে অব্যাহতি দেন।

চার্জশিটভুক্ত ৪১ জন হলেন তানজিদ ওরফে তানজিমূল ওরফে তানজিরুল, জোবর আলী, জাফর মিয়া, স্বপন মিয়া, মিন্টু মিয়া, শাহিন বাবু, আলী হোসেন, আমির হোসেন, নজরুল মোল্লা, আ. রব মোড়ল, সজীব মিয়া, মুন্নী আক্তার রূপসী, রবিউল মিয়া, রুবেল শেখ, আসুদুল জামান, বাহারুল আলম, নাজমুল হাসান, হেলাল মিয়া, কামালউদ্দিন, কামাল হোসেন, রাশিদা বেগম, নুর হোসেন শেখ, ইমাম হোসেন শেখ, আকবর হোসেন শেখ, বুলু বেগম, জুলহাস সরদার, দিনা বেগম, শাহাদাত হোসাইন, জাহিদুল আলম, জাকির মাতুব্বর, লিয়াকত আলী শেখ, নাসির বয়াতী, রেজাউল বয়াতি, হাজি শহীদ মিয়া, খবির উদ্দিন, পারভেজ হাসান, কামছার মুন্সি, মাহাবুব মুন্সি, পারভেজ আহমেদ, নজরুল ইসলাম সুমন ও কাউসার।

অব্যাহতিপ্রাপ্ত পাঁচজন হলো- শেখ মো. মাহাবুবুর রহমান, শেখ সাহিদুর রহমান, সাদ্দাম, কুদ্দুস বয়াতি ও লালন।

মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছে, ২০১৮ সালের ফেব্রুয়ারি থেকে ২০২০ সালের মার্চের ২০ তারিখের মধ্যে ৩৮ জন বাংলাদেশিকে ইতালিসহ ইউরোপের বিভিন্ন দেশে পাঠানোর কথা বলে পাচার করা হয়। এরপর ২৮ মে লিবিয়ার সাহারা মরুভূমি অঞ্চলের মিজদা শহরে ২৬ বাংলাদেশিসহ ৩০ জনকে গুলি করে হত্যা করা হয়। এতে আহত হন আরো ১১ জন। এ ঘটনায় ২০২০ সালের ২ জুন ৩৮ জনকে আসামি করে রাজধানীর পল্টন থানায় মামলা করেন পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) উপপরিদর্শক (এসআই) এইচ এম রাশেদ ফজল। এতে পরিচয় না জানা আসামি করা হয়েছে ৩০-৩৫ জনকে।

 

 

"

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close