শেরপুর প্রতিনিধি

  ০৬ ডিসেম্বর, ২০২২

মীনা অ্যাওয়ার্ড পেলেন শেরপুরের মোশারফ

ইউনিসেফ বাংলাদেশের প্রতিনিধি মি. শেলডন ইয়েট এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগোযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের অধ্যাপক ড. গীতি আরা নাসরিনের হাত থেকে ক্রেস্ট নিচ্ছেন মোশারফ হোসাইন

১৭তম ইউনিসেফ মীনা মিডিয়া অ্যাওয়ার্ড পেয়েছেন শেরপুরের ঝিনাইগাতীর উপজেলার মোশারফ হোসাইন। ২০২২ সালের ৪ মার্চ জাগো নিউজে প্রকাশিত ‘মানসিক-শারীরিক স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে শিক্ষাবঞ্চিত বেদে জনগোষ্ঠীর শিশুরা’ শিরোনামের প্রতিবেদনটির জন্য প্রিন্ট জার্নালিজম ক্যাটাগরিতে মীনা মিডিয়া অ্যাওয়ার্ড পেয়েছেন তিনি।

প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁও হোটেলের গ্র্যান্ড হলরুমে মঙ্গলবার (৬ ডিসেম্বর) বিকেলে ইউনিসেফ আয়োজিত পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে মোশারফ হোসাইনকে পুরস্কার হিসেবে ক্রেস্ট, সনদ ও আর্থিক প্রণোদনা তুলে দেন ইউনিসেফ বাংলাদেশের প্রতিনিধি মি. শেলডন ইয়েট এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগোযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের অধ্যাপক ড. গীতি আরা নাসরিন।

মোশারফ হোসাইনের প্রতিবেদনটির মাধ্যমে উঠে আসে বেদে জনগোষ্ঠীর শিশুদের শারীরিক ও মানসিক স্বাস্থ্য ঝুঁকি, বাল্যবিয়ে ও শিক্ষাবঞ্চিত শিশুদের আর্তনাদ। মোশারফ হোসাইন বলেন, ইউনিসেফের এই পুরস্কার আগামী দিনে আরো ভালো কাজ করতে অনুপ্রাণিত করবে। আমার চাওয়া বেদে জনগোষ্ঠীর শিশুদের শিক্ষা অধিকার নিশ্চিত করতে দেশের সুনির্দিষ্ট সরকারি অধিদপ্তর ও বেসরকারি সংস্থা এগিয়ে আসুক। বেদে জনগোষ্ঠীর শিশুদের শিক্ষা থেকে পিছিয়ে রেখে দেশ এগিয়ে যাওয়ার সুযোগ নেই। উন্নয়নের অংশীদার হিসেবে বেদে জনগোষ্ঠীর শিশুদেরও শিক্ষার মৌলিক এ অধিকার আছে।

মোশারফ হোসাইন একজন ফ্রিল্যান্স সাংবাদিক ও স্বেচ্ছাসেবক। শেরপুরের ঝিনাইগাতী উপজেলার প্রত্যন্ত গ্রামে উঠা এই তরুণ ছোটবেলা থেকেই স্বেচ্ছাসেবী কাজ ও সাংবাদিকতার সঙ্গে জড়িত। করোনাকালীন বেদে জনগোষ্ঠীর পাশে দাঁড়িয়ে প্রশংসিত হন, পরে হিডেন হিরো স্বীকৃতি দেয় আন্তর্জাতিক সংস্থা ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশ। ১৪ ও ১৫তম আন্তর্জাতিক শিশু চলচ্চিত্র উৎসব বাংলাদেশে প্রেস অ্যান্ড মিডিয়া বিভাগের টিম লিডার হিসেবেও কাজ করেছেন তিনি। এছাড়া দেশের বিভিন্ন জাতীয় গণমাধ্যমে মোশারফ হোসাইনের লেখা ফিচার প্রশংসা কুড়িয়েছে।

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
মীনা অ্যাওয়ার্ড,শেরপুর,মোশারফ
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close