ক্যাম্পাস ডেস্ক

  ২৪ জুন, ২০২১

‘শিক্ষার্থীদের পড়াশোনা ও সৃষ্টিশীল কাজে ব্যস্ত থাকতে হবে’

করোনার কারণে ঘরবন্দি জীবনযাপনের ফলে শিক্ষার্থীরা হতাশাগ্রস্ত হয়ে পড়ছেন। অফলাইনে শিক্ষা ও শিক্ষাসহায়ক কার্যক্রমের অভাব মাঝে মাঝে তাদের জীবনের ওপর বিরক্তি আনছে। অনেকে জীবনকে অর্থহীন ভাবা শুরু করেছেন এবং বিভিন্ন সামাজিক পরিমণ্ডলে অভিযোজন না করতে পারার কারণে নানা ঘটনা ঘটাচ্ছে, যা অপ্রত্যাশিত।

গত শুক্রবার স্টুডেন্টস এগেইন্টস ভায়োলেন্স এভরিহয়ার (সেইভ) রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (রাবি) চ্যাপ্টারের আয়োজনে ‘শিক্ষার্থীদের করোনাকালীন মানসিক স্বাস্থ্য : সংকট ও উত্তরণ’ শীর্ষক ওয়েবিনারে বক্তারা এসব কথা বলেন। ভার্চুয়াল সেমিনারটি সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় শুরু হয়ে প্রায় রাত ১০টা পর্যন্ত চলে।

------
এ সময় বক্তারা শিক্ষার্থীদের আগামী দিনগুলোর জন্য এখন থেকেই পড়াশোনা ও বিভিন্ন সৃষ্টিশীল কাজে নিজেদের ব্যস্ত রাখার ওপর গুরুত্বারোপ করেন। বক্তারা বলেন, সেটি না নিতে পারলে করোনা পরবর্তী প্রতিযোগিতামূলক বিশ্বের সঙ্গে খাপ খাওয়াতে শিক্ষার্থীদের জন্য আরো বেশি চ্যালেঞ্জিং হতে পারে। আর এ কাজগুলোর মাধ্যমে নিজেদেরকে ব্যস্ত রাখতে পারলে নিজের ভালো থাকার পাশাপাশি অন্যকেও ভালো রাখা যাবে।

রাবির গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ও সেইভ রাবি চ্যাপ্টারের মডারেটর মামুন আ. কাইউমের সঞ্চালনায় সেমিনারে প্রধান অতিথি ছিলেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য (চলতি দায়িত্ব) প্রফেসর ড. আনন্দ কুমার সাহা। বিশেষজ্ঞ বক্তা হিসেবে ছিলেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের মনোবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক মুর্শিদা ফেরদৌস বিনতে হাবিব ও অধ্যাপক তানজীর আহমেদ তুষার এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ও সেইভ-এর ন্যাশনাল কো-অর্ডিনেটর ড. আইনুল ইসলাম। এতে বিভিন্ন বিশ্বদ্যিালয়ের শতাধিক শিক্ষক ও শিক্ষার্থী অংশ নেন।

 

 

"

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close