প্রতিদিনের সংবাদ ডেস্ক

  ১৩ মে, ২০২২

ন্যাটোর সদস্য হতে চায় ফিনল্যান্ড

‘বিলম্ব না করে’ পশ্চিমা সামরিক জোট ন্যাটোতে যোগদানে নিজ দেশকে আহ্বান জানিয়েছেন ফিনল্যান্ডের প্রেসিডেন্ট সাউলি নিনিস্তো ও প্রধানমন্ত্রী সান্না মারিন। বৃহস্পতিবার যৌথ বিবৃতিতে তারা জানান, আগামী কয়েকদিনের মধ্যেই একটি সিদ্ধান্তে পৌঁছানোর আশা করছেন।

ইউক্রেনে রাশিয়ার আক্রমণের কারণেই ফিনল্যান্ড নিজেদের সুরক্ষায় ন্যাটোতে যোগদানে তোড়জোড় চালাচ্ছে। ফিনল্যান্ডের সঙ্গে রাশিয়ার ১ হাজার ৩০০ কিলোমিটারের দীর্ঘ সীমান্ত রয়েছে। ফলে রাশিয়া দেশটিতেও ইউক্রেনের মতো হামলা করে বসতে পারে, এমন শঙ্কা থেকেই ফিনল্যান্ড সরকার জোটটিতে যোদগ দেওয়া নিয়ে আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছে।

সংসদ ও রাজনৈতিক ব্যক্তিদের সিদ্ধান্তের প্রেক্ষিতে আগামী রবিবার আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষণা করতে পারে ফিনল্যান্ড। একইদিন সুইডেনও ঘোষণা দিতে পারে বলে জানা গেছে।

ন্যাটোয় যোগ না দিতে একাধিকবার ফিনল্যান্ড ও সুইডেনকে হুমকি দিয়েছে রাশিয়া। যদি যোগ দেয় তবে পরিণতি ভোগ করতে হবে বলেও সতর্ক করেছে মস্কো। এর আগে ন্যাটো মহাসচিব জেন্স স্টলটেনবার্গ আশা করেন, এই দুই দেশের আবেদনের প্রক্রিয়া দ্রুত কার্যকর হবে।

গতকাল বৃহস্পতিবার বিবৃতিতে ফিনিশ প্রধানমন্ত্রী ও প্রেসিডেন্ট আরও বলেন, ‘ন্যাটো ইস্যুতে আলোচনার জন্য জনগণের মতামতের প্রয়োজন ছিল। কিন্তু সেই সময় নেই। ন্যাটোর সদস্যপদ ফিনল্যান্ডের নিরাপত্তা জোরদার করবে। বিলম্ব ছাড়াই ফিনল্যান্ড অবশ্যই ন্যাটোতে যোগদানের আবেদন করবে।’ গত সপ্তাহে এক জনমত জরিপে দেখা যায়, ন্যাটোতে যোগদানে সমর্থন রয়েছে ৭৬ শতাংশের আর বিপক্ষে ১২ শতাংশ। সূত্র: বিবিসি

ন্যাটোতে ফিনল্যান্ডের যোগদান রাশিয়ার জন্য হুমকি : ক্রেমলিন

রুশ প্রেসিডেন্টের কার্যালয় ক্রেমলিন জানিয়েছে, পশ্চিমাদের সামরিক জোট ন্যাটোতে ফিনল্যান্ডের যোগদানের সিদ্ধান্ত রাশিয়ার জন্য স্পষ্ট হুমকি। সামরিক এই জোটের সম্প্রসারণ ইউরোপ বা বিশ্বকে স্থিতিশীল করবে না। গতকাল বৃহস্পতিবার ক্রেমলিন মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভ এসব কথা বলেছেন। ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্স এখবর জানিয়েছে।

কনফারেন্স কলে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে পেসকভ জানান, ন্যাটো জোটে যোগদানের জন্য ফিনল্যান্ডের নেওয়া পদক্ষেপ অনুতাপের এবং একই ধরনের পাল্টা পদক্ষেপ গ্রহণের কারণ।

বৃহস্পতিবার ফিনল্যান্ডের প্রেসিডেন্ট ও প্রধানমন্ত্রী ঘোষণা দেন, অবিলম্বে তাদের ন্যাটো সামরিক জোটে যোগদানের আবেদন করা উচিত। ফিনল্যান্ডের এই সিদ্ধান্ত রাশিয়ার জন্য হুমকি কিনা জানতে চাইলে পেসকভ বলেন, অবশ্যই। ন্যাটোর সম্প্রসারণ আমাদের মহাদেশকে আরও স্থিতিশীল ও সুরক্ষিত করবে না। তিনি বলেন, ফিনল্যান্ডের এই যোগদান রাশিয়ার বিরুদ্ধে অবন্ধুসুলভ পদক্ষেপ।

রাশিয়ার পাল্টা পদক্ষেপ সম্পর্কে জানতে চাইলে ক্রেমলিন মুখপাত্র বলেন, সবকিছু নির্ভর করবে ন্যাটোর সম্প্রসারণ কেমন এবং আমাদের সীমান্তের কাছে কী মাত্রায় সামরিক অবকাঠামো স্থাপন করা হয় তার ওপর।

২৪ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনে রুশ হামলার আগ পর্যন্ত রাশিয়া ইস্যুতে নিরপেক্ষ অবস্থানের নীতি বজায় রেখেছিল ফিনল্যান্ড। রাশিয়ার সঙ্গে দেশটির ১ হাজার ৩৪০ কিলোমিটার সীমান্ত রয়েছে। এবার দেশটি ন্যাটোতে যোগদান করতে যাচ্ছে। একই সঙ্গে তাদের প্রতিবেশী সুইডেনও জোটটিতে যুক্ত হওয়ার আগ্রহ প্রকাশ করেছে। সুইডেনও এতদিন মার্কিন নেতৃত্বাধীন জোটের অংশ হওয়া থেকে নিজেকে বিরত রেখেছিল।

ফিনল্যান্ডকে প্রশংসায় ভাসালেন জেলেনস্কি : পশ্চিমা সামরিক জোট ন্যাটোতে ফিনল্যান্ডের প্রস্তুতিতে ফিনিশ প্রেসিডেন্টকে প্রশংসায় ভাসিয়েছেন ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি। এ খবর জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

ন্যাটোতে যোগদানে আবেদনের প্রসঙ্গে ফিনল্যান্ডের প্রেসিডেন্ট সাউলি নিনিস্তোর সঙ্গে ফোনালাপ করেন জেলেনস্কি। তখনই দেশটির প্রশংসা করেন তিনি। টুইট বার্তায় প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কি বলেন, ‘ইউক্রেনকে ইউরোপে একীকরণ নিয়েও আমাদের মধ্যে আলোচনা হয়েছে।’

ফিনল্যান্ডের যোগদানে ন্যাটো শক্তিশালী হবে : মহাসচিব

এদিকে, পশ্চিমা সামরিক জোট ন্যাটোতে যোগদানের বিষয়ে ফিনল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী ও প্রেসিডেন্টের ঘোষণাকে স্বাগত জানিয়েছেন ন্যাটো মহাসচিব জেন্স স্টলটেনবার্গ। তিনি বলেছেন, এতে করে ন্যাটো জোট শক্তিশালী হবে।

স্টলটেনবার্গ বৃহস্পতিবার বিবৃতিতে জানিয়েছেন, ফিনল্যান্ড ন্যাটোতে যোগদানের সিদ্ধান্ত নিলে স্বাগত জানানো হবে। দেশটির যোগদানের প্রক্রিয়া হবে মসৃণ ও দ্রুত।

তিনি আরও বলেন, ফিনল্যান্ড ন্যাটোর খুব ঘনিষ্ঠ একটি গণতান্ত্রিক এবং ইউরোপীয় ইউনিয়নের সদস্য দেশ এবং ইউরো-আটলান্টিক নিরাপত্তায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে। দেশটি জোটের সদস্য হলে ন্যাটো ও খোদ ফিনল্যান্ডের নিরাপত্তা আরও শক্তিশালী হবে। সূত্র: আনাদোলু এজেন্সি

"

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close