নিজস্ব প্রতিবেদক

  ১১ সেপ্টেম্বর, ২০২১

নারী উদ্যোক্তা পুতুলের গল্প

ঢাকার নদ্দা এলাকায় জন্ম নেওয়া সাহিদা ইসলাম পুতুল ২০১৬ সাল থেকেই স্বপ্ন দেখতেন উদ্যোক্তা হওয়ার। কিন্তু শুরু করার আগেই জীবনের বড় ধাক্কাটি খান এই নারী। হঠাৎ দুর্ঘটনায় স্বামীকে হারিয়ে তিন সন্তান নিয়ে ভেঙে পড়েন তিনি। চাকরির সামান্য বেতনে সন্তান নিয়ে কোনোভাবে দিন পার করা পুতুল আবারও ধাক্কা খান করোনা মহামারিতে। তবে এক বন্ধুর পরামর্শে উদ্যোক্তা হওয়ার স্বপ্ন পূরণে এগিয়ে যান এই নারী।

২০২০ সালের ৫ মে ৬০ টাকা দিয়ে মাত্র এক কেজি চাল কিনে শুরু করেছিলেন পুতুল। নিজের প্রচেষ্টায় মাত্র এক বছরের মাথায় ঘুরে দাঁড়ান তিনি। তার অনলাইন পেজ Putul’s collection’ এর মাধ্যমে বিভিন্ন ধরনের পিঠা, হোম মেড আচার, ফ্রোজেন ফুড, চালের খুদের ভাত ভর্তা, আচার এবং খাদি কাপড়ের পাঞ্জাবি বিক্রি করে মাস শেষে সম্মানজনক টাকা উপার্জন করেন পুতুল। প্রতিদিনের সংবাদকে তিনি বলেন, ‘উদ্যোক্তা জীবন শুরুতে উইম্যান অ্যান্ড ই-কমার্স ফোরাম (উই) নামের একটি প্ল্যাটফরমে এসে আমি অনেক মানুষের ভালোবাসা ও সাপোর্ট পেয়েছি। আমার এগিয়ে যাওয়ার পেছনে নাসিমা আক্তার নিশা আপু ও রাজিব আহমেদ স্যারের বিশেষ অবদান আছে।’

উদ্যোক্তা হওয়ার শুরুটা মোটেই সহজ ছিল না পুতুলের জন্য। অনেক সমস্যার পাশাপাশি আপনজন কাউকেই পাশে পাননি এই নারী। অবহেলা ও হাসির পাত্র হয়েছেন বারবার। তার মধ্যে আবার ব্যবসায় মূলধন জোগাড়ের সমস্যা তো ছিলই।

পুতুল বলেন, ‘হঠাৎ এক দিন মাথায় বুদ্ধি এলো আমি তো পিঠা তৈরি করতে পারি তাহলে এটা নিয়ে চেষ্টা করতে দোষ কোথায়। তখন পিঠা তৈরি করে ছবি তুলে ‘উই’তে পোস্ট করা শুরু করি এবং আমার ছবি দেখে অনেকে রেসপন্স করেন। আমার প্রথম সেল ছিল সিগনেচার পণ্য বাঁশপাতা পিঠা। এখন আমার মাসে আশানুরূপ বিক্রি হচ্ছে।’

 

 

"

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close