টঙ্গী (গাজীপুর) প্রতিনিধি

  ০৬ আগস্ট, ২০২১

টঙ্গীতে শ্রমিক-পুলিশ সংঘর্ষে আহত ২০

গাজীপুরের টঙ্গীতে শ্রমিক ছাঁটাইয়ের প্রতিবাদে ক্রসলাইন নিট ফেব্রিকস কারখানায় শ্রমিক বিক্ষোভের ঘটনা ঘটেছে। এ সময় বিক্ষুব্ধ শ্রমিকদের নিভৃত করতে গেলে শ্রমিক-পুলিশ সংঘর্ষ বাধে। এ সময় পুলিশ কাঁদানে গ্যাস ও সাউন্ড গ্রেনেড ছোড়ে। এ ঘটনায় পুলিশের আট সদস্যসহ অন্তত ২০ জন আহত হয়েছেন। আহতদের টঙ্গী শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টার জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য পাঠানো হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল ৯টায় টঙ্গীর ভাদাম এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

আহত পুলিশ সদস্যরা হলেন এএসআই এমদাদুল হক, কনস্টেবল মেহেদী, সাব্বির, আশরাফুল, মারুফ তমাল। আহত আনসার সদস্যরা হলেন মোয়াজ্জেম হোসেন, রেজাউল করিম, মোহাম্মদ আলী মোল্লা।

পুলিশ ও শ্রমিকরা জানান, কারখানার ১৬ জন শ্রমিককে ছাঁটাইয়ের প্রতিবাদে গত মঙ্গলবার থেকে কয়েকশ শ্রমিক বিক্ষোভ ও কর্মবিরতি পালন করে আসছিলেন। বিষয়টি সমাধানের জন্য কারখানা কর্তৃপক্ষ বুধবার সময় নির্ধারণ করে দেয়। গত বুধবার সকালে শ্রমিকরা কাজে যোগ দিলে বিষয়টি সমাধান না করায় দুপুরের পর শ্রমিকরা ফের বিক্ষোভ শুরু করেন। পরে সন্ধ্যায় মালিকপক্ষ বৃহস্পতিবার সমাধান করবে বলে জানালে শ্রমিকরা বাড়ি ফিরে যান। কিন্তু বৃহস্পতিবার সকালে শ্রমিকরা কাজে যোগ দিতে এসে কারখানা বন্ধের নোটিস দেখে বিক্ষুব্ধ হয়ে উঠেন। এ সময় শ্রমিকরা কারখানার ২ নম্বর গেটের সামনে জড়ো হয়ে বিক্ষোভ শুরু করেন। পরে শিল্প পুলিশ শ্রমিকদের থামাতে গেলে শ্রমিকরা ইটপাটকেল নিক্ষেপ করতে শুরু করেন। এ সময় বিক্ষুব্ধ শ্রমিকদের ছত্রভঙ্গ করতে ৫৮ রাউন্ড শটগান, ২১ রাউন্ড কাঁদানে গ্যাস ও তিন রাউন্ড সাউন্ড গ্রেনেড ছোড়ে পুলিশ।

শিল্প পুলিশের পরিদর্শক (টঙ্গী জোন) আব্দুল জলিল বলেন, শ্রম আইন অনুযায়ী কর্তৃপক্ষ কারখানা বন্ধ ঘোষণা করে নোটিস টানায়। সকাল থেকে কারখানার নিরাপত্তায় শিল্প পুলিশ মোতায়েন করা হয়। কিন্তু বিক্ষুব্ধ শ্রমিকরা কারখানার গেট ভাঙচুর করে ভেতরে প্রবেশ করতে চান। এ সময় শ্রমিকদের বাধা দিলে পুলিশের ওপর তারা হামলা চালায়।

 

 

"

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close