মহম্মদপুর (মাগুরা) প্রতিনিধি

  ০৯ মে, ২০২১

লিচু পাড়তে বাধা দেওয়ায় পিটিয়ে হত্যা

মাগুরার মহম্মদপুরে বিরোধপূর্ণ জমির লিচু পাড়তে না দেওয়ায় বোন-ভাগ্নের হামলায় মামা কুদ্দুস মোল্যা (৬০) খুন হয়েছেন। গতকাল শনিবার চিকিৎসাধীন ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে তিনি মারা যান। গত শুক্রবার উপজেলার রায়পুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। তিনি ওই গ্রামের মৃত ছত্তার মোল্যার ছেলে।

স্থানীয়রা জানান, তিন ভাই ও তিন বোনের মধ্যে কুদ্দুস মোল্যা ও সিদ্দিকুর রহমান অপেক্ষাকৃত দূর্বল। অন্য ভাই ইদ্রিস মোল্যা ও তিন বোনের স্বামীরা প্রভাবশালী হওয়ায় তারা সবসময় ওই দুই ভাইকে ভিটেছাড়া করতে চায়। এ নিয়ে বিভিন্ন সময় মারধর এবং হুমকি ধামকি চলতে থাকে। তাছাড়া আদালতে একাধিক মামলাও হয়। উপায়ান্তর না পেয়ে কুদ্দুস মোল্যা একই গ্রামে জমি কিনে বাড়ি করে বাস করতে থাকেন।

------
নিহতের ভাতিজা জুয়েল রানা বলেন, শুক্রবার দুপুরে ভিটেবাড়ির গাছের লিচু পাড়তে যায় কুদ্দুস মোল্যার বোন কমেলা খাতুন। তাকে কুদ্দুস মোল্যা ও তার পরিবারের লোকজন বাধা দেন। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে বোন-ভাগ্নেরা সংঘবদ্ধ হয়ে বিকাল ৪টার দিকে কুদ্দুস মোল্যার বাড়িতে গিয়ে তাকে কুপিয়ে জখম করে। গুরুতর অবস্থায় কুদ্দুস মোল্যাকে প্রথমে মহম্মদপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এবং পরে ফরিদপুর ও ঢামেক হাসপাতালে নেওয়া হয়। শনিবার দুপুরে তিনি মারা যান। এ ঘটনায় আহত হয়ে অন্তঃসত্ত্বা সুইটি সুলতানা (২৬), নাদিমা (৩৫) ও জুয়েল রানা (৩৫) উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এ ব্যাপারে মহম্মদপুর থানার ওসি তারক বিশ^াস বলেন, মৃত্যুর সংবাদ শুনেছি। তবে এখনো কোনো মামলা হয়নি।

 

 

"

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close