রাজারহাট (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি

  ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০২১

ভাঙন ঠেকাতে তিস্তায় বাঁশের বাঁধ

কুড়িগ্রামের রাজারহাট উপজেলার অন্তর্গত ঘড়িয়ালডাঙ্গা ইউনিয়নের ওপর দিয়ে প্রবাহিত তিস্তা নদীতে ভাঙন দেখা দিয়েছে। ভাঙন ঠেকাতে এলাকাবাসী নিজস্ব অর্থায়নে বাঁশ ও বিভিন্ন ধরনের গাছ দিয়ে বাঁধ নির্মাণ করেছেন। চলতি বছরে জুলাই থেকে এ পর্যন্ত ভাঙনে প্রায় ৩ হাজার কাঁচা-পাকা বসতবাড়ি নদীতে বিলীন হয়েছে। ভাঙনের হমকিতে রয়েছে বিভিন্ন স্থাপনাসহ ফসলি জমি।

সরেজমিনে দেখা যায়, নানান বয়সের মানুষ তীব্র স্রোতে উপেক্ষা করে পালাক্রমে এ কাজ করছেন। ভুক্তভোগী মমতাজ উদ্দিন বলেন, কুড়িগ্রাম পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো) কোনো ব্যবস্থা নেয়নি। বাধ্য হয়ে এলাকাবাসী নিজেদের মধ্যে চান্দা তুলে বাঁশ ও গাছ দিয়ে বাঁধ নির্মাণ করেছি। এদিকে ভাঙনকবলিত গতিয়াশামসহ অন্যান্য এলাকা পরিদর্শন করেন রাজারহাট উপজেলা চেয়ারম্যান জাহিদ সোহরাওয়ার্দী বাপ্পি, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আমান উদ্দিন আহম্মেদ মনজু, জেলা পুলিশ সুপার সৈয়দা জান্নাত আরা, রাজারহাট ইউএনও নূরে তাসনিম, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবুনুর মো. আক্তারুজ্জামান, পাউবোর এসডি হাসান মাহমুদ প্রমুখ।

কুড়িগ্রাম পাউবোর এসডি হাসান মাহমুদ জানান, গত মাসে তিস্তার পূর্ব তীর সংরক্ষণের জন্য ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার কাছে আবেদন করলেও পাস না হওয়ায় কাজ করা সম্ভব হচ্ছে না। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নূরে তাসনিম স্বেচ্ছাশ্রমের ভিত্তিতে বাঁশ দিয়ে বাঁধ নির্মাণ করায় এলাকাবাসীকে ধন্যবাদ জানান। তিনি জানান, চাহিদার তুলনায় সরকারি সহায়তা অপ্রতুল। উপজেলার নদীভাঙনে প্রকৃত ক্ষতিগ্রস্তদের তালিকা করে জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে পাঠিয়েছি। তীব্র ভাঙনরোধে কাজ করার জন্য পাউবোকে চিঠি দেওয়া হয়েছে। বিভাগীয় মিটিংয়ে তিস্তার ভাঙন নিয়ে আলোচনাও হয়েছে।

 

 

"

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close