শঙ্কা সত্যি করে স্থগিত সফর

‘যেটাকে ওরা কোয়ারেন্টাইন বলছে, আসলে সেটা আইসোলেশন। ওদের দেশে এটাই আইন। এই কঠিন শর্ত মেনে আমাদের পক্ষে সিরিজ খেলা সম্ভব নয়’ - নাজমুল হাসান পাপন , বিসিবি সভাপতি

প্রকাশ : ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০০:০০

ক্রীড়া প্রতিবেদক

শ্রীলঙ্কা ক্রিকেটের (এসএলসি) কঠিন শর্ত মেনে দেশটিতে সফর করতে মোটেও রাজি ছিল না বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। কোয়ারেন্টাইন নিয়ে বিসিবির আপত্তির দুই সপ্তাহ পর নতুন গাইডলাইন পাঠায় আয়োজক দেশের বোর্ড। সেখানেও বাংলাদেশ দলের খেলোয়াড়দের কোয়ারেন্টাইনের সময়সীমা না কমানোয় বোর্ডপ্রধান নাজমুল হাসান পাপনের পর পরশু ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেলও সাফ জানিয়ে দেন, ১৪ দিন হোটেল কক্ষে বন্দি থাকা সম্ভব নয়।

সব মিলিয়ে টাইগারদের লঙ্কা সফর অনিশ্চয়তার দোলাচলে ঘুরপাক খাচ্ছিল। অবশেষে কাল এলো আনুষ্ঠানিক ঘোষণা। স্থগিতই করা হলো আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের আওতাভুক্ত তিন ম্যাচের সিরিজ। কাল মিরপুর শেরেবাংলায় বিসিবি কার্যালয়ে লঙ্কা সফর নিয়ে দ্বিতীয়বারের মতো সংবাদ সম্মেলনে এই ঘোষণা দেন পাপন। ফলে মুমিনুল হক-মুশফিকুর রহিমদের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফেরার অপেক্ষা আরো দীর্ঘায়িত হলো।

পাপন জানিয়েছেন, সিরিজ স্থগিত হলেও চলবে জাতীয় দলের স্কিল ক্যাম্প। প্রাথমিক দলের ২৭ ক্রিকেটার নিজেদের মধ্যে খেলবে কয়েকটি প্রস্তুতি ম্যাচ। জাতীয়, হাই-পারফরম্যান্স ও অনূর্ধ্ব-১৯ দলের ক্রিকেটারদের নিয়ে ক্যাম্পের পরপরই হবে টি-২০ টুর্নামেন্ট।

বিসিবি বসের ভাষ্য, ‘আমি আগেই বলেছিলাম, ওরা যে গাইডলাইন দিয়েছে এই গাইডলাইন অনুযায়ী টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ খেলা সম্ভব নয়। তারপর ওদের ক্রিকেট বোর্ড, ক্রীড়া মন্ত্রণালয় অনেক চেষ্টা করেছে। আমাদের ন্যূনতম চাহিদাটা আমরা পাঠিয়েছিলাম। ওরা একটা ছাড়া বাকি সবগুলোতেই সম্মতি দিয়েছে। কিন্তু যে একটায় দিতে পারেনি, ওটাই আসল। সেটা হচ্ছে ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইন।’

তবে শুধু কোয়ারেন্টাইন নিয়েই বিসিবি বস উদ্বিগ্ন নন। উদ্বেগটা আসলে এর ধরন নিয়ে। এই ব্যাপারটা খোলাসা পাপন নিজেই করেছেন, ‘সাধারণত কোয়ারেন্টাইন ও আইসোলেশন দুটি আলাদা জিনিস হিসেবে আমরা ধরি। যদি হোম কোয়ারেন্টাইন ধরি, তাহলে বাসা থেকে বের হতে পারবে না। কিন্তু কোভিড পজিটিভদের ক্ষেত্রে আইসোলেশন যদি ধরি, তাহলে বাসা নয়; ঘর থেকেই সে বের হতে পারবে না। কিন্তু ওদের দেশে পুরোপুরি আইসোলেশন। যেটাকে ওরা কেয়ারেন্টাইন বলছে, অন্য জায়গায় এটার অনেক পার্থক্য। আসলে এটা পুরোদস্তুর আইসোলেশন। ওই আইসোলেশনে কোনোভাবেই ঘর থেকে বের হওয়া সম্ভব নয়। এ অবস্থায় ১৪ দিন আইসোলেশনে থাকা, থাকলে ফিটনেস তো পরে মানসিক যে দুরবস্থার সৃষ্টি হবে, ওটা থেকে স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে অনেক সময় লাগবে।’

পাপন যোগ করেন, ‘শ্রীলঙ্কা সরকার এই কঠিন নিয়ম যে শুধু আমাদের জন্য করেছে তা নয়। যত পর্যটক তাদের দেশে যাচ্ছে সবার জন্যই করেছে। ওদের বোর্ড এটা কমানোর অনেক চেষ্টা করেছে। কিন্তু ওদের দেশে এটাই আইন। ওদের কাছ থেকে গতকালই (পরশু) এই বার্তা পেয়েছি। আজকে (কাল) জানিয়ে দিয়েছি, এ মুহূর্তে সিরিজ খেলা সম্ভব নয়। যখন পরিস্থিতি ভালো হবে, যখন এ ধরনের পরিস্থিতি থাকবে না, তখন আমরা খেলব।’

 

 

"