জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি

  ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০২১

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় খোলার প্রস্তুতি চলছে

করোনা মহামারির কারণে দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার পর আবার শুরু হতে যাচ্ছে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের সব কার্যক্রম। তবে কবে নাগাদ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের জন্য খুলে দেওয়া হবে চূড়ান্ত না হলেও এরই মধ্যে প্রস্তুতি শুরু করেছে কর্তৃপক্ষ। স্বাস্থ্যবিধি মেনে সশরীরে শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনার জন্য আবাসিক হল, অ্যাকাডেমিক ভবনসহ বিশ্ববিদ্যালয় জুড়ে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার কাজ চলছে পুরোদমে।

শনিবার বিশ্ববিদ্যালয় ঘুরে দেখা যায়, দীর্ঘদিন বন্ধ থাকায় রাস্তার আশপাশসহ বিভিন্ন স্থানে জন্মানো আগাছা কেটে পরিষ্কার করা হয়েছে। এরই মধ্যে মেরামত করা হয়েছে বিভিন্ন অংশের সড়ক। বটতলা থেকে মওলানা ভাসানী হল পর্যন্ত সদ্য নির্মিত সড়কে পানি ঢালতে দেখা গেল একজন শ্রমিককে। বিভিন্ন সড়কের পাশে থাকা মরা গাছপালা কেটে ফেলা হয়েছে এরই মধ্যে। এছাড়া রিকশাসহ অন্যান্য যান চলাচল ছিল চোখে পড়ার মতো।

প্রস্তুতির বিষয়ে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের মওলানা ভাসানী হলের প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক মো. কামরুল হাসান বলেন, শিক্ষার্থীরা যেন দীর্ঘদিন পর হলে এসে উপযুক্ত পরিবেশ পায় সে প্রস্তুতি চলছে। এরই মধ্যে হল পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করার কাজ শুরু হয়েছে। হলের চারপাশ, ড্রেন পরিষ্কার করা হয়েছে। হাত ধোয়ার জন্য হলের সামনে বেসিন বসানো হয়েছে। এছাড়া হলের সব ফ্লোর ডিটারজেন্ট দিয়ে পরিষ্কার করা হবে।

শিক্ষার্থীদের সুরক্ষার বিষয়ে প্রাণিবিদ্যা বিভাগের এই অধ্যাপক বলেন, হলে ওঠার সময় প্রত্যেক শিক্ষার্থীকে কয়েকটি পুনঃব্যবহার যোগ্য মাস্ক দেওয়া হবে। এসব মাস্ক অন্তত ৬ মাস ব্যবহার করা যাবে। জীবাণুনাশক লিকুইড রাখা হবে হলের সামনে বসানো বেসিনে।

তিনি আরো বলেন, শিক্ষার্থীরা হলে ওঠার সঙ্গে সঙ্গেই হয়তো সশরীরে ক্লাস শুরু হবে না। যেহেতু তারা বাইরে থেকে আসবে এজন্য অনলাইলে দুই সপ্তাহ ক্লাস হতে পারে। তবে হল খোলাসহ এসব বিষয়ে ২৯ সেপ্টেম্বরের অ্যাকাডেমিক কাউন্সিলের মিটিংয়ে আলোচনার পর ২ অক্টোবরের সিন্ডিকেটের মিটিংয়ে চূড়ান্ত হবে।

এদিকে সরকারি নির্দেশনার অংশ হিসেবে বিশ্ববিদ্যালয়ের যেসব শিক্ষার্থী জাতীয় পরিচয়পত্র না থাকায় টিকা নিতে পারেননি তাদের জন্য জন্ম নিবন্ধন নম্বর দিয়ে রেজিস্ট্রেশনের জন্য বিজ্ঞপ্তি দিয়েছে কর্তৃপক্ষ। গত ১৯ সেপ্টেম্বরের মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের নির্ধারিত গুগল ফরমে রেজিস্ট্রেশন সম্পন্ন করার সময়সীমা থাকলেও শিক্ষার্থীদের কথা মাথায় রেখে তা উন্মুক্ত রাখা হয়েছে বলে বুধবার জানিয়েছিলেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার রহিমা কানিজ। শনিবার সকালেও ওই গুগল ফরম শিক্ষার্থীদের নিবন্ধনের জন্য উন্মুক্ত ছিল।

অন্যদিকে স্কুল-কলেজ খোলার তারিখ ঘোষণার পর থেকে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের অভ্যন্তরে বিভিন্ন যানবাহনের চলাচল বেড়েছে। এতদিন শুধুমাত্র বিশেষ ক্ষেত্রে অনুমতি নিয়ে ইসলামনগরসংলগ্ন গেট দিয়ে রিকশা নিয়ে প্রবেশ করা গেলেও এখন কোনো ধরনের বাধা ছাড়াই গেটটি ব্যবহার করে রিকশা নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রবেশ ও চলাচল করতে পারছেন শিক্ষার্থীসহ অন্যরা। এছাড়া সরকারি ছুটির দিনসহ অন্যান্য দিনে স্বাভাবিক সময়ের মতো চার চাকার বহিরাগত ব্যক্তিগত যানবাহনও প্রবেশ করছে উল্লেখযোগ্য সংখ্যায়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের জয় বাংলা গেটে দায়িত্বরত এক আনসার সদস্য জানান, শুক্রবার গেটটি দিয়ে অন্তত ২০টি বহিরাগত যানবাহন বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রবেশ করেছে। যদিও ফটকের নিরাপত্তারক্ষী আমিনুরের দাবি, প্রশাসন থেকে বাইরের লোকজন কিংবা গাড়ি প্রবেশের এখনো কোনো নির্দেশনা তাদের দেওয়া হয়নি। জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার রহিমা কানিজ বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ে এখন পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতাসহ যেসব সংস্কার কাজ চলছে তা বিশ্ববিদ্যালয় খোলার প্রস্তুতির অংশ। তবে কবে খুলতে পারে তা এই মুহূর্তে বলা যাবে না। অ্যাকাডেমিক কাউন্সিলে ও সিন্ডিকেটের মিটিংয়ে আলোচনা হবে। সেখানে টিকার তথ্য পর্যালোচনা করা হবে। সবমিলিয়ে একটা ডিসিশন হবে।

 

 

"

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close