নিজস্ব প্রতিবেদক

  ৩১ জুলাই, ২০২১

একজনের একাধিক টিকা গ্রহণ সামাজিক মাধ্যমে ভাইরাল

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে ওমর ফারুক নামে এক ব্যক্তি করোনার তিন ডোজ টিকা গ্রহণের পর কুষ্টিয়া বাশারুজ্জামান নামে আরেক ব্যক্তির দুই ডোজ টিকা গ্রহণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এরই মধ্যে এ ঘটনা দুটি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। তবে দুজনই চিকিৎসকের পর্যবেক্ষণে রয়েছেন বলে জানা গেছে।

জানা গেছে, সম্প্রতি সৌদি আরব যাওয়ার জন্য বিএসএমএমইউতে টিকা নিতে গিয়ে এক দিনে তিন ডোজ টিকা গ্রহণ করেন ওমর ফারুক। পরে বিষয়টি জানাজানি হলে ওমর ফারুককে হাসপাতাল থেকে টেলিফোন করে দ্রুত হাসপাতালে আসতে বলেন ডাক্তারা, কিন্তু ফারুক হাসপাতালে না এসে ফোন বন্ধ করে দেন। পরে র‌্যাব তাকে হাসপাতালে নিয়ে আসে। ফারুককে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালের মেডিসিন ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়েছে। তিনি ডাক্তারের পর্যবেক্ষণে আছেন।

হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ডা. নজরুল ইসলাম খান দাবি করেন, একজনকে কোনোভাবেই তিন ডোজ টিকা দেওয়া সম্ভব নয়। তবে বিষয়টি তদন্ত করে দেখতে তিন সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে।

ওমর ফারুকের স্বজন ও এক এলাকাবাসী জানান, কিছুদিন আগে সৌদি আরবের ভিসা পেয়েছেন ফারুক। অনলাইনে নিবন্ধন করে ২৬ জুলাই সকালে পিজি হাসপাতালে টিকা নিতে যান। সেখানে প্রথমে একটি বুথে ফাইজারের টিকার এক ডোজ দেওয়া হয়। ওমর ফারুক ওই বুথের স্বাস্থ্যকর্মীদের কাছে জানতে চান, এখন সে কী করবে? তখন তাকে পরের বুথে যেতে বলা হয়। পরের বুথে গেলে তাকে আবার টিকা দেওয়া হয়। দ্বিতীয় বুথ থেকে তাকে তৃতীয় বুথে পাঠানো হলে সেখানেও তাকে আবার টিকা দেওয়া হয়। ওমর ফারুকের বোন ফারজানা বলেন, টিকা নেওয়ায় পর ভাইয়ের শরীরে থেমে থেমে জ্বর আসছিল, শরীরে ব্যথা হয়েছিল। এ ছাড়া তেমন কোনো সমস্যা হয়নি। তাকে ডাবের পানি, দুধ ও ডিম খাওয়ানো হয়েছিল। তিন টিকা নেওয়ার বিষয়টি জানাজানি হলে তাকে পিজি হাসপাতালে যাওয়ার জন্য মুঠোফোনে অনেকবার ফোন করা হয়েছিল। কিন্তু তার ভাই ভয়ে হাসপাতালে যেতে চাননি। পরে ফোন বন্ধ করে রাখেন।

গতকাল শুক্রবার হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ডা. নজরুল ইসলাম খান বলেন, ওমর ফারুকের দাবি অনুযায়ী তিন ডোজ টিকা দেওয়ার সুযোগ নেই। তবু ঘটনার তদন্তে তিন সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়েছে। প্রতিবেদন পেলে সবটা জানা যাবে। তিনি আরো বলেন, ওমর ফারুক বর্তমানে সুস্থ আছেন। তাকে পর্যবেক্ষণে রেখে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

এদিকে, গত বৃহস্পতিবার কুষ্টিয়ার খোকসা উপজেলা স্বাস্থ্য কম?প্লে?ক্সে কোভিড-১৯ টিকা কেন্দ্রে বাশারুজ্জামান নামে এক ব্যক্তিকে একবার করোনা টিকা দেওয়ার তিন মিনিটের ব্যবধানে আবার টিকা দেওয়া হয়েছে বলে দাবি করেন বাশারুজ্জামান। তিনি বলেন, ‘আমি একবার টিকা নিয়ে এখানেই দাঁড়িয়ে ছিলাম। দু-তিন মিনিট পরে আবার আমাকে ডেকে টিকা দেওয়া হয়। তখন আমি নার্সকে প্রশ্ন করি, আপা একবারেই কি দুই ডোজ টিকা নিতে হয়? টিকা কয়বার নিতে হয় আমি জানি না। তখন নার্স বলেন, না একবার এক ডোজ। তখন আমি বললাম, তাহলে আমাকে দুবার টিকা দিলেন কেন? তখন তিনি বলেন, আপনি আগে টিকা নিয়েছেন বলেননি কেন? এটা আপনার ভুল।’

খোকসা উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. কামরুজ্জামান সোহেল এ বিষয়ে ব?লেন, ‘এর জন্য টিকা গ্রহণ করা ব্যক্তিই দায়ী। তিনি কেন বলেনি আগে টিকা নিয়েছেন। আমরা তার শারীরিক অবস্থার খোঁজখবর রাখছি। তবে দুবার টিকা দেওয়া হলেও কোনো সমস্যা হবে না।’

 

 

"

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close