প্রতিদিনের সংবাদ ডেস্ক

  ০২ মার্চ, ২০২১

দুর্গম এলাকায় হবে নতুন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান

ডিজিটাল কনটেন্টে হবে পাঠদান

দুর্গম এলাকায় নতুন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বানাবে সরকার। পড়ানো হবে ডিজিটাল কনটেন্টের মাধ্যমে। স্থানীয়ভাবে নিয়োগ দেওয়া হবে শিক্ষক। সবাইকে শিক্ষার আওতায় আনতে নেওয়া হচ্ছে এই উদ্যোগ। শিক্ষা মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, যেসব এলাকায় যাতায়াত সহজ নয়, বিশেষ করে পাহাড়ি, চরাঞ্চল ও হাওড় এলাকায় এসব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান স্থাপন করা হবে। যেখানে বিদ্যুৎ পৌঁছায়নি সেখানে সৌরবিদ্যুৎ কিংবা জেনারেটর দিয়ে চালানো হবে ডিজিটালব্যবস্থায় পাঠদান কার্যক্রম। এমনকি ব্যবহার করা হবে স্মার্ট টিভিও।

এ বিষয়ে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেন, ‘হার্ড টু রিচ এরিয়া, হাওড় ও চর এলাকার যেখানে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান নেই সেখানে কী করা যেতে পারে তা জানতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাদের চিঠি দেওয়া হয়েছে।’ মন্ত্রী বলেন, ‘অনেক দুর্গম জায়গায় শিক্ষক পাওয়া যায় না। তাই বলে ডিজিটাল বাংলাদেশে শিক্ষা কার্যক্রম বন্ধ থাকবে না। সেসব এলাকায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান করে স্থানীয়দের নিয়োগ দেব। প্রয়োজনে শিক্ষাগত যোগ্যতা শিথিল করা হবে। তবে যারা টেলিভিশন চালাতে পারে, অনলাইন টিভি ও সৌরবিদ্যুতের যন্ত্রপাতি চালাতে পারে তাদের নিয়োগ দেওয়া হবে। ইন্টারনেটে যদি বাসায় বসে পড়তে পারে তাহলে স্কুলের মধ্যেও স্মার্ট টিভি দিয়ে পড়াশোনা চালাতে পারব। স্মার্ট টিভিতে পেনড্রাইভ দিয়েও এটা করা যায়।’

------
দেশে এমপিওভুক্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ২৭ হাজার ৮১০টি। ২০১৯ সালের ২৩ অক্টোবর নতুন করে ২ হাজার ৭৩০টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের বিভিন্ন স্তর এমপিওভুক্ত করা হয়। ওই বছরের ১২ নভেম্বর ছয়টি এবং ১৪ নভেম্বর আরো একটি প্রতিষ্ঠানকে এমপিওভুক্ত করা হয়।

দেশে বর্তমানে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ৬৫ হাজার ৯৯টি। এর মধ্যে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের একযোগে জাতীয়করণ করা প্রাথমিক বিদ্যালয় ৩৭ হাজার ৬৭২টি। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তিন দফায় নতুন করে জাতীয়করণ করেছেন ২৬ হাজার ১৫৯টি প্রাথমিক বিদ্যালয়। এছাড়া প্রাইমারি ট্রেনিং ইনস্টিটিউট (পিটিআই) সংলগ্ন পরীক্ষণ বিদ্যালয় আছে ৬১টি। সূত্র : বাংলা ট্রিবিউন।

 

 

"

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close