reporterঅনলাইন ডেস্ক
  ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০২১

নবীনদের বরণ করল গ্রিন ইউনিভার্সিটির সাংবাদিকতা বিভাগ

বর্ণাঢ্য আয়োজনে গ্রিন ইউনিভার্সিটির ‘সাংবাদিকতা ও গণমাধ্যম যোগাযোগ’ বিভাগের ব্যাচের নবীনবরণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। গত ১৭ সেপ্টেম্বর বিকালে ভার্চুয়াল প্ল্যাটফরম জুম ও বিশ্ববিদ্যালয়ের শেওড়াপাড়াস্থ সিটি ক্যাম্পাসের সেমিনার হলে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। বিভাগীয় চেয়ারপারসন অধ্যাপক ড. শেখ শফিউল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. গোলাম সামদানী ফকির প্রধান অতিথি এবং প্রথম আলোর যুগ্ম সম্পাদক কবি সোহরাব হাসান ‘গেস্ট অব অনার’ হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আবদুর রাজ্জাক।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. গোলাম সামদানী ফকির বলেন, সাংবাদিকতা নিঃসন্দেহে চ্যালেঞ্জিং পেশা। তবে এর ভেতরেও সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জটি হলো নৈতিকতা রক্ষা করা। তিনি বলেন, সাংবাদিকতা ছোট ও সহজ বিষয় নয়। রাষ্ট্রের চতুর্থ স্তম্ভ হলো এই সাংবাদিকতা। সে হিসেবে সবচেয়ে শক্তিশালী, দায়িত্বশীল ও সম্মানজনক পেশা হিসেবে সাংবাদিকতায় পড়ুয়া শিক্ষার্থীদের শুধু অ্যাকাডেমিক জ্ঞান অর্জন করলে চলবে না; একই সঙ্গে তাকে নৈতিকবোধসম্পন্ন ও সমাজের প্রতিও দায়বদ্ধ হতে হবে। কবি সোহরাব হাসান বলেন, চ্যালেঞ্জ থাকলেও সাংবাদিকতার ক্ষেত্র আজ অনেক প্রসারিত। একটি ছোট্ট স্মার্ট ফোনও এখন সাংবাদিকতার বড় অনুষঙ্গ। তিনি বলেন, চ্যালেঞ্জ থাকবেই, তারপরও সাংবাদিকতার শিক্ষার্থীদের পথ দেখাতে হবে। তা না হলে আগামীর ভবিষ্যৎ আরো অন্ধকার হবে। তিনি আরো বলেন, তথ্য পরিবেশনের প্রক্রিয়া বছরের পর বছর অব্যাহত থাকবে। কিন্তু মানুষের সঙ্গে মানুষের যে যোগাযোগ, সেটি অব্যহত রাখা জরুরি। এখন শুধু লিখতে পারলেই সাংবাদিক হওয়া যায় না; আধুনিক প্রযুক্তির সঙ্গে নিজেকে সংযুক্ত করাও এখন সাংবাদিকদের বড় কাজ। সোহরাব হাসান বলেন, গ্রিন ইউনিভার্সিটির নামের মধ্যেই এক ধরনের সজীবতা আছে। তিনি আশা প্রকাশ করেন, এই বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংবাদিকতা বিভাগ অন্যান্য বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় তো বটেই, অনেক পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের চেয়েও ‘অনুকরণীয়’ হয়ে উঠবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আবদুর রাজ্জাক বলেন, দুঃখজনক হলেও সত্য যে, বর্তমানে অনেক ক্ষেত্রেই মনগড়া ও অসত্য তথ্য দিয়ে সংবাদ পরিবেশন করা হয়ে থাকে। কখনো কখনো চটকদার হেডলাইন দিয়ে অন্তঃসারশূন্য সংবাদও ছাপা হয়। গ্রিন ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থীরা এক্ষেত্রে দায়িত্বশীলতার সঙ্গে কাজ করে জাতিকে গৌরবজ্জ্বল ভবিষ্যৎ উপহার দেবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন। সভাপতির বক্তব্যে গল্পের মাধ্যমে সাংবাদিকতা নিয়ে আলোচনা করেন বিভাগীয় চেয়ারপারসন অধ্যাপক ড. শেখ শফিউল ইসলাম। সমাজ ও রাষ্ট্রকে সেবা দিতে শিক্ষার্থীদের সত্যিকারের জ্ঞানার্জনের ওপর গুরুত্বারোপ করেন তিনি। নবীনবরণ অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে আরো বক্তব্য রাখেন বিশ্ববিদ্যালয়ের কলা ও সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. গোলাম আহমেদ ফারুকী প্রমুখ। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন বিভাগের শিক্ষক জাকিয়া জাহান মুক্তা। এছাড়াও নবীন বরণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন জিইউবির বিভিন্ন বিভাগের চেয়ারম্যানরা। পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক প্রফেসর এস এম. কে নাজমুল হক, শাখা প্রধান এবং বিভিন্ন অনুষদের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা। পরে একই ভেন্যুতে একটি মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি।

 

 

"

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close