রাম জন্মভূমি প্রধানের করোনা মোদিকে নিয়ে চিন্তা

প্রকাশ : ১৪ আগস্ট ২০২০, ০০:০০

পার্থ মুখোপাধ্যায়, কলকাতা থেকে

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত অযোধ্যার রাম জন্মভূমি ট্রাস্টের প্রধান মহন্ত নিত্যগোপাল দাস। তার কোভিড ১৯ রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। গত সপ্তাহে রাম মন্দিরের শিলান্যাস অনুষ্ঠানের সময় তার সঙ্গে একই মঞ্চে ছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। গত ৫ আগস্ট অযোধ্যায় রাম মন্দিরের শিলান্যাস উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠান মঞ্চে যে পাঁচজন ছিলেন তাদের মধ্যেই একজন নিত্য গোপাল দাস। তিনি ও প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ছাড়া ওই মঞ্চে ছিলেন উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ, রাজ্যপাল আনন্দিবেন পটেল ও আরএসএস প্রধান মোহন ভাগবত। তবে এরপর প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, আদিত্যনাথরাও হোম আইসোলেশন বা নিভূতবাসে যাবেন কিনা তা স্পষ্ট নয়। মোহন্ত নৃত্যগোপাল দাস বর্তমানে মথুরায় রয়েছেন। তবে তার শারীরিক অবস্থা নিয়ে চিন্তার কিছু নেই বলেই জানিয়েছেন মথুরার জেলা শাসক। ওই অনুষ্ঠানের পর সম্প্রতি মথুরায় যান নৃত্যগোপাল দাস। সেখানে গিয়ে হালকা জ্বর অনুভব করেন তিনি। মথুরার জেলা শাসক সরবাগ্য রাম মিশ্র বলেন, আমরা জানতে পারি মহারাজের জ্বর হয়েছে। চিকিৎসকদের দল পাঠিয়ে তার স্বাস্থ্য পরীক্ষা করি এবং তারা ওষুধপত্র দেন। জ্বরটা তেমন কিছু নয়। তবে সামান্য শ্বাসকষ্ট থাকায় রক্তে অক্সিজেনের মাত্রা পরীক্ষা করা হয়। গুরুতর কিছু নয়। তবে অ্যান্টিজেন টেস্টের মাধ্যমে করোনা পরীক্ষা করিয়েছি। তাতে পজিটিভিটি এসেছে।

রাম মন্দিরের শিলান্যাস অনুষ্ঠানের দিনকয়েক আগেই মন্দিরের এক পুরোহিতের শরীরের ধরা পড়ে কোভিডের সংক্রমণ। ভূমিপুজোতে তার অংশ নেওয়ার কথা ছিল। পাশাপাশি ১৬ জন নিরাপত্তা কর্মীর করোনা রিপোর্টও পজিটিভ আসে। উল্লেখ্য, করোনার সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কার কথা তুলে ধরে রাম মন্দিরে জাঁকজমকপূর্ণ শিলান্যাস অনুষ্ঠানের আয়োজন নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিল বিরোধিরা। তৃণমূল কংগ্রেস তো বলেই দিয়েছিল, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি আগে করোনা সামলে পরে অযোধ্যায় ভূমিপুজো করতে পারতেন। যদিও মন্দির নির্মাণ কর্তৃপক্ষের দাবি ছিল করোনাভাইরাসের পরিস্থিতিতে যথাসম্ভব স্বাস্থ্যবিধি মেনে ঘণ্টা দুয়েকের অনুষ্ঠান হচ্ছে।

৫ আগস্ট মহাধুমধাম করে অযোধ্যায় সম্পন্ন হয় রাম মন্দিরের ভূমিপুজো। নেতৃত্বে ছিলেন স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। সেই ঘটনার পরপরই রাম ভক্তদের মধ্যে প্রশ্ন জেগেছিল, কবে শুরু হবে রাম মন্দিরের নির্মাণ, বুধবার সেই তথ্যও জানিয়ে দেয় রাম মন্দিরের জন্য গঠিত ট্রাস্ট। আর সেজন্য ভক্তদের কাছে আবেদনও জানানো হয়েছে ট্রাস্টের পক্ষ থেকে। বস্তুত রাম মন্দির নির্মাণে বড় অঙ্কের অর্থ খরচ হবে। তাই ট্রাস্টের পক্ষ থেকে ভক্তদের উদ্দেশে আবেদন করা হয়েছে। তাতে বলা হয়েছে, রাম মন্দিরের নির্মাণের জন্যে সবাই যেন সাধ্যমতো দান করেন। সেই জন্য টুইট করে দেওয়া হয়েছে অ্যাকাউন্ট নম্বরও। দেখতে কেমন হবে রাম মন্দির, কত খরচ হবে নির্মাণে, তা নিয়েও ভক্তদের মধ্যে উৎসাহের অন্ত নেই। প্রথমে আকারে ছোট করে হওয়ার কথা থাকলেও সুপ্রিম কোর্টের ‘ঐতিহাসিক’ রায়ের পরই রাম জন্মভূমি তীর্থক্ষেত্র ট্রাস্টের প্রধান জানিয়েছেন, উচ্চতায় রাম মন্দির হবে ১৬১ ফিট এবং তাতে পাঁচটি গম্বুজ থাকবে।

 

 

"