এবার নারায়ণগঞ্জে গৃহবধূকে গণধর্ষণ

প্রকাশ : ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ২১:০৫

অনলাইন ডেস্ক

এবার নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জের মিজমিজি এলাকায় এক গৃহবধূ (২৩) গণধর্ষণের শিকার হয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। স্বামীর সন্ধানে বের হয়ে গণধর্ষণের শিকার হন ওই নারী।

রোববার রাত সাড়ে ৮টার দিকে মহসিন (৩৫) ও রমজান (৩২) নামে দুই যুবক ওই গৃহবধূকে ধর্ষণ করেন। মহসিন ও রমজান গৃহবধূর স্বামীর বন্ধু।

সোমবার বিকেলে সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় এ ঘটনায় মামলা করেছেন গৃহবধূ। সিদ্ধিরগঞ্জ থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. কামরুল ফারুক মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

মামলার এজাহার থেকে জানা যায়, মুন্সিগঞ্জের সিরাজদিখান উপজেলা থেকে গৃহবধূর ছোট বোনকে পালিয়ে যান তার স্বামী। গৃহবধূ বিভিন্ন স্থানে স্বামী ও ছোট বোনকে খোঁজাখুঁজি করতে থাকেন।

রোববার রাত সাড়ে ৮টার দিকে সিদ্ধিরগঞ্জের মিজমিজির সাহেবপাড়ার নতুন মহল্লা এলাকায় স্বামী ও বোনকে খুঁজতে এলে স্বামীর বন্ধু মহসিনের সঙ্গে দেখা হয়।

এ সময় মহসিনের কাছে স্বামী ও বোনের খোঁজখবর জানতে চান গৃহবধূ। স্বামী ও বোনের খোঁজ দেয়ার কথা বলে গৃহবধূকে জসিমের নির্মাণাধীন চারতলা ভবনের নিচতলায় নিয়ে যান মহসিন।

সেখানে গৃহবধূর সন্তানকে পাশে রেখে গৃহবধূকে ধর্ষণ করেন মহসিন। এরপর মহসিনের বন্ধু রমজানও গৃহবধূকে ধর্ষণ করেন। তখন গৃহবধূ চিৎকার দিলে তারা পালিয়ে যান। এ ঘটনার পর গৃহবধূ অসুস্থ হয়ে পড়েন।

সিদ্ধিরগঞ্জ থানা পুলিশের ওসি মো. কামরুল ফারুক বলেন, গণধর্ষণের ঘটনায় মামলা হয়েছে। এ ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে। গণধর্ষণের শিকার গৃহবধূকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য হাসপাতালে পাঠানো হবে।

প্রসঙ্গত, গত শুক্রবার বিকেলে স্বামীর সঙ্গে এমসি কলেজে বেড়াতে গিয়েছিলেন এক গৃহবধূ। সন্ধ্যায় তাদের কলেজ থেকে ছাত্রাবাসে ধরে নিয়ে যায় ছাত্রলীগের ছয়-সাত নেতাকর্মী। এরপর দুইজনকে মারধর করা হয়। একই সঙ্গে স্বামীকে আটকে রেখে তার সামনে স্ত্রীকে গণধর্ষণ করে তারা। খবর পেয়ে রাতে ছাত্রাবাস থেকে ওই দম্পতিকে উদ্ধার করে পুলিশ। পরে ধর্ষণের শিকার নারীকে ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওসিসি সেন্টারে ভর্তি করা হয়। এই ঘটনার রেশ না কাটতেই এবার নারায়ণগঞ্জে গণধর্ষণের শিকার হলেন গৃহবধূ।