reporterঅনলাইন ডেস্ক
  ০৭ আগস্ট, ২০২২

পোশাক খাতের নিরাপত্তাজনিত সংস্কার নিয়ে সচেতনতামূলক অনুষ্ঠান

বাংলাদেশ ব্যাংক ফ্রেঞ্চ ডেভেলপমেন্ট এজেন্সি (এএফডি), ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ), কেএফডব্লিউ ডেভেলপমেন্ট ব্যাংকের সঙ্গে ৩ আগস্ট বাংলাদেশের তৈরি পোশাক খাতের নিরাপত্তাজনিত সংস্কার ও পরিবেশগত উন্নয়ন সহায়তা প্রকল্পের (SREUP) আওতায় একটি সচেতনতামূলক কর্মসূচির আয়োজন করে।

৫০ মিলিয়ন ইউরো ঋণ এবং ১০.২৯ মিলিয়ন ইউরো অনুদানের সমন্বয়ে SREUP প্রকল্পটি তৈরি পোশাক খাতের শ্রমিকদের নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণসহ সার্বিক নিরাপত্তাব্যবস্থার উন্নয়ন এবং সর্বোপরি এ খাতের শিল্পপ্রতিষ্ঠানগুলোকে পরিবেশবান্ধব করে তোলার লক্ষ্যে বাস্তবায়িত হচ্ছে। হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টাল, ঢাকায় অনুষ্ঠিত এ সচেতনতামূলক অনুষ্ঠানে প্রকল্পের উন্নয়ন সহযোগী সংস্থাসমূহ, অর্থ মন্ত্রণালয়, বাণিজ্যিক ব্যাংক, তৈরি কারখানার মালিক, বিজিএমইএ এবং আরএসসির প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

প্রকল্পের সব বিনিয়োগকারী ও স্টেকহোল্ডারদের SREUP প্রকল্প বিষয়ে অবগত করার উদ্দেশ্যে আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক মো. ওবায়দুল হক উদ্বোধনী বক্তব্য দেন। ইউরোপীয় ইউনিয়নের হেড অব কো-অপারেশন, মরিজিও চান, এএফডির কান্ট্রি ডিরেক্টর বুনোয়া চাসাত, অর্থ মন্ত্রণালয়ের যুগ্মসচিব কামরুল হক মারুফ এবং বাংলাদেশ ব্যাংকের পরিচালক (SREUP) ও প্রকল্প পরিচালক মনি শঙ্কর কুন্ডু উপস্থিত ছিলেন। ওই অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর আবু ফরাহ মো. নাছের। ডেপুটি গভর্নর SREUP প্রকল্পের স্বল্পসুদের হার এবং প্রণোদনা সুবিধা উল্লেখ করে এ ধরনের প্রকল্পের মাধ্যমে তৈরি পোশাক খাতের সম্ভাবনা আরো বেগবান ও টেকসই হবে মর্মে আশা প্রকাশ করেন।

যুগ্ম পরিচালক কুমকুম সুলতানা SREUP ক্রেডিট লাইন বিষয়ে একটি উপস্থাপনা প্রদান করেন। SREUP প্রকল্পের মাধ্যমে তৈরি পোশাকশিল্পকে আরো নিরাপদ তথা অগ্নি, বিদ্যুৎ ও কাঠামোগত সংস্কার সাধন, সবুজতর অর্থাৎ ইটিপি, বর্জ্য ব্যবস্থাপনা, বিদ্যুৎ ও পানিসম্পদের ব্যবহার হ্রাস এবং কর্মপরিবেশকে আরো স্বস্তিদায়ক এয়ার কন্ডিশনিং, ক্যানটিন ও শৌচাগার নির্মাণ, বাচ্চাদের ডে-কেয়ার নির্মাণ ইত্যাদি বিষয়ে আর্থিক ও কারিগরি সহায়তা দেওয়া হয়ে থাকে।

অনুুষ্ঠানে SREUP প্রকল্প ঋণের মাধ্যমে সফলভাবে বিনিয়োগ সমাপ্ত হওয়ায় দুটি কারখানাকে অনুদানের প্রতীকী চেক হস্তান্তর করা হয়। কারখানাগুলো হলো যথাক্রমে মার্কেন্টাইল ব্যাংকের গ্রাহক এমটি সোয়েটারস লিমিটেড এবং সাউথইস্ট ব্যাংক লিমিটেডের গ্রাহক স্নোটেক্স আউটারওয়্যার লিমিটেড। দুটি প্রতিষ্ঠানই ১০০% রপ্তানিমুখী কারখানা। SREUP প্রিফাইন্যান্সের মাধ্যমে তারা সফলভাবে প্রকল্পটি সম্পন্ন করার ফলে তাদের এ অনুদান দেওয়া হয়েছে।

অতিরিক্ত পরিচালক ও উপ-প্রকল্প পরিচালক নওশাদ মোস্তাফার সঞ্চালনায় ‘আরএমজি সেক্টরের জন্য উদ্ভাবনী এবং সবুজ অর্থায়নের সুযোগ : বিভিন্ন স্টেকহোল্ডারদের ভূমিকা’ শীর্ষক একটি প্যানেল আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়। এ বিষয়ে আলোচনা করেন বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক মো. ওবায়দুল হক, আইপিডিসি ফাইন্যান্স লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মমিনুল ইসলাম, সাউথইস্ট ব্যাংকের এসইভিপি এবং হেড অব সিআরএম মো. মাসুম উদ্দিন খান, বিজিএমইএর প্রতিনিধি মাজহারুল হাসান জুয়েল, আরএসসির ব্যবস্থাপনা পরিচালক ইকবাল এম হোসেন এবং মাসকো গ্রুপের নির্বাহী পরিচালক এটিএম মাহবুবুল আলম চৌধুরী। প্যানেলে তৈরি পোশাক খাতে সবুজ অর্থায়নের উদ্ভাবন ও কার্যকারিতা নিয়ে আলোচনা করা হয়। এ ছাড়া দর্শকদের কাছ থেকে বর্তমান পরিপ্রেক্ষিতে আরএমজি সেক্টরের অর্থায়নের চ্যালেঞ্জ এবং এগুলোর সম্ভাব্য সমাধান, ছোট ছোট তৈরি পোশাক প্রতিষ্ঠানসমূহকে অর্থায়নের আওতায় আনার বিষয়ে স্বতঃস্ফূর্ত আলোচনা হয়। প্যানেলে অংশগ্রহণকারীগণ আশা প্রকাশ করেন, আরএমজি খাতে টেকসই অর্থায়নের উদ্ভাবন একটি গেম চেঞ্জার হতে পারে, যা বিশ্ববাজারে বাংলাদেশের আরএমজি সেক্টরের সক্ষমতা আরো শক্তিশালী করবে। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি।

"

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close