reporterঅনলাইন ডেস্ক
  ২৬ নভেম্বর, ২০২১

রাজনীতিকদের শ্রদ্ধাবোধের সংস্কৃতি গড়তে হবে

বাক্যটির মধ্যে নান্দকিতা আছে। আছে সভ্যতার নিদর্শন। কিন্তু চর্চা নেই। দেশের বাস্তবতা সে কথাই বলে। আমাদের রাষ্ট্রপতি নিতান্তই ভদ্রজন। দীর্ঘদিন ধরে রাজনীতিতে আছেন। ভদ্রজনের খ্যাতিও কম নয়। তিনি রাজনৈতিক নেতাদের পরমতসহিষ্ণু হতে বলেছেন। বলেছেন শ্রদ্ধাবোধের সংস্কৃতি গড়ে তুলতে। জাতির পিতার স্বপ্নের বাংলাদেশ গড়ে তুলতে চেয়েছেন ধর্ম-বর্ণ-গোত্র নির্বিশেষে সবার ঐক্য। ঐক্য হতে হবে সাম্প্রদায়িকতা, অগণতান্ত্রিকতা ও সহিংসতার বিরুদ্ধে।

তার এই বক্তব্যের সঙ্গে দ্বিমত করার কারো সুযোগ নেই। তার এই বক্তব্য আমাদেরও মনের মধ্যে ঘুমিয়ে আছে। অনেক যত্নে এ রকম চিন্তা আমাদের মনের মাঝে ধারণ করি। কিন্তু বাস্তব চিত্র যখন এর বিপরীত হয়, আমাদের চিন্তায় তখন ক্ষণিকের জন্য হলেও রক্তক্ষরণ হয়। ৩০ লাখ শহীদের কথা মনে পড়ে। মনে হয় তাদের প্রতি যথাযথ সম্মান প্রদর্শনে আমরা ব্যর্থ হচ্ছি। যা রাষ্ট্রপতির মতো আমাদের কারো কাম্য নয়। তাই তিনি তার বক্তব্যে বলেছেন, স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে আমরা দল-মত-পথের পার্থক্য ভুলে ধর্ম-বর্ণ-গোত্র নির্বিশেষে জাতির গণতান্ত্রিক অভিযাত্রা ও দেশের আর্থসামাজিক উন্নয়ন ত্বরান্বিত করার মধ্য দিয়ে লাখো শহীদের রক্তের ঋণ পরিশোধ করি। আমরাও তার এই আহ্বানের সঙ্গে একাত্মতা ঘোষণা করে বলতে চাই, এর কোনো বিকল্প নেই যদি শহীদদের আত্মত্যাগের ঋণ আমরা শোধ করার ইচ্ছা পোষণ করি।

জাতীয় সংসদের অধিবেশনে গত বুধবার স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে ভাষণদানকালে রাষ্ট্রপতি বলেন, জলবায়ু পরিবর্তন রোধে জলবায়ু দুর্বলতাসমূহকে, জলবায়ু সমৃদ্ধিতে রূপান্তর ঘটাতে ‘মুজিব ক্লাইমেট প্রসপারিটি প্ল্যান’-এর কথা উল্লেখ করেন। করোনা অতিমারির কথা বলতে গিয়ে তিনি বলেন, কোভিড-১৯ মহামারি আমাদের উন্নয়ন ও অগ্রগতির ধারাকে সাময়িকভাবে বাধাগ্রস্ত করলেও থামিয়ে দিতে পারেনি। সরকারের সময়োচিত ও দূরদর্শী পদক্ষেপের কারণে অনেক উন্নত দেশের চেয়ে বাংলাদেশে করোনা সংক্রমণ ও মৃত্যুর হার অপেক্ষাকৃত কম; যা বিশ্বব্যাপী যথেষ্ট প্রশংসা কুড়িয়েছে।

আমরাও মনে করি, তুলনামূলক বিচারে করোনা মোকাবিলায় আমরা সফল। ক্ষেত্রবিশেষ অনেকের চেয়ে ভালো। এখানে সরকারের নেওয়া পদক্ষেপের প্রশংসা করতেই হয়। একই সঙ্গে প্রশংসার দাবি রাখে এ মাটির সাধারণ মানুষ। প্রকৃতির অবদানও কম নয়। অনেকের মতে, ফার্মের মোরগ-মুরগির চেয়ে দেশি মোরগ-মুরগির অ্যামিউনিটি ও রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা অনেক বেশি। তাই সহজে এরা রোগে আক্রান্ত হয় না। আমাদের দেশের খেটে খাওয়া মানুষের ক্ষেত্রেও বিষয়টি প্রযোজ্য।

রাষ্ট্রপতি বলেন, জাতি হিসেবে আমরা এক ঐতিহাসিক মুহূর্ত পার করছি। বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীর সোপান বেয়ে আমরা পৌঁছে গিয়েছি স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীর স্বর্ণতোরণে। সম্পূর্ণ নিজস্ব অর্থায়নে নির্মিত হচ্ছে পদ্মা সেতুর মতো মেগা প্রকল্প। এটি শেষ হওয়ার পথে। এ সেতুর বাস্তবায়ন জাতি হিসেবে আমাদের স্বকীয়তা, সক্ষমতা, স্বচ্ছতা, দক্ষতা এবং আত্মবিশ্বাসের প্রতীকস্বরূপ মাথা উঁচু করে দাঁড়ানোর সাহস জুগিয়েছে। লোডশেডিংয়ের সমস্যা এখন আর নেই। বিদ্যুৎ পৌঁছে গেছে প্রায় প্রতিটি ঘরের দরজায়। এমজিডির সাফল্যের ধারাবাহিকতায় এসডিজির বিভিন্ন সূচকে অনন্য অগ্রগতির স্বীকৃতিস্বরূপ সম্প্রতি বাংলাদেশ এসডিজি প্রোগ্রেস অ্যাওয়ার্ডে ভূষিত হয়েছে।

আমরা মনে করি, যেকোনো পুরস্কার অর্জন আমাদের গর্ব। উৎপাদনে আমরা এখনো আন্তর্জাতিক কোনো পুরস্কার পাইনি, এ কথা সত্য। তবে এখানেও আমাদের অর্জনকে খাটো করে দেখার কোনো সুযোগ নেই। বিশ্বে আমরা যথেষ্ট সুনাম কুড়িয়েছি। যার সবটুকুই কৃষককুলের অর্জন। কৃষককুলের শ্রম, মেধা ও আন্তরিকতার ঐক্যের ফসলই হচ্ছে আমাদের অর্জন। আর দেশের সার্বিক উন্নয়ন নিশ্চিত করার জন্য চাই ঐক্য। ধর্ম-বর্ণ-গোত্র নির্বিশেষে সবার ঐক্য। এখানে ঐক্যের কোনো বিকল্প নেই।

"

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close