ব্রেকিং নিউজ

ইউরোপে এক দিনেই শনাক্ত ২ লাখের বেশি

প্রকাশ : ২৪ অক্টোবর ২০২০, ০০:০০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

সংক্রমণের ঊর্ধ্বগতিতে হিমশিম খাওয়া ইউরোপে এক দিনেই দুই লাখের বেশি কোভিড-১৯ রোগী শনাক্ত হয়েছে। ১০ দিনের ব্যবধানে মহাদেশটিতে দৈনিক শনাক্ত রোগীর সংখ্যাও দ্বিগুণ হয়েছে বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স। ইউরোপে গত ১২ অক্টোবর প্রথমবারের মতো এক দিনে শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ১ লাখ অতিক্রম করেছিল। বৃহস্পতিবার তার দ্বিগুণ হলো। মহাদেশটিতে এখন এক দিনে যত রোগী শনাক্ত হচ্ছে তা ভারত, ব্রাজিল ও যুক্তরাষ্ট্রে এক দিনে শনাক্ত রোগীর যোগফলের চেয়েও বেশি। সংক্রমণের প্রথম ঢেউয়ের তুলনায় এবার শনাক্তকরণ পরীক্ষার সংখ্যা বেশি হওয়ায় রোগী বেশি মিলছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। বৃহস্পতিবার ইতালি, অস্ট্রিয়া, ক্রোয়েশিয়া, সেøাভেনিয়া ও বসনিয়ার মতো ইউরোপের মধ্য দক্ষিণ ও দক্ষিণাঞ্চলের অনেক দেশেই এক দিনে সর্বোচ্চ রোগী শনাক্ত হয়েছে।

রয়টার্সের হিসাব অনুযায়ী, বৃহস্পতিবার পর্যন্ত বিশ্বে যত কোভিড-১৯ রোগী শনাক্ত হয়েছে, তার ১৯ শতাংশই ইউরোপের। নতুন করোনাভাইরাসে বিশ্বজুড়ে মৃত্যুর ২২ শতাংশেরও সাক্ষী হয়েছে এই মহাদেশ। ইউরোপের পশ্চিমাঞ্চলীয় দেশ ফ্রান্সে বৃহস্পতিবার রেকর্ড ৪১ হাজার ৬২২ জনের দেহে প্রাণঘাতী ভাইরাসের উপস্থিতি মিলেছে। সংক্রমণের হার কমাতে দেশটির প্রধানমন্ত্রী জিয়ান ক্যাস্টেক্স নতুন করে আরো এলাকায় কারফিউ জারি করেছেন। নেদারল্যান্ডসে ২৪ ঘণ্টার ব্যবধানে রেকর্ড ৯ হাজারের বেশি কোভিড-১৯ রোগী শনাক্ত হয়েছে বলে জানিয়েছে দেশটির ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট ফর পাবলিক হেলথ (আরআইভিএম)। জার্মানিতেও বৃহস্পতিবার প্রথমবারের মতো এক দিনে ১০ হাজারের বেশি মানুষের দেহে ভাইরাসের উপস্থিতি শনাক্ত হয়েছে। দেশটি এরই মধ্যে বাসিন্দাদের সুইজারল্যান্ড, আয়ারল্যান্ড, পোল্যান্ড, অস্ট্রিয়ার বেশির ভাগ এলাকা ও রোমসহ ইতালির কিছু অংশে ভ্রমণের ওপর নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে।

উৎপত্তিস্থল চীনে আক্রান্তের সংখ্যা ৮৫ হাজার ৭১৫। এর মধ্যে ৪ হাজার ৬৩৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। যদিও দেশটির বিরুদ্ধে প্রকৃত পরিস্থিতি গোপন করার অভিযোগ রয়েছে। উহানের একজন স্বেচ্ছাসেবী বলেন, ‘বুদ্ধি-বিবেচনাসম্পন্ন যেকোনো মানুষ এই সংখ্যা (সরকারি পরিসংখ্যান) নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করবেন।’

মহামারির শুরু থেকেই যুক্তরাষ্ট্র দাবি করে আসছিল, করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার পেছনে চীনের ভূমিকা রয়েছে। ট্রাম্প প্রশাসনের সেই দাবিকে আরো জোরালো করে চীনের উহানের ল্যাবের এক ভাইরোলজিস্ট লি মেং ইয়ানের বক্তব্য। লি মেং ইয়ান বলেন, চীনের ল্যাবেই তৈরি করা হয়েছে করোনাভাইরাস। এটি মানুষের তৈরি বলে তার কাছে শতভাগ প্রমাণ রয়েছে। হংকংয়ে জন্ম নেওয়া ভাইরোলজিস্ট লি মেং ইয়ান পালিয়ে আশ্রয় নিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রে। বছরের শুরুতে তাকে চীন হত্যা করতে চেয়েছিল বলে ভয়ে যুক্তরাষ্ট্রে পালিয়ে যান তিনি।

 

"