গাজীপুর প্রতিনিধি

  ২৬ নভেম্বর, ২০২১

গাজীপুরে মা-মেয়েকে গলা কেটে হত্যা

গাজীপুর সিটি করপোরেশনের দেশীপাড়া এলাকায় মা-মেয়েকে গলা কেটে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। নিহতরা হলো ফেরদৌসী বেগম (২৫) ও তার মেয়ে তাসমিয়া আক্তার (৪)। গত বুধবার রাতে তাদের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

নিহত ফেরদৌসী বেগম গাজীপুরের কালীগঞ্জ উপজেলার বড়াইয়া গ্রামের বাছির উদ্দিন বছুর মেয়ে। তিনি একটি ইন্স্যুরেন্স কোম্পানির মাঠকর্মী হিসেবে কাজ করতেন। তিন মাস ধরে তিনি দুই মেয়ে নিয়ে সিটি করপোরেশনের হাড়িনাল এলাকায় জনৈক সেকান্দরের বাড়িতে ভাড়া থাকতেন। বড় মেয়ে হাফসা (১১) স্থানীয় একটি বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণির ছাত্রী।

গাজীপুর মেট্রো সদর থানার অফিসার ইনচার্জ পুলিশ রফিকুল ইসলাম ও স্থানীয়রা জানান, বুধবার রাতে দেশীপাড়া একটি সড়কের পাশে এক নারীর ও এক শিশুর গলাকাটা লাশ পড়ে থাকতে দেখে স্থানীয়রা থানায় খবর দেন। পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে রাত ১১টার দিকে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠায়। নিহতদের গলা ধারালো অস্ত্র দিয়ে কাটা ছিল। নিহত ফেরদৌসীর আঙুলের ছাপ নিয়ে আধুনিক তথ্যপ্রযুক্তির মাধ্যমে পরিচয় পেয়ে স্বজনদের খবর দেওয়া হয়। গতকাল সকালে স্বজনরা মর্গে লাশ শনাক্ত করেন।

নিহতের পরিবার ও স্থানীয়রা সূত্রে জানা গেছে, নিহত ফেরদৌসী বেগমের দুটি বিয়ে হয়েছিল। প্রথম স্বামীর নাম জয়নাল আবেদীন। তার বাড়ি ঢাকায়। মেয়ে দুটি জয়নাল-ফেরদৌসী ঘরের। প্রায় তিন বছর আগে ফেরদৌসী গাজীপুর সদর উপজেলার খুদে বরমী এলাকার রবিউল ইসলামকে দ্বিতীয় বিয়ে করেন।

নিহতের বড় মেয়ে হাফসা আক্তার জানায়, এক ব্যক্তির কাছ থেকে ইন্স্যুরেন্সের কিস্তির টাকা আনার কথা বলে বুধবার সন্ধ্যা ৭টা দিকে তাসমিয়া আক্তারকে সঙ্গে নিয়ে তাদের মা ফেরদৌসী আক্তার ভাড়া বাসা থেকে বের হন। এরপর রাতে তার মোবাইলে রিং করলেও তা রিসিভ করেননি। একপর্যায়ে মোবাইল ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়।

গাজীপুর মহানগর পুলিশের উপপুলিশ কমিশনার (অপরাধ-উত্তর) মো. জাকির হাসান জানান, লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় জড়িতদের গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে। এ ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন।

"

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close