আল-আমিন মিয়া, পলাশ (নরসিংদী)

  ১৮ জুন, ২০২১

পলাশে ইউপি নির্বাচন : শেষ মুহুর্তেও মাঠে প্রার্থীরা

চলমান করোনা সংকটের মধ্যে আগামী ২১ জুন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে নরসিংদীর পলাশ উপজেলার গজারিয়া ও ডাঙ্গা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন। এই নির্বাচনকে ঘিরে শেষ মুহুর্তে প্রচার প্রচারণায় ব্যস্ত সময় পার করছে চেয়ারম্যান, সাধারণ সদস্য ও সংরক্ষিত নারী সদস্য প্রার্থীরা। সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত ঘুরছেন ভোটারদের দ্বারে দ্বারে। দিচ্ছেন বিভিন্ন প্রতুশ্রুতি।

সারাদেশে প্রথম ধাপে ৩৭১টি ইউনিয়ন পরিষদের  নির্বাচন গেল ১১ এপ্রিল তারিখ নির্ধারন করে নির্বাচন কমিশনার। কিন্তু করোনা পরিস্থিতির কারণে সেই নির্বাচন দীর্ঘ দিন স্থগিত থাকার পর তা পরিবর্তন করে ২১ জুন নির্দারন করা হয়।

এর মধ্যে দেশের কয়েকটি জেলায় করোনা সংক্রমণের মাত্রা বেড়ে যাওয়ায় ৩৭১টি ইউনিয়নের মধ্যে ১৬৩ ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন আবারো স্থগিত করা হয়। তবে বাকি ২০৮টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন স্থগিতের কোন সিদ্ধান্ত না হওয়ায় আসছে ২১ জুন এসব ইউনিয়ন পরিষদে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে।

পলাশ উপজেলার গজারিয়া ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে ৪ জন প্রতিদ্ধন্ধীতা করছেন। তারা হলেন, গজারিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও বর্তমান চেয়ারম্যান বদরুজ্জামান ভূইয়া (নৌকা প্রতীক), স্বতন্ত্র প্রার্থী জাকির হোসেন চৌধুরী (চশমা প্রতীক), স্বতন্ত্র প্রার্থী নাসির আহাম্মেদ (আনারস প্রতীক) এবং ইসলামী শাসনতন্ত্র আন্দোলন থেকে আলমগীর হোসেন (হাতপাখা প্রতীক) নিয়ে নির্বাচন করছেন।

এছাড়া ৯টি ওয়ার্ডে ৩৭ জন সাধারণ সদস্য ও ১১ জন নারী সদস্য নির্বাচন করছেন।

অপরদিকে ডাঙ্গা ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে ৩ জন প্রার্থী প্রতিদ্বদ্ধীতা করছেন। তারা হলেন, ডাঙ্গা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও বর্তমান চেয়ারম্যান সাবের উল হাই (নৌকা প্রতীক),স্বতন্ত্র কামাল আহমেদ (চশমা প্রতীক) ও ইসলামী শাসনতন্ত্র আন্দোলন থেকে (হাতপাখা প্রতীক) নিয়ে কাউছার মাহমুদ নির্বাচন করছেন।

এছাড়া ৯ টি ওয়ার্ডে ৩৪ জন সাধারণ সদস্য ও ১১ নারী সদস্য প্রতিদ্বন্ধীতা করছেন।

দুটি ইউনিয়নের গ্রামে-গঞ্জে, হাটে-ঘাটে, চা ষ্টলেও চলছে নির্বাচনী আলাপ-আলোচনা। চেয়ারম্যান প্রার্থীদের সাথে পাল্লা দিয়ে সাধারণ সদস্য ও সংরক্ষিত নারী সদস্যরাও রাত দিন ভোটারদের বাড়ি বাড়ি ঘুরছেন আর ভোট প্রার্থনা করছেন।

ইতোমধ্যে ডাঙ্গা ও গজারিয়া ইউনিয়নের প্রতিটি গ্রামের অলিগলিতে ব্যানার, পোষ্টার ও লিফলেট এর ছড়াছড়ি। রাত দিন চলছে চেয়ারম্যান ও সদস্য প্রার্থীদের উঠান বৈঠক ও ব্যাপক গণসংযোগ। এবারের নির্বাচনে বিএনপি অশংগ্রহণ না করায় ভোটের লড়াই হবে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী (স্বতন্ত্র) প্রার্থীদের মধ্যে।

এর মধ্যে স্বতন্ত্র প্রার্থীরা ক্ষমতাশীল দলের প্রার্থীদের বিরুদ্ধে তাদের প্রচার কাজে বাধার অভিযোগ তুলছেন। গজারিয়া ইউপি নির্বাচনে আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থী (চশমা প্রতীক) জাকির হোসেন চৌধুরী অভিযোগ করে বলেন, নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণা করতে গিয়ে প্রতিনিয়ত ওনার সমর্থক-কর্মীরা আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থী ও বর্তমান চেয়ারম্যান বদরুজ্জামান ভূইয়ার কর্মী-সমর্থকদের দ্বারা বাধা ও হামলার শিকার হচ্ছেন।

ভোটাররা ভোট অধিকার প্রয়োগ করতে পারলে ও যদি সুষ্ঠু এবং গ্রহণযোগ্য নির্বাচন হয়,তবে বিপুল ভোটের ব্যবধানে বিজয়ী হওয়ার আশা ব্যক্ত করেন এই প্রার্থী।

এদিকে অভিযোগ অস্বীকার করে আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থী (নৌকা প্রতীক) ও বর্তমান চেয়ারম্যান বদরুজ্জামান ভূইয়া বলেন, স্বতন্ত্র প্রার্থী জাকির হোসেন চৌধুরীর কোনো সমর্থক-কর্মীদেরকে প্রচার-প্রচারণায় আমার সমর্থক-কর্মীরা বাধা দেয়নি। এসব মিথ্যা ও ভিত্তিহীন অভিযোগ। জনবিচ্ছিন্ন প্রার্থীরা আমাকে পরাজিত করতে  পারবে না বলে শতভাগ জয়ের আশা ব্যক্ত করেন বদরুজ্জামান ভূইয়া। 

পলাশ উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও রিটার্নিং অফিসার জোবাইদা খাতুন বলেন, নির্বাচনকে সুষ্ট ও শান্তিপুর্ন করতে সব রকম ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। ডাঙ্গায় ১৭টি ও গজারিয়ায় ৯ টি কেন্দ্রে মোট ৫৪ হাজার ৯৫৩ জন ভোটার ব্যলটের মাধ্যমে ভোট প্রদান করবেন।

পিডিএসও/এসএম শামীম

 

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
পলাশ,ইউপি নির্বাচন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close