বশির আহম্মেদ মোল্লা, নরসিংদী

  ০২ এপ্রিল, ২০২১

স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী : স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উন্নয়নশীল বাংলাদেশ

নরসিংদী পানি উন্নয়ন বোর্ডের সফলতা

নরসিংদীতে স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী : স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উন্নয়নশীল বাংলাদেশ উদযাপন উপলক্ষে দুই দিনব্যাপী উন্নয়ন মেলায় নরসিংদী জেলা প্রশাসক অফিস, জেলা পরিষদ, এলজিইডি, সড়ক ও জনপদ বিভাগ, পুলিশ সুপার, সিভিল সার্জন,পানি উন্নয়ন র্বোড, জনস্বাস্থ্য প্রকৌশলী অধিদপ্তর, গণপূর্ত বিভাগ, শিক্ষা বিভাগ, প্রাণী সম্পদ বিভাগ, কৃষি বিভাগ, মৎস্য বিভাগ, বিএডিসি, বিআরডিবি, তথ্য অফিস, খাদ্য নিয়ন্ত্রক অধিদপ্তর, মাদক নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরসহ ১শ প্রতিষ্ঠান ষ্টল নিয়ে মেলায় অংশগ্রহণ করে। 

এর মধ্যে নরসিংদী পানি উন্নয়ন বোর্ড নির্বাহী প্রকৌশলী বিজয় ইন্দ্র শংকর চক্রবর্ত্তি উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ড করে অন্যরমক দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন।

প্রকৌশলী বিজয় ইন্দ্র শংকর চক্রবর্ত্তি বলেন, নরসিংদী জেলার অন্তরভূর্ক্ত আড়িয়াল খাঁ নদী, হাড়িধোয়া নদী, ব্রক্ষপুত্র নদ, পাহাড়িয়া নদী, মেঘনা নদী শাখা ও পুরাতন ব্রক্ষপুত্র শাখা নদ পুনঃখন মেঘা প্রকল্প সাবেক পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম বীর প্রতীক, এমপির সার্বিক প্রচেষ্টায় গত ২ আগস্ট ২০১৭ তারিখ প্রকল্পটি অনুমোদিত হয়।

পরবর্তীতে ১২ ডিসেম্বর ২০১৭ প্রকল্পটি বাস্তবায়নের জন্য বাংলাদেশ সেনাবাহিনি আওতাধীন ২৪টি ইঞ্জিনিয়ার কনস্ট্রাকশন ব্রিগেডকে দায়িত্ব প্রদান করা হয়। এরই ধারাবাহিকতায় গত ২৮ এপ্রিল ২০১৮ পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী কর্তৃক প্রকল্প কাজের শুভ সূচনা করা হয়।

২৪ ইঞ্জিনিয়ার কনস্ট্রাকশনবিগ্রেড এর কর্মপরিকল্পনায় অনুযায়ী ১০ পি প্যাকেজ বিভাজন করে প্রকল্পের কাজ চলমান রয়েছে। চলিত বর্ষা মৌসুমে প্রকল্পের অধিকাংশ ড্রেজিং কাজ সমপন্ন করার পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে।

বর্তমানে মেঘনা মেঘনা শাখা নদী, ব্রক্ষপুত্র নদ, পুরাতন ব্রক্ষপুত্র নদ, পাহাড়িয়া নদী ও আড়িয়ালখাঁ নদী ড্রেজিং এর কাজ দ্রুত গতিতে এগিয়েছে চলেছে। তাছাড়া হাড়িধোয়া নদীতে পুনঃখনন কাজ ও প্রতিরক্ষা কাজের জন্য ব্লক তৈরির কাজ চলছে।

বিশেষভাবে উল্লেখ্য যে, প্রকল্পের ভাঙন প্রবন এলাকা নরসিংদী সদরের করিমপুর ইউনিয়নের শুটকান্দিতে ৯১৮২৮টি এবং আলোকবালি ইউনিয়নে ১৩১৮৩১টি ভাঙ্গন রোধকল্পে ভাঙন যথাক্রমে জিওব্যাগ ডাম্পিং করা হয়েছে।

জেলা প্রশাসক সৈয়দা ফারহানা কাউনাইন এবং জনপ্রতিনিধিদের সহযোগিতায় উদ্ভুত সকল সম্যাসার সমাধান করে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ২৪ ইঞ্জিনিয়ার কনস্টাকশন বিগ্রেড কর্তৃক প্রকল্পটি দ্রুত গতিতে সমাপ্ত করার লক্ষ্যে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। প্রকল্পটির মোট প্রাক্কলিত ব্যয় ৯০৩.৪১৭৬ টাকা। প্রকল্পটি শেষ হবে ৩০ জুন ২০২২। 

তিনি আরো বলেন, আগামী দিনে শেখ হাসিনার নির্দেশে ব্যাপক উন্নয়ন মুলক কাজ করে উন্নয়নের ধারা অব্যহত রাখবে শতভাগ ধারনা করা যাচ্ছে। 

পিডিএসও/এসএম শামীম

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close