ক্রীড়া প্রতিবেদক

  ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০২১

দুবাই গেলেন সাকিব অপেক্ষায় মুস্তাফিজ

আইপিএলের বাকি অংশে কলকাতার হয়ে সাকিব, রাজস্থানের হয়ে খেলবেন মুস্তাফিজ

কলকাতা নাইট রাইডার্সের হয়ে আইপিএলের বাকি অংশ খেলতে দুবাই গেছেন সাকিব আল হাসান। রাজস্থান রয়েলসের হয়ে আইপিএল খেলতে যাওয়ার কথা মুস্তাফিজুর রহমানেরও। তবে ভিসা জটিলতায় তার যাত্রা একটু বিলম্ব হচ্ছে।

পরশু বাংলাদেশ সময় রাত ৩টায় দুবাইয়ের ফ্লাইট ধরেন সাকিব। সেখানে পৌঁছে ছয় দিনের কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে বাংলাদেশের তারকাকে।

সাকিবের সঙ্গেই আইপিএল খেলতে দুবাই যাওয়ার কথা ছিল মুস্তাফিজের। তবে ভিসা হাতে পাননি তিনি। ভিসা পাওয়া মাত্র এই পেসার রওনা হবেন।

আইপিএলের এই আসর শুরু হয়েছিল গত এপ্রিলে। কিন্তু ভারতে করোনাভাইরাস সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় ৪ মে স্থগিত করে দেওয়া হয় তা। কয়েক মাস পিছিয়ে বিকল্প ভেন্যু ঠিক করা হয় সংযুক্ত আরব আমিরাত।

মধ্যপ্রাচ্যের এই দেশের তিন ভেন্যু দুবাই, আবুধাবি ও শারজাহতে ১৯ সেপ্টেম্বর থেকে চলবে আইপিএলের অসমাপ্ত অংশ। আইপিএলের পর এই ভেন্যুগুলোতেই হবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ম্যাচ।

২০ সেপ্টেম্বর আবুধাবিতে রয়েল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুর মুখোমুখি হবে কলকাতা নাইট রাইডার্স। সেই ম্যাচের আগেই কোয়ারেন্টাইন শেষ হয়ে যাবে সাকিবের।

তবে স্থগিত হওয়ার আগে সাকিবের পারফরম্যান্স ছিল বিবর্ণ। তিন ম্যাচে একাদশে সুযোগ পেয়ে করেন ৩৮ রান, খরুচে বল করে নেন কেবল ২ উইকেট। এরপর আর একাদশে জায়গা মেলেনি তার। এবার জায়গা পাবেন কি না তা নিয়েও সংশয় থাকছে। ২১ সেপ্টেম্বর দুবাইতে পাঞ্জাব কিংসের বিপক্ষে নামবে মুস্তাফিজের রাজস্থান। এই দলটির হয়ে এবার তিনি সবগুলো ম্যাচেই একাদশে ছিলেন। সাত ম্যাচ খেলে ওভার প্রতি ৮.২৯ করে রান দিয়ে ৮ উইকেট নেওয়া মুস্তাফিজ রাজস্থানের একাদশে থাকা অনেকটাই নিশ্চিত। তবে প্রথম ম্যাচের একাদশে থাকতে হলে আজকেই তার দুবাই পৌঁছাতে হবে।

আইপিএল খেলে আর দেশে ফেরা হচ্ছে না এই দুই ক্রিকেটারের। দুবাই থেকেই ৩ অক্টোবর ওমানে বাংলাদেশ দলের ক্যাম্পে যোগ দেবেন তারা। ১৭ অক্টোবর ওমানে শুরু হবে বাংলাদেশের বিশ্বকাপ।

ভারতের কোভিডের প্রকোপ প্রবলভাবে বাড়তে থাকায় এবং তা টুর্নামেন্টে প্রভাব ফেলায় গত ৪ মে স্থগিত হয় এবারের আইপিএল। অনেক টানাপোড়েন শেষে অবশেষে টুর্নামেন্টের বাকি অংশ শুরু হতে যাচ্ছে আগামী রোববার থেকে। ভারত থেকে আসর সরে গেছে সংযুক্ত আরব আমিরাতে।

আইপিএলে সাকিব খেলছেন কলকাতা নাইট রাইডার্সের হয়ে। স্থগিত হওয়ার আগে এবারর আসরে তার পারফরম্যান্স ছিল হতাশাজনক। তিনটি ম্যাচ খেলে করতে পারেন তিনি কেবল ৩৮ রান, ওভার প্রতি আটের বেশি রান দিয়ে নেন ২ উইকেট।

মুস্তাফিজুর রহমান খেলছেন রাজস্থান রয়্যালসের হয়ে। স্থগিত হওয়ার আগে দলের সাত ম্যাচের সবকটি খেলে তার উইকেট ৮টি। রান দেন ওভারপ্রতি ৮.২৯।

টুর্নামেন্টের নতুন শুরুতে সাকিবদের প্রথম ম্যাচ ২০ সেপ্টেম্বর, আবু ধাবিতে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুর বিপক্ষে। পরদিনই মুস্তাফিজদের লড়াই দুবাইয়ে পাঞ্জাব কিংসের বিপক্ষে।

 

 

"

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close