প্রতিদিনের সংবাদ ডেস্ক

  ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০২১

রোহিঙ্গা নির্যাতনের তথ্য প্রকাশে ফেসবুককে নির্দেশ

রোহিঙ্গাদের ওপর চালানো সহিংস ঘটনার সব তথ্য প্রকাশের জন্য ফেসবুককে নির্দেশ দিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের একটি আদালত। এর আগে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর বর্বর নির্যাতনের বিভিন্ন তথ্য সহিংস বলে প্রকাশ করা বন্ধ করে দিয়েছিল এই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম।

মিয়ানমারের সংখ্যালঘু মুসলিম জনগোষ্ঠীর ওপর চলা নির্যাতন ও সহিংসতা-সংশ্লিষ্ট তথ্য, আন্তর্জাতিক অপরাধের মামলার বিচারকার্য সহায়তার জন্য অনুসন্ধানকারীদের দিতে ব্যর্থ হওয়ার কারণে ওয়াশিংটন ডিসির ওই বিচারক ফেসবুকের সমালোচনা করেন।

যুক্তরাষ্ট্রের আইনের অজুহাত দিয়ে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ সেসব তথ্য-উপাত্ত প্রকাশের বিষয়টি প্রত্যাখ্যান করেছিল। কিন্তু বিচারক বলেন, যেসব তথ্য সরানো হয়েছে, সেগুলো আইনভঙ্গের মধ্যে পড়ে না। এ নির্দেশনার পর ফেসবুক কর্তৃপক্ষ তাৎক্ষণিকভাবে কোনো মন্তব্য করেনি।

রোহিঙ্গা গণহত্যা এবং ১৯৪৮ সালের জেনোসাইড কনভেনশনে করা চুক্তি ভাঙার অভিযোগে মিয়ানমারের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক আদালতে মামলা করে গাম্বিয়া। যদিও মিয়ানমার সেনাবাহিনী নির্যাতন ও সহিংসতার অভিযোগ বরাবরই প্রত্যাখ্যান করে আসছে। হেগের আদালতে মামলা চালাতে যাবতীয় তথ্য হাজির করার জন্য বিভিন্ন তথ্য-উপাত্ত প্রয়োজন গাম্বিয়ার। কিন্তু এসব তথ্য ফেসবুক সরিয়ে ফেলায় বিপাকে পড়েছে দেশটি। মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে ২০১৭ সালে ব্যাপক ধ্বংসযজ্ঞ চালায় দেশটির সেনাবাহিনী। হত্যা করে নারী-শিশুসহ বহু রোহিঙ্গা মুসলিমকে। মানবাধিকার সংস্থাগুলো একে এথনিক ক্লিনজিং বা জাতিগত নিধন বলে অ্যাখ্যা দিয়েছে।

ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল জানিয়েছে, তদন্তকারীদের তথ্য সরবরাহ করতে ফেইসবুকের ব্যর্থতার কড়া সমালোচনা করেছেন ওয়াশিংটন ডিসির ওই বিচারক। মিয়ানমারে সংখ্যালঘু মুসলিমদের উপর দমন-পীড়নের কারণে দেশটিকে আন্তর্জাতিক আইনের আওতায় এনে বিচারের চেষ্টা চলছে।

এর আগে মার্কিন আইনের দোহাই দিয়ে ওই ডেটার প্রকাশ প্রত্যাখ্যান করেছিলো ফেইসবুক। প্রতিষ্ঠানটির দাবি ছিলো, ওই ডেটা প্রকাশ করা হলে তা মার্কিন আইনের লঙ্ঘন হবে। তবে ওই মার্কিন বিচারক বলছেন, যেহেতু সহিংসতার সঙ্গে জড়িত কন্টেন্টগুলো মুছে দেওয়া হয়েছে, সেই নথি প্রকাশ করা হলে সেটি আইনের লঙ্ঘন হবে না। বার্তাসংস্থা রয়টার্স বলছে, এই প্রসঙ্গে ফেইসবুক তাৎক্ষণিক কোনো প্রতিক্রিয়া জানায়নি।

মিয়ানমার ১৯৪৮ সালের জাতিসংঘ সম্মেলনের গনহত্যা নীতিমালা লঙ্ঘন করছে অভিযোগ এনে নেদারল্যান্ডসের হেগ শহরে অবস্থিত ইন্টারন্যাশনাল কোর্ট অফ জাস্টিস-এ মামলা করেছে আফ্রিকার দেশ গাম্বিয়া।

 

 

"

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close