প্রতিদিনের সংবাদ ডেস্ক

  ১৩ সেপ্টেম্বর, ২০২১

কাবুল বিমানবন্দরে কাজে ফিরেছেন নারীরা

আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলের বিমানবন্দরে কর্মস্থলে ফিরেছেন ১২ আফগান নারী। তালেবান আফগানিস্তানের নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার প্রায় এক মাস পর তারা কাজে ফিরেছেন। গত ১৫ আগস্টের আগে কাবুল বিমানবন্দরে ৮০ জন কাজ করলেও বর্তমানে ফিরেছেন মাত্র ১২ জন। খবর এএফপি ও আলজাজিরার।

তালেবান ক্ষমতায় আসার পর আফগানিস্তানের নারীদের পরবর্তী নির্দেশনা না দেওয়া পর্যন্ত নিরাপত্তার জন্য ঘরে থাকতে বলেছিল। রবিবার কাবুল বিমানবন্দরের প্রধান প্রবেশপথে ছয় নারীকে দেখা গেছে, যারা স্থানীয় ফ্লাইটের জন্য নারী যাত্রীদের তল্লাশির কাজে নিয়োজিত ছিলেন। এ নিয়ে কাবুল বিমানবন্দরের কর্মী তিন সন্তানের মা ৩৫ বছর বয়সি রাবিয়া বলেন, পরিবার চালানোর জন্য টাকার দরকার। বাড়িতে থাকতে খুব উদ্বিগ্ন ছিলাম। তবে এখন ভালো লাগছে।

রাবিয়ার বোন কুদসিয়া জামাল বলেন, ‘তালেবানকে ক্ষমতায় দেখে আমি ভীত। আমার পরিবারও আমার জন্য শঙ্কায় রয়েছে। তারা বলেছিল, যাতে আমি কাজে না ফিরি। তবে আমি এখন কাজে ফিরতে পেরে খুশি।’ ১৯৯৬ থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত তালেবানের সরকারের অধীনে নারী অধিকারের চরমভাবে লঙ্ঘনের অভিযোগ ওঠে। এবার এসে এ বিষয়ে অনেকটা সুর নরম করেছে তারা।

বিশ্ববিদ্যালয়ে যেতে পারবেন আফগান নারীরা : তালেবান ক্ষমতা নেওয়ার পর আফগান নারীদের অ্যাকাডেমিক শিক্ষার পথ সংকুচিত হয়ে পড়েছিল। তবে তালেবানের পক্ষ থেকে এবার ঘোষণা এলো দেশটির নারীরা উচ্চশিক্ষা নিতে পারবেন, যেতে পারবেন বিশ্ববিদ্যালয়ে তবে আলাদা ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে এবং পর্দার নিয়ম কানুন মেনে। তালেবানের নতুন সরকারের শিক্ষামন্ত্রী আবদুল বাকি হাক্কানি শিক্ষাব্যবস্থা নিয়ে কথা বলতে গিয়ে রবিবার এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, আফগানিস্তানের নারীরা বিশ্ববিদ্যালয়ে যেতে পারবেন, এমনকি স্নাতকোত্তর পর্যন্ত পড়তে পারবেন তারা। তবে ছেলেমেয়ে একসঙ্গে বসে নয়, আলাদা ক্লাসরুমে বসে পড়তে পারবেন তারা এবং অবশ্যই হিজাব পড়তে হবে। তালেবানের এ নেতা বলেন, আজ যা আছে তার ওপর আমরা নির্মাণ শুরু করব, তালেবানের অবস্থান বজায় রেখে, গত ২০ বছরে যতটা পরিবর্তন এসেছে, বিশেষ করে নারীদের ব্যাপারে। ১৫ আগস্ট তালেবান কাবুল দখলে নেওয়ার পর সবচেয়ে বেশি শঙ্কা আর অনিশ্চয়তার মধ্যে পড়েন দেশটির নারীরা। তালেবানের নতুন সরকার ঘোষণা দেওয়ার পর নিজেদের অধিকার আদায়ের লক্ষ্যে আন্দোলনেও নামেন তারা।

 

 

"

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close