মাদ্রাসাছাত্রকে বলাৎকার, হেফাজত নেতা কারাগারে

প্রকাশ : ১৭ মার্চ ২০১৬, ১১:৪৪ | আপডেট : ১৭ মার্চ ২০১৬, ১৫:২৫

পাবনা প্রতিনিধি


মাদ্রাসার এক ছাত্রকে বলাৎকার করার অভিযোগে পাবনার ঈশ্বরদী উপজেলা হেফাজতে ইসলামের সভাপতি মতিউর রহমানকে (৫০) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গতকাল বুধবার দুপুরে তাঁকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়। ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে ঈশ্বরদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বিমান কুমার দাশ জানান, গ্রেপ্তার হওয়া মতিউর রহমান দারুল তালিম মাদ্রাসার প্রিন্সিপাল ও কাচারীপাড়া জামে মসজিদের ইমাম।
ঈশ্বরদী থানা সূত্র জানায়, গত সোমবার রাত ১১টার দিকে দারুল তালিম মাদ্রাসার এক ছাত্রকে বলাৎকার করেন মতিউর রহমান। পরদিন মঙ্গলবার সকালে শিশুটি অসুস্থ হয় এবং ঘটনাটি পরিবারসহ স্থানীয়দের জানায়। বিষয়টি চেপে যাওয়ার জন্য দিনভর নানা দেনবার করেন মতিউর রহমান। অবশেষে স্থানীয় লোকজন তাঁকে আটক করে মঙ্গলবার রাত ১০টার দিকে পুলিশে সোপর্দ করে। শিশুকে বলাৎকারের অভিযোগে রাতে তাঁর বিরুদ্ধে থানায় মামলা করা হয়। ওই মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে পুলিশ আজ তাঁকে জেলহাজতে পাঠিয়েছে।গ্রেপ্তার হওয়া মতিউর রহমানের বাড়ি ঈশ্বরদী পৌর এলাকার পশ্চিম টেংরী মহল্লায়। এর আগে তাঁর বিরুদ্ধে একাধিক বলাৎকারের অভিযোগ ওঠে বলে এলাকাবাসী জানিয়েছে। এই  অভিযোগের ব্যাপারে গ্রেপ্তার হওয়া মতিউর রহমানের বক্তব্য পাওয়া যায়নি। তবে তাঁর ছেলে মোফাজ্জল রহমান সাংবাদিকদের কাছে দাবি করেন, তাঁর বাবা নির্দোষ। তাঁকে ষড়যন্ত্র করে ফাঁসানো হয়েছে।