সাভার প্রতিনিধি :

  ০৪ আগস্ট, ২০২২

ডাস্টবিনে পাওয়া সেই নবজাতকটি যাবে ছোটমণি নিবাসে

ছবি : প্রতিদিনের সংবাদ

সাভারের আশুলিয়ায় ডাস্টবিন থেকে উদ্ধার হওয়া নবজাতকটি ভর্তি আছে হাসপাতালে। নিয়মানুযায়ী চিকিৎসা শেষে তাকে ঢাকার ছোটমণি নিবাসে পাঠানো হবে।

বুধবার (৩ আগস্ট) সন্ধ্যায় সাভার উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা মো. শিবলীজ্জামান এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে মঙ্গলবার রাত ৯টার দিকে আশুলিয়ার ঘোষবাগ সোনিয়া মার্কেট এলাকার রিপন সিকদারের বাড়ির পেছনের ডাস্টবিন থেকে ওই ছেলে নবজাতককে উদ্ধার করা হয়। শিশুটিকে লালন-পালন করার ইচ্ছা পোষণ করেছেন স্থানীয় এক ব্যক্তি।

স্থানীয় নূর মোহাম্মদ বলেন, ‘রাত ৮টার দিকে আমার চাচা রিপন সিকদারের বাড়ির পেছনের ডাস্টবিনে শিশুর কান্না শুনতে পাই। পরে বাড়ির পেছনে গিয়ে একটি জীবিত নবজাতক ছেলে শিশুকে দেখতে পাই। এ সময় নবজাতকে উদ্ধার করে স্থানীয় নারী ও শিশু স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ভর্তি করা হয়।’

স্থানীয় বাসিন্দা আব্দুল আল নোমান বলেন, ‘আমার ভাতিজা এই বাচ্চা উদ্ধার করেছে। আমি শুরু থেকেই বাচ্চার খোঁজ-খবর নিয়ে যাচ্ছি। গতকাল থেকেই যে সমস্ত খরচ হচ্ছে আমি বহন করছি। আমি আইনিভাবে বাচ্চাটিকে দত্তক নিয়ে লালন-পালন করতে চাই।’

নারী ও শিশু স্বাস্থ্য কেন্দ্রের ব্যবস্থাপক হারুন-অর-রশিদ বলেন, ‘রাত সাড়ে ৮টার দিকে একটি নবজাতককে হাসপাতালে আনেন স্থানীয়রা। নবজাতকটি সদ্য ভূমিষ্ট বলে ধারণা করা হচ্ছে। বর্তমানে শিশুটি সুস্থ রয়েছে। চিকিৎসকরা তাকে নিওনেটাল ওয়ার্ডে অবজারবেশনে রেখেছেন।’

এ ব্যাপারে আশুলিয়া থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) ইউনুস আলী বলেন, ‘আমরা খবর পেয়ে নবজাতকের খোঁজ-খবর নিয়েছি। বর্তমানে শিশুটি সুস্থ আছে। নবজাতকটি নুর মোহাম্মদ ও রিপন সিকদারের জিম্মায় রয়েছে।’

সাভার উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা মো. শিবলীজ্জামান বলেন, ‘আমাদের পক্ষ থেকে ওর চিকিৎসা হবে। চিকিৎসা শেষে ঢাকাতে ছোটমণি নিবাসে চলে যাবে। ছোটমণি নিবাস সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়াধীন ও সমাজকল্যাণ অধিদপ্তর কর্তৃক পরিচালিত। ওখানে তার লালন-পালনের ব্যবস্থা হবে। কেউ যদি তাকে দত্তক নিতে চায় তাহলে কোর্টের মাধ্যমে অর্ডার করিয়ে নিতে হবে। এখন সে হাসপাতালে চিকিৎসকদের নজরদারিতে আছে। সে ভালো আছে। ডাক্তার রিলিজ দিলেই তাকে ঢাকায় পাঠানো হবে।

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
সাভার,নবজাতক,ছোটমণি নিবাস
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close