মো. আইয়ুব হোসেন খান, মাগুরা

  ২০ সেপ্টেম্বর, ২০২১

মাগুরা জেলা কারাগারকে ‘মাদকমুক্ত’ ঘোষণা

জেলা কারাগারকে ‘মাদকমুক্ত’ ঘোষণা দিলেন মাগুরার ভারপ্রাপ্ত জেলার আখেরুল ইসলাম। গত ২৪ আগস্ট মাগুরায় যোগদান করার পর থেকেই পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতাসহ কারাগারকে মাদকমুক্ত করার কার্যক্রম শুরু করেন তিনি। 

যোগদানের একমাসের মধ্যেই কারাগারের অভ্যন্তরে বিভিন্ন শ্রেণিকক্ষ কয়েদিদের থাকার স্থানসহ মাগুরা জেলা কারাগারকে সৌন্দর্য বৃদ্ধি করতে সক্ষম হয়েছেন তিনি। কারাগার চত্বর ‘মাদকমুক্ত’ ঘোষণা করতেও সক্ষম হলেন এবার সক্ষম হয়েছেন বাংলাদেশ সরকারের রাষ্ট্রীয় আইন শৃংখলা অনুযায়ী কারাগার পরিচালনা করতে। 

আধুনিক সভ্যতায় বন্দিদের সংশোধন ও সুপ্রশিক্ষিত করে সভ্য সমাজের মানুষ হিসেবে গড়ে তোলার প্রতিষ্ঠান এই কারাগার। এ বিষয়ে ভারপ্রাপ্ত জেলার আখেরুল ইসলাম বলেন, বিভিন্ন কারণে মানুষ অপরাধের সাথে জড়িয়ে পড়তে পারে। আইন অনুসারে শাস্তি প্রদানের পাশাপাশি তাকে সংশোধন করে গড়ে তোলার দায়িত্ব বাংলাদেশ কারা বিভাগের। "রাখিব নিরাপদ, দেখাব আলোর পথ" এই শ্লোগান নিয়ে আমরা এগিয়ে চলেছি।

তিনি আরো বলেন, বন্দিদের নিরাপদ আটক নিশ্চিত করণসহ কারাগারের কঠোর নিরাপত্তা ও বন্দিদের মাঝে শৃঙ্খলা বজায় রাখা। ‘মাদকমুক্ত’ মাগুরা জেলা কারাগারসহ বন্দিদের সাথে মানবিক আচরণ করা, যথাযথভাবে তাদের বাসস্থান, খাদ্য, চিকিৎসা এবং আত্মীয়-স্বজন, বন্ধু-বান্ধব ও আইনজীবীদের সাথে সাক্ষাৎ নিশ্চিত করা, একজন সুনাগরিক হিসেবে সমাজে পুনর্বাসন করার লক্ষ্যে প্রয়োজনীয় প্রেষণা ও প্রশিক্ষণ প্রদান করতে কাজ করে যাচ্ছি। এর পাশাপাশি বাংলাদেশ রাষ্ট্রীয় আইনের প্রতি শ্রদ্ধা রেখে মাগুরার সুশীল সমাজের সহযোগিতা কামনা করি। 

সাক্ষাৎ প্রার্থীদের সহজ ও ন্যায্য মূল্যে নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যসামগ্রী সরবরাহের লক্ষে কারাগারের বর্হিভাগ ও কারাভ্যন্তরে ১টি করে ক্যান্টিন/দোকান চালু করা হয়েছে। আগত সাক্ষাৎ প্রর্থীরা নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যসামগ্রী ন্যায্য মূল্যে ক্রয় করে বন্দিদের সরবরাহ করতে পারেন। এতে একদিকে যেমন কারাগারে অবৈধ দ্রবাদির প্রবেশ নিয়ন্ত্রিত হবে অন্য দিকে আইন শৃঙ্খলা বজায় থাকবে।

নারী কয়েদীদের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, নারী বন্দিদের সেলাই, এমব্রয়ডারী, নক্শীকাঁথা, বেডশিট, বালিশের কভার ও শাড়ীর উপর ডিজাইন করাসহ বিভিন্ন বিষয়ে প্রশিক্ষণ দেয়া হয়। তাদের তৈরিকৃত এসব পণ্য বাহিরে বিক্রয় করে আয়ের একটি অংশ এ শ্রমে নিয়োজিত বন্দীদের ব্যক্তিগত পিসিতে জমা দেয়া হয়।

কয়েদিদের চিকিৎসা সর্ম্পকে তিনি বলেন, প্রত্যেক কারাগারের মত আমাদের এখানেও হাসপাতাল বিদ্যমান রয়েছে। অসুস্থ বন্দিদের হাসপাতালে ভর্তি রেখে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা করা হয়। অসুস্থ বন্দিদের চিকিৎসকের পরামর্শক্রমে উন্নত চিকিৎসার জন্য কারাগারের বাইরে বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি রেখে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা প্রদানের ব্যবস্থা করা হয়। 

পিডিএসও/এসএমএস

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
মাগুরা,জেলা কারাগার
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close