মাদারগঞ্জ (জামালপুর) প্রতিনিধি

  ১৮ জুন, ২০২১

‘জিয়া পরিকল্পিতভাবে মুক্তিযোদ্ধোদের পরাজিত করার নেতৃত্ব দিয়েছেন’

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও সাবেক বস্ত্র ও পাট প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম এমপি বলেছেন, খন্দকার মোস্তাক, জিয়াউর রহমান ষড়যন্ত্র করে পঁচাত্তরের ১৫ই আগষ্ট বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে তার সপরিবারের হত্যা করেছে।

অনেকেই বলেন জিয়াউর রহমান মুক্তিযুদ্ধে সেক্টর কমান্ডার ছিলেন। আসলে জিয়াউর রহমান মুক্তিযোদ্ধা ছিলেন না। তিনি পাকিস্থানের এজেন্ট হয়ে মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করেছিলেন। এজন্যই মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন সময়ে বিশৃঙ্খলার অভিযোগে তাকে দুইবার সাসপেন্ড করা হয়েছিল। জিয়াউর রহমান মুক্তিযুদ্ধে পরিকল্পিতভাবে মুক্তিযোদ্ধাদের পরাজিত করতে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন। তিনি যে পাকিস্থানের এজেন্ট ছিলেন তার প্রত্যেকটি কাজে-কর্মে প্রমাণ দিয়েছেন।

শুক্রবার সকালে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ৭২ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে মাদারগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের আয়োজনে মির্জা আবুল কাশেম অডিটোরিয়ামে এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। 

তিনি আরো বলেন, মীর জাফর যেভাবে ষড়যন্ত্র করে নবাব সিরাজদ্দৌলাকে হত্যা করে বৃটিশদের হাতে বাংলাকে তুলে দিয়েছিল, সেইভাবে বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করে মীর জাফরের বংশধর খন্দকার মোস্তাক, জিয়াউর রহমান। বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করে জিয়াউর রহমান ক্ষমতায় এসে বহু দলীয় গণতন্ত্রের নামের রাজাকার-আল বদরদের রাজনীতি করার সুযোগ করে দিয়েছেন।

মাদারগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বাবু জীবন কৃষ্ণ সাহার সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুর রহমান বেলালের সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন- জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এড. মুহাম্মদ বাকী বিল্লাহ, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক সালেহ শফি গেন্দা, সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল আমিন চাঁন, সদস্য মির্জা গোলাম কিবরিয়া কবির, উপজেলা আওয়ামী সহ-সভাপতি অরুন কুমার সাহা, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান সাজু, সাংগঠনিক সম্পাদক রায়হান রহমতুল্লাহ রিমু প্রমুখ।

 

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
পরিকল্পিত,মুক্তিযোদ্ধো
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close