নিজস্ব প্রতিবেদক

  ০১ আগস্ট, ২০২১

মোবাইল কোর্ট

৭ লাখ ৪২ হাজার টাকা জরিমানা

এডিস মশার বিস্তার নিয়ন্ত্রণে ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশন মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করেছে। এর মধ্যে ঢাকা উত্তর ৩৫টি মামলায় ৬ লাখ ৭৬ হাজার ৩০০ টাকা এবং ঢাকা দক্ষিণ ২৩ ভবনকে ১ লাখ ৬৬ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করে। গতকাল ঢাকা দুই সিটি করপোরেশন তাদের নির্দিষ্ট এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে।

ডিএনসিসি জানায়, ১ নম্বর অঞ্চলে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. জুলকার নায়ন পরিচালিত মোবাইল কোর্টে পাঁচটি মামলায় ৬৫ হাজার টাকা, ২ নম্বর অঞ্চলে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এ এস এম সফিউল আজম পরিচালিত মোবাইল কোর্টে তিনটি মামলায় ১ লাখ ৪৫ হাজার টাকা, ৩ নম্বর অঞ্চলে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আবদুল্লাহ আল বাকী পরিচালিত মোবাইল কোর্টে সাতটি মামলায় ৬০ হাজার টাকা, ৪ নম্বর অঞ্চলে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সালেহা বিনতে সিরাজ পরিচালিত মোবাইল কোর্টে চারটি মামলায় ১০ হাজার টাকা, ৫ নম্বর অঞ্চলে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. মাসুদ হোসেন পরিচালিত মোবাইল কোর্টে তিনটি মামলায় ৫৫ হাজার টাকা, ৬ নম্বর অঞ্চলে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সাজিয়া আফরিন পরিচালিত মোবাইল কোর্টে তিনটি মামলায় ৩ লাখ ১৬ হাজার ৩০০ টাকা, ৮ নম্বর অঞ্চলে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. আবেদ আলী পরিচালিত মোবাইল কোর্টে আটটি মামলায় ৫ হাজার টাকা এবং ৯ নম্বর অঞ্চলে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. জিয়াউর রহমান পরিচালিত মোবাইল কোর্টে দুটি মামলায় ২০ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়। এভাবে মোট ৩৫টি মামলায় আদায়কৃত জরিমানার সর্বমোট পরিমাণ ৬ লাখ ৭৬ হাজার ৩০০ টাকা।

ডিএসসিসি জানায়, এডিস মশার লার্ভা নিয়ন্ত্রণে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) ৭ ভ্রাম্যমাণ আদালত অভিযান পরিচালনা করেছে। অভিযানে মশার লার্ভা পাওয়ায় ১৩ নির্মাণাধীন ভবন ও বাসা-বাড়িকে ১ লাখ ৬৬ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

গতকাল ডিএসসিসির নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটদের মধ্যে অঞ্চল-১ এর নিউ ইস্কাটনে মাহফুজুল আলম মাসুম, অঞ্চল-২-এর খিলগাওয়ে মোহাম্মদ আলমগীর হোসেন, অঞ্চল-৩ এর চানখাঁরপুলে তৌহিদুজ্জামান পাভেল, অঞ্চল-৫-এর জুরাইনের বিক্রমপুর প্লাজা ও আশপাশে মুহাম্মদ হাসনাত মোর্শেদ ভূঁইয়া, অঞ্চল-৬-এর গৌড়নগর ও নাসিরাবাদে শাহীন রেজা, অঞ্চল-৮-এর মালা মার্কেট ও রাজাখালীতে কাজি হাফিজুল আমিন এবং অঞ্চল-৯-এর মাতুয়াইলের মুসলিমনগর এলাকায় বিকাশ বিশ্বাস এসব ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন।

ভ্রাম্যমাণ আদালতগুলো এ সময় ২১৪টি নির্মাণাধীন ভবন, বাসাবাড়ি ও প্রতিষ্ঠানে অভিযান পরিচালনা করেন এবং মোট ১৩টি নির্মাণাধীন ভবন ও বাসাবাড়িতে মশার লার্ভা পাওয়ায় ১৩টি মামলার মাধ্যমে সর্বমোট ১ লাখ ৬৬ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করেন।

এছাড়াও এ সময় এডিস মশার লার্ভা প্রজনন উপযোগী পরিবেশ বিরাজ করায় মোট ১১টি বাসা ও নির্মাণাধীন ভবনকে সতর্ক করা হয়।

 

 

"

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close