অনলাইন ডেস্ক
  ০৫ ডিসেম্বর, ২০২০

কাঠের পুতুল

এনাম আনন্দ

মিনি আজ বেজায় খুশ। কারণ সে তৃতীয় শ্রেণির বার্ষিক পরীক্ষায় প্রথম হয়ে চতুর্থ শ্রেণিতে উঠেছে। বাবা-মা অনেক খুশি হয়ে বুকে জড়িয়ে ধরে অনেকক্ষণ আদর করলেন। মিনির মনটাও বেশ ফুরফুরে। বিকালবেলা তাই সে কাঠের পুতুল নিয়ে খেলায় মেতে উঠেছে। কিছুক্ষণ পর সে গায়ে হালকা জ্বর অনুভব করতে লাগল। তাতে কী? মিনি পুতুলের সঙ্গে কথা বলেই চলছে। হঠাৎ মিনি পুতুলের কানের কাছে মুখটি নিয়ে ফিসফিস করে তিনবার বলল, আচ্ছা পুতুল তুমি কি বলতে পারো? আমি কেন এত অসুস্থ হই? কি অবাক করা কা-! পুতুল উত্তর দেয়, তুমি রোজ অনিয়ম করো। সকালে ঘুম থেকে উঠো না, ঠিকমতো হাত-মুখ ধোও না, নাশতা করো না, শাকসবজি দিয়ে ভাত খাও না, সারাক্ষণ মোবাইলে গেমস খেলো আর কার্টুন দেখো। এমন অনিয়ম করলে তো তুমি অসুস্থ হবেই। মিনি বলল, আচ্ছা পুতুল, আমি যদি তোমার কথামতো সব কাজ করি তাহলে কি আমি সব সময় সুস্থ থাকব? হ্যাঁ, অবশ্যই তুমি সুস্থ থাকবে।

মিনি কাঠের পুতুলের কথামতো চলা শুরু করল। দিন যায়, মাস যায় এভাবে বছর পার হলো কিন্তু মিনি আগের মতো আর অসুস্থ হয় না। মিনি সব পরীক্ষায় এবং খেলায় প্রথম হয় আর মনে মনে ভাবে, ইশ্ আমার মতো যদি সবার একটি করে কাঠের পুতুল থাকত! তাহলে কত মজাই না হতো! সবাই সুস্থ থাকতে পারত আর পরীক্ষায় প্রথম হতো।

------
 

 

"

আরও পড়ুন -
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়