গাজী শাহাদত হোসেন ফিরোজী, সিরাজগঞ্জ

  ২৭ জানুয়ারি, ২০২২

সিরাজগঞ্জে ব্রিজ আছে রাস্তা নেই, এলাকাবাসীর দুর্ভোগ

ছবি : প্রতিদিনের সংবাদ

ব্রিজের দুইপাশে সংযোগ সড়ক না থাকায় এলাকাবাসী চরম দুর্ভোগে পড়েছেন। জানা যায়, সিরাজগঞ্জের সলঙ্গা থানার নলকা ইউপির এরান্দহ কারিগরপাড়ার পশ্চিমদিকে তিননান্দিনা যাওয়ার নতুন রাস্তায় এরান্দহ, বোয়ালিয়া বিলের মধ্যে মানুষের চলাচলের জন্য ব্রিজ নির্মাণ করা হয়েছে, কিন্তু নির্মিত ব্রিজের দু’পাশে এক সময়ে নামমাত্র মাটি থাকলেও বন্যার পানিতে তা ভেঙে গেছে। এ কারণে ব্রিজটির উপর দিয়ে যানবাহন চলাচল তো দূরের কথা মানুষজনও চলাচল করতে পারেন না। ফলে সীমাহীন ভোগান্তিতে পড়েছেন এলাকাবাসী। প্রায় ১০-১১ বছর আগে নির্মাণ হয়েছে এ ব্রিজটি।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, ব্রিজটির পুর্বপাশে প্রায় ৬ ফুট উঁচু, কিন্তু মাটি নেই। আর পশ্চিম পাশে ৩ ফুট উঁচু কিন্তু যাতায়াতের সুযোগ নেই। সংযোগ সড়ক না থাকায় ব্রিজটি যাতায়াতের জন্য ব্যবহৃত হচ্ছে না। ব্রিজের পাশে শুকিয়ে যাওয়া খালের মধ্য দিয়ে চলাচল করছেন এলাকাবাসী।

তিননান্দিনা গ্রামের অনেকেই জানান, আমাদের নলকা ইউনিয়নে কোনো জরুরি কাজ থাকলে শুধু রাস্তার অভাবে আমরা সেটা করতে পারি না। আমাদের এখানে ব্রিজ দিয়েছে কিন্তু চলাচল করার জন্য কোনো রাস্তা না থাকায় অপরিকল্পিতভাবে নির্মিত ব্রিজটি শুধুই কালের সাক্ষী হয়ে দাঁড়িয়ে আছে, যা এখন স্থানীয়দের কাছে ব্যাক্কেলিয়া ব্রিজ নামে পরিচিত।

তিননান্দিনা বশিদিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক এনামুল হক সরকার বলেন, রঅখ লাখ টাকা খচ করে ব্রিজ করলেও ব্রীজের দুপাশে মটিসহ সংযোগ সড়ক না থাকায় ব্রিজেটি কাজে আসছে না। তবে এলাকাবাসীর যাতায়াতে ব্রিজ ও রাস্তা খুবই দরকার।

ব্রিজের পশ্চিম পাশের জমিদাতা এরান্দহ গ্রামের কোরপ আলীসহ অনেকেই জানান, এখানে কোনো সরকারি সড়ক বা রাস্তা নেই। পায়ে হেঁটে জমির আইল দিয়ে জনগণ চলাচল করত। তিননান্দিনা খোলাপাড়ার অনেকেই বলেন, তিননান্দিনা ও রামপুর গ্রামটি নদীবেষ্টিত গ্রাম।

এলাকার জনগণের আবাদি শস্য, ভারী মালামাল হাট-বাজারে নিতে নদী পারাপার হয়ে যেতে একদিকে যেমন সময়ের অপচয় হয়, অন্যদিকে নিতে হয় জীবনের ঝুঁকি। তাছাড়া কোনো জরুরি রোগী জেলা সদর ও ক্লিনিকে নিতে হলে তিননান্দিনা, নলছিয়ার খেয়া নৌকার জন্য ঘণ্টার পর ঘণ্টা অপেক্ষা করতে হয়। তাই নতুন রাস্তার করে খালের মধ্যে ব্রিজটি নির্মাণ হওয়ায় ভালো হয়েছে। তবে ব্রিজের দুপাশে মাটি না থাকায় চরম কষ্টে যাতায়াত করতে হচ্ছে। এ বিষয়ে নলকা ইউনিয়ন পরিষদের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান আবু বকর সিদ্দিক বলেন, ২০১১ সালে উপজেলা পিআইও অফিস কর্তৃক ব্রিজটি নির্মাণ করা হয়েছিল দুই গ্রামের মানুষের মধ্যে যাতায়াতের সুবিধার জন্য। ব্রিজটি নির্মাণ হলেও কিছু জটিলতায় ব্রিজের দুই পাশে রাস্তা করা সম্ভব হয়নি। এ ব্যাপারে হাজার হাজার মানুষের ভোগান্তি দূরীকরণে স্থানীয় সংসদ সদস্যেরও হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন বলে জানিয়েছেন তিনি। আমার ইচ্ছা আছে সবার সহযোগিতা নিয়ে ব্রিজের দু’পাশে রাস্তা নির্মাণ করব।

এ ব্যাপারে প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও) গোলাম রব্বানী জানান, এই ব্রিজটি দীর্ঘ দিন হলে নির্মিত হলেও সংযোগ সড়কটি নির্মিত হয়নি। জনগণের ভোগান্তির কথা স্বীকার করে তিনি বলেন, এ ব্যাপারে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানকে বলা হয়েছে দ্রুত রাস্তা নির্মাণের উদ্যোগ নেবার জন্য।

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
সিরাজগঞ্জ,সংযোগ সড়ক,ব্রিজ নির্মাণ,দুর্ভোগ
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close