ধর্মপাশা (সুনামগঞ্জ) প্রতিনিধি

  ২৪ নভেম্বর, ২০২০

ধর্মপাশায় ইউপি চেয়ারম্যান বরখাস্ত

প্রতীকী ছবি

সরকারি অর্থ আত্মসাতসহ নানা অনিয়মের অভিযোগে সুনামগঞ্জের ধর্মপাশা উপজেলার চামরদানী ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) চেয়ারম্যান জাকিরুল আজাদ ওরফে মান্নাকে তার পদ থেকে সাময়িতভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে।

স্থানীয় সরকার, পল্রী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের স্থানীয় সরকার বিভাগের ইপ-১ অধি শাখার উপসচিব মোহাম্মদ ইফতেখার আহমেদ চৌধুরী স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপন জারি সংক্রান্ত চিঠি ওই ইউনিয়ন পরিষদের ইমেইলে পাঠানো হয়েছে। 

এতে উল্রেখ করা হয়েছে, সুনামগঞ্জ জেলার ধর্মপাশা উপজেলার ৩নম্বর চামরদানী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান জাকিরুল আজাদ ওরফে মান্নার বিরুদ্ধে ২০১৯সালের ৯নভেম্বর থেকে ২৮নভেম্বর পর্যন্ত হোল্ডিং ট্যাক্স বাবদ তিন লাখ ৮৮হাজার ৮৫০ টাকা আদায় করে ৪৮হাজার টাকা ব্যাংকে জমা করে অবশিষ্ট টাকা আত্মসাত, সরকারি ভিজিডি ও শিশু খাদ্য আত্মসাত, বেআইনিভাবে ভিজিডি কার্ডধারীদের থেকে প্রতি মাসে শ্র্রমিক বাবদ অর্থ আদায়, ওই ইউনিয়নের ৮নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য ওয়াসিল আহম্মেদ জেল হাজতে থাকার পরও  তার স্বাক্ষর জাল করে পরিষদের কার্যক্রম পরিচালনা করা এবং একক সিদ্ধান্তে পরিষদের বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনার অভিযোগে স্থানীয় তদন্তে প্রমাণিত হয়েছে।

জেলা প্রশাসক সুনাসগঞ্জ বর্নিত স্থানীয় সরকার (ইউনিয়ন পরিষদ) আইন, ২০০৯ অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণের সুপারিশ করেছেন। অভিযোগগুলো প্রমাণিত হওয়ায় জনস্বার্থে তার দ্বারা  ইউনিয়ন পরিষদের ক্ষমতা প্রয়োগ প্রশাসনিক দৃষ্টিকোণ থেকে থেকে সমীচীন নয় বলে সরকার মনে করে।

জাকিরুল আজাদ মান্নার দ্বারা সংগঠিত অপরাধমূলক পরিষদসহ জনস্বার্থের পরিপন্থী হওয়ায় ওই ইউপি চেয়ারম্যানকে তার স্বীয় পদ থেকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হলো।

চামরদানী ইউনিয়ন পরিষদের ৮নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য ওয়াসিল আহম্মেদ বলেন, ২০১৮সালের ২০জানুয়ারি আমি জেল হাজতে থাকাকালীন সময়ে আমার স্বাক্ষর জালিয়াতি করে ইউপি চেয়ারম্যান জাকিরুল আজাদ মান্না পরিষদের কার্যক্রম পরিচালনা করেছেন। তার বিরুদ্ধে সরকারি অর্থ আত্মসাতসহ নানা অনিয়মের থাকায় আমি চলতি বছরের ১৬জুলাই ইউএনও স্যারের কাছে একটি লিখিত অভিযোগ করি। আর এই অভিযোগগুলো সত্য প্রমাণিত হওয়ায় ইউপি চেয়ারম্যানকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে।

ইউপি চেয়ারম্যান জাকিরুল আজাদ ওরফে মান্না তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগগুলো অস্বীকার করে বলেন, যে সব অভিযোগ এনে আমাকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে বলে খবর পেয়েছি সে গুলো সঠিক নয়। এ সংক্রান্ত কোনো চিঠিও আমি পাইনি। সাময়িক বরখাস্ত হওয়ার খবরটি সত্য হয়ে থাকলে বিষয়টি আইনিভাবে মোকাবিলা করা হবে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. মুনতাসির হাসান বলেন, উপজেলার চামরদানী ইউপি চেয়ারম্যান জাকিরুল আজাদ মান্নার বিরুদ্ধে বিভিন্ন অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ তাকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করেছেন। এমতাবস্থায় ওই ইউনিয়ন পরিষদের দাপ্তরিক সরকারি বিধিমালা  মোতাবেক পরিচালিত করা হবে।

পিডিএসও/এসএম শামীম

চেয়ারম্যান,বরখাস্ত
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়