প্রতিদিনের সংবাদ ডেস্ক

  ১২ অক্টোবর, ২০২১

এবার অর্থনীতিতে নোবেল পেলেন ৩ অধ্যাপক

এবার অর্থনীতিতে নোবেল পুরস্কারে ভূষিত হয়েছেন তিন অর্থনীতিবিদ। তারা হলেন কানাডার ডেভিড কার্ড, যুক্তরাষ্ট্রের জোশুয়া ডি অ্যাংগ্রিস্ট এবং নেদারল্যান্ডসের গুইডো ডব্লিউ ইমবেনস। ডেভিড কার্ড শ্রম অর্থনীতিতে অবদানের জন্য এবং অ্যাংগ্রিস্ট ও ইমবেনস কার্যকারণ সম্পর্ক নিয়ে গবেষণার জন্য এই পুরস্কার পেয়েছেন। খবর সিএনএন ও রয়টার্সের।

সুইডেনের রাজধানী স্টকহোমে গতকাল সোমবার বিকালে এক অনুষ্ঠানে নোবেল কমিটি বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করে। পুরস্কারের অর্ধেক পাবেন ডেভিড কার্ড এবং বাকি অর্ধেক যৌথভাবে পাবেন অ্যাংগ্রিস্ট ও ইমবেনস। ৬৫ বছর বয়সি ডেভিড কার্ড যুক্তরাষ্ট্রের বার্কলে বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপক। ৬১ বছরের অ্যাংগ্রিস্ট ম্যাসাচুসেটস ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজির (এমআইটি) অর্থনীতি বিভাগের ফোর্ড অধ্যাপক এবং ৫৮ বছর বয়সি ইমবেনস স্ট্যানফোর্ড গ্র্যাজুয়েট স্কুল অব বিজনেসের অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপক।

পুরস্কারের ঘোষণায় দ্য নোবেল ইনস্টিটিউট বলেছে, ‘এই তিন অর্থনীতিবিদ শ্রমবাজার এবং প্রাকৃতিক পরীক্ষা-নিরীক্ষা থেকে কী ধরনের কার্যকারণ সম্পর্ক নিরূপণ করা যায়, সে-বিষয়ক নতুন অন্তর্দৃষ্টির সন্ধান দিয়েছেন।’

সামাজিক বিজ্ঞানের অনেক বড় প্রশ্ন ও প্রসঙ্গে কার্যকারণ সম্পর্ক ঘিরে আবর্তিত হয়। যেমন : অভিবাসন মানুষের বেতন/মজুরি বা কাজের স্তরে কী প্রভাব ফেলে। উচ্চশিক্ষা বা শিক্ষার মেয়াদ মানুষের ভবিষ্যৎ আয়ে কীভাবে প্রভাব ফেলে? এ ধরনের প্রশ্নের উত্তর দেওয়া কঠিন, কারণ এসব বিচার করার ক্ষেত্রে গবেষকদের হাতে তুলনামূলক মানদণ্ড থাকে না। অভিবাসন বেশি না হলে বা মানুষ পড়াশোনা বেশি দিন না চালিয়ে গেল কী প্রভাব পড়তে পারে, তা আমরা জানি না।

এবারের নোবেলজয়ী দুই অর্থনীতিবিদ দেখিয়েছেন, অভিজ্ঞতাভিত্তিক পরীক্ষা-নিরীক্ষার মাধ্যমে এসব প্রশ্নের উত্তর দেওয়া সম্ভব।

গত বছর অর্থনীতিতে পুরস্কার পান দুই মার্কিন অর্থনীতিবিদ। তারা হলেন পল আর মিলগ্রোম এবং রবার্ট বি উইলসন। নিলাম তত্ত্বের উন্নতি এবং নতুন নিলাম পদ্ধতি আবিষ্কারের জন্য তারা এ সম্মানজনক পুরস্কারে ভূষিত হন।

গতকালের পুরস্কার ঘোষণার মধ্য দিয়ে এ বছর ছয় ক্ষেত্র- চিকিৎসা, পদার্থ, রসায়ন, শান্তি, সাহিত্য ও অর্থনীতিতে নোবেল বিজয়ীদের নাম ঘোষণা শেষ হলো।

গত ৪ অক্টোবর চিকিৎসাবিজ্ঞানে বিজয়ীদের নাম ঘোষণার মাধ্যমে চলতি বছর নোবেল পুরস্কার দেওয়া শুরু হয়েছে। তাপমাত্রা ও স্পর্শের রিসেপ্টর আবিষ্কারের জন্য চলতি বছর চিকিৎসাবিজ্ঞানে যৌথভাবে নোবেল পুরস্কার পেয়েছেন ডেভিড জুলিয়াস এবং আর্ডেম প্যাটাপৌসিয়ান। অন্যদিকে পদার্থবিজ্ঞানে নোবেল পুরস্কার পেয়েছেন তিনজন। তারা হলেন জাপানি আবহাওয়াবিদ স্যুকুরো মানাবে, জার্মান পদার্থবিজ্ঞানী ক্লাউস হাসেলমান এবং ইতালিয়ান পদার্থবিদ জর্জিও পারিসি।

চলতি বছর রসায়নে নোবেল পেয়েছেন জার্মানির বেনজামিন লিস্ট ও যুক্তরাষ্ট্রের ডেভিড ম্যাকমিলান। ‘অ্যাসাইমেট্রিক অর্গানোক্যাটালাইসিস’ নামে অণু তৈরির নতুন এক কৌশল আবিষ্কার করে এ সম্মাননা জিতে নিয়েছেন তারা।

এবার সাহিত্যে নোবেল পেয়েছেন তানজানিয়ার ঔপন্যাসিক আবদুলরাজাক গুরনাহ। প্যারাডাইস নামে তার চতুর্থ উপন্যাসের জন্য তিনি এ সম্মাননা পেয়েছেন। পূর্ব আফ্রিকার দ্বীপ জাঞ্জিবারে ১৯৪৮ সালে জন্মগ্রহণ করেন তিনি। তানজানিয়ায় বেড়ে উঠলেও ১৯৬৮ সালে শিক্ষার্থী হিসেবে যুক্তরাজ্যে যান এই সাহিত্যিক। অবসর নেওয়ার আগ পর্যন্ত তিনি ইউনিভার্সিটি অব কেন্টের অধ্যাপক ছিলেন। তিনি ওয়াসাফিরি নামে একটি জার্নালেও সহযোগী সম্পাদক হিসেবে কাজ করেছেন।

এদিকে সর্বোচ্চ সম্মানজনক পুরস্কার অর্থাৎ নোবেল শান্তি পুরস্কার জিতেছেন ফিলিপাইনের সাংবাদিক মারিয়া রেসা এবং রাশিয়ার সাংবাদিক দিমিত্রি মুরাতভ। মতপ্রকাশের স্বাধীনতার জন্য দুঃসাহসিক লড়াইয়ের স্বীকৃতিস্বরূপ তাদের এ পুরস্কারে ভূষিত করা হয়েছে।

 

 

"

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close