নিজস্ব প্রতিবেদক

  ১২ অক্টোবর, ২০২১

নেতাকর্মীদের উদ্দেশে কাদের

সন্ত্রাসী ও মাদক কারবারিদের দলীয় পদে বসাবেন না

সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজ, চিহ্নিত মাদক কারবারি ও বিতর্কিতদের আওয়ামী লীগের কোনো কমিটিতে পদ না দিতে কঠোর নির্দেশনা দিয়েছেন দলটির কেন্দ্রীয় নেতারা। গতকাল সোমবার রাজধানীর সূচনা কমিউনিটি সেন্টারে মোহাম্মদপুর থানার ১৯ নম্বর ওয়ার্ডের পাঁচটি ইউনিটের সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এই নির্দেশনা দেওয়া হয়।

সম্মেলনের উদ্বোধন করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের দলের নেতাকর্মীদের উদ্দেশে বলেন, ‘দাগি সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজ, ভূমিদস্যু ও চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী- এ ধরনের বিতর্কিত, অপকর্মে যুক্তদের দলে আপনারা ঠাঁই দেবেন না। নিজের লোক বাড়ানোর জন্য খারাপ লোকদের টেনে আনবেন না। খারাপ লোকরা বসন্তের কোকিল। দুঃসময়ে হাজার পাওয়ারের বাতি দিয়েও খুঁজে পাওয়া যাবে না। দুঃসময়ে খাঁটি ও

ত্যাগীরাই মাঠে থাকবেন। ভালো মানুষরা যত আওয়ামী লীগে আসবে আমরা তত শক্তিশালী হব। ’

নির্বাচন কমিশন ‘কতিপয় জটিল অসুখে আক্রান্ত, তাকে বাঁচাতে মেডিকেল বোর্ড গঠন করতে হবে’ নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদারের এমন বক্তব্যে বিস্ময় প্রকাশ করেছেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক। তিনি বলেন, অবাক লাগে, সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠান নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদার একটি দলের হয়ে যেভাবে রাজনৈতিক বক্তব্য দিয়ে যাচ্ছেন, তাতে মনে হয় ইসি নয়, তিনি নিজেই জটিল ও কঠিন মানসিক রোগে আক্রান্ত। বর্তমান ইসির মূল সমস্যাই হচ্ছেন তিনি নিজেই।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে যুক্তরাষ্ট্রের ওপর সন্ত্রাসী হামলার হোতা, আল-কায়েদা নেতা ওসামা বিন লাদেনের সঙ্গে তুলনা করেছেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও এই আসনের সাবেক সংসদ সদস্য জাহাঙ্গীর কবির নানক। তিনি বলেছেন, আন্দোলনের নামে আর বাংলাদেশকে রণক্ষেত্রে পরিণত করতে দেওয়া হবে না।

বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের দিকে ইঙ্গিত করে জাহাঙ্গীর কবির নানক বলেন, লন্ডনে বসে সন্ত্রাসের হুমকি দেন। লাদেন হয়েছেন। ৪ দিন রুদ্ধদার মিটিং করলেন। আর লন্ডন থেকে প্রাসাদসম বাড়িতে বসে বাংলাদেশে চাঁদাবাজি করে নিয়ে বাংলাদেশকেই রণক্ষেত্রে পরিণত করবেন। সেই রণক্ষেত্রে পরিণত করতে দেওয়া হবে না। শ্বেত সন্ত্রাস করে জনগণের মন জয় করা যায় না বলেও এ সময় বিএনপি নেতাদের উদ্দেশে করে বলেন তিনি।

দলীয় নেতাকর্মীদের উদ্দেশে সাবেক এই সংসদ সদস্য নানক বলেন, যারা দীর্ঘদিন ধরে দলের জন্য বিসর্জন দিয়ে গিয়েছেন, তাদের দলের নেতৃত্বে নিয়ে আসতে হবে। তাহলেই দল শক্তিশালী হবে। মনে রাখতে হবে, বিএনপি থেকে যারা আসে, যুবদল থেকে যারা আসে তারা দলের সবচেয়ে বড় ক্ষতি করে। আমি এই ওয়ার্ডেরই একজন বাসিন্দা ও ভোটার। মোহাম্মদপুরে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের ভেতরে বুকফাটা চাপা কান্না রয়েছে। সেই চাপা কান্না আপনাদের শুনতে হবে, বুঝতে হবে। আর সেই কান্না হলো আমরা যোগ্য জায়গায় সম্মানিত হইনি আগে। আমি বিশ্বাস করতে চাই বর্তমান মহানগর আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে কেউ নিগৃহীত হবেন না।

সম্মেলনে ঢাকা মহানগরে ইউনিট কমিটির উদ্দেশে নিজ বক্তব্য তুলে ধরেন ঢাকা বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত দলের সাংগঠনিক সম্পাদক মির্জা আজম। তিনি বলেন, ঢাকা মহানগর উত্তরে ১৪০০ ইউনিট আছে। এর প্রত্যেকটির সম্মেলন হলে ঢাকা মহানগর উত্তরের ইতিহাসে সবচেয়ে শক্তিশালী সংগঠনে রূপ নেবে। ফলে প্রায় ৫৬ হাজার তৃণমূল নেতা পদপদবি পাবে। যেই কর্মীদের কোনো পদ-পরিচয় ছিল না। যদি আওয়ামী লীগের ৫৬ হাজার হয় অন্য অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠন তারা যদি একইভাবে ইউনিট কমিটি করে সংগঠন গোছায় তাহলে আগামীতে এই ঢাকা মহানগরীতেই ৫ লাখ নেতা আওয়ামী লীগের পরিচয়ধারী থাকবেন।

তিনি বলেন, ‘আমি দায়িত্ব পাওয়ার পর ঢাকা মহানগরীতে দুটি নির্বাচনে পরিচালনার দায়িত্ব পেয়ে দেখেছি যে, একটি নির্বাচনী এলাকায় ১৮ বছর ধরে সর্বসাকল্যে ৩২ জন নেতার দলের পদপদবি আছে। আর কোনো নেতার পদ নেই। সে কারণে দীর্ঘদিন ধরে ঢাকায় সম্মেলন ছাড়া কমিটি গঠনের যে রেওয়াজ সেই রেওয়াজ থেকে বাইরে আসার আমি অনুরোধ জানিয়েছিলাম। এ সময় ঢাকা মহানগর উত্তর ও ঢাকা জেলার দলীয় কোনো কার্যালয়ে নেই জানিয়ে দ্রুত এ বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে সংশ্লিষ্ট নেতাদের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।’

নেতাদের বক্তব্য শেষে ওয়ার্ডের অন্তর্গত ৫টি ইউনিটের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের নাম ঘোষণা করা হয়েছে। এর আগে সকালে বেলুন ও পায়রা উড়িয়ে সম্মেলনের উদ্বোধন করেন ওবায়দুল কাদের। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে ঢাকা মহানগর উত্তরের সভাপতি শেখ বজলুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক এস এম মান্নান কচি, সহসভাপতি সাদেক খান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। সম্মেলনে সভাপতিত্ব করেন ২৯ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. সলিমউল্লাহ সলু। সঞ্চালনা করেন ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক আলমগীর হোসেন।

 

 

"

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close