ব্রেকিং নিউজ

শফীপুত্রকে অব্যাহতি মাদ্রাসা বন্ধ

হাটহাজারী মাদ্রাসার শিক্ষার্থীদের বাকি ৪ দফা পূরণের দাবি

প্রকাশ : ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০০:০০

হাটহাজারী (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি

চট্টগ্রামের হাটহাজারী দারুল উলুম মুঈনুল ইসলাম (বড় মাদ্রাসা)র শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের মুখে হেফাজতের আমির ও মাদ্রাসার মহাপরিচালক আল্লামা শাহ আহমদ শফীরপুত্র কেন্দ্রীয় হেফাজতের প্রচার সম্পাদক ও মাদ্রাসার সহকারী শিক্ষা পরিচালক মাওলানা আনাস মাদানীকে হাটহাজারী মাদ্রাসা থেকে অব্যাহতি প্রদান করা হয়েছে। এ দিকে এই মাদ্রাসার ছাত্ররা গতকাল বৃহস্পতিবারও তাদের ক্যাম্পাসের ভেতরে বিক্ষোভ করেছেন। এ সময় তাদের বলতে শোনা গেছে তাদের বাকি চার দফা পূরণ করতে হবে। এদিকে হাটহাজারী মাদ্রাসা বন্ধের ঘোষণা করা হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের এক প্রজ্ঞাপনে এ আদেশ দেওয়া হয়। গতকাল এই মাদ্রাসার ছাত্রদের বিভিন্ন দাবিতে উত্তাল বিক্ষোভ অব্যাহত থাকায় সরকার এ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করেছে। গত বুধবার দুপুর থেকে মাদ্রাসার শিক্ষার্থীরা পাঁচ দফা দাবিতে বিক্ষোভ করেন। বিক্ষোভকারীদের দাবির পরিপ্রেক্ষিতে মাদ্রাসার মজলিসে শুরার স্থানীয় নেতারা রাতে এক জরুরি বৈঠকে বসেন। রাত পৌনে ১১টায় পাঁচ দফার দাবির মধ্যে দুই দফা যথাক্রমে শিক্ষক আনাস মাদানীর বহিষ্কার ও মাদ্রাসার শিক্ষার্থীদের কোনো ধরনের হয়রানি করা হবে না, দাবি মেনে নেওয়ার ঘোষণা দিয়ে আগামীকাল শনিবার পুনরায় শুরা কমিটির বৈঠকে দাবির বিষয়ে চূড়ান্ত সিন্ধান্ত গ্রহণ করা হবে বলে বৈঠক সূত্রে জানা যায়।

শুরার কমিটির বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন মাদ্রাসার মহাপরিচালক সায়খুল ইসলাম আল্লামা শাহ আহমদ শফী, আল্লামা শায়েক আহমদ, আল্লামা সালাউদ্দীন নানুপুরী, মাওলানা ওমর ফারুক, মাওলানা আহমদ দিদার, মাওলানা কবির আহমদ, হজরত মাওলানা ওমর, হজরত মাওলানা ফোরহান আহমদ, মাওলানা আশরাফ আলী নিজামপুরী।

উল্লেখ্য গত বুধবার দুপুরে জোহরের নামাজের পর থেকে আনাস মাদানীর অপসারণসহ বিভিন্ন দাবি নিয়ে মাদ্রাসার সব ফটক বন্ধ করে ভেতরে আন্দোলন শুরু করে কয়েক হাজার শিক্ষার্থী। সংবাদ পেয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার, পুলিশ, র‌্যাব, বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থা দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছালেও মাদ্রাসার সব ফটক বন্ধ থাকায় ভেতরে প্রবেশ করতে পারেনি। পরে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী সতর্কবস্থায় বাইরে অবস্থান নেয়। তবে প্রশাসন যাতে মাদ্রাসার ভেতরে ঢুকে কোনো ধরনের হস্তক্ষেপ না করে সেজন্য মাদ্রাসার ছাত্ররা মসজিদের মাইকে বারবার মাইকিং করছিলেন।

বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা বলেন, বিশেষ করে পাঁচটি দাবির মধ্যে দুটি দাবি পূরণ করেছে শুরা কমিটি। বিষয়টি শুরা কমিটির স্বাক্ষরিত পত্রে সবাইকে আবারো নিশ্চিত করে জানানো হবে এবং আগামীকাল শনিবার শুরার পরবর্তী বৈঠক বসবে বলে আশ্বাস দেওয়া হয়। আল্লামা আহমদ শফি শারীরিকভাবে অক্ষম হওয়ায় পরিচালক পদ থেকে তাকে সম্মানজনক অব্যাহতি দিয়ে উপদেষ্টা করার দাবি রয়েছে বিক্ষোভকারীদের। অন্যান্য দাবির মধ্যে শিক্ষকদের পূর্ণ অধিকার পূর্ণ ন্যস্ত করার দাবি রয়েছে। ছাত্রদের আন্দোলন চলাকালে মাদ্রাসার ভেতরে মাওলানা আনাস মাদানীসহ তিনজন শিক্ষকের কক্ষ ভাঙচুর করা হয়। শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করা হয়েছে হেফাজতের যুগ্ম সম্পাদক মঈনুদ্দিন রুহিকেও। তাকে চট্টগ্রামের একটি বেসকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রাখা হয়েছে। গত বুধবার রাত ১১টার পর মাওলানা আনাস মাদানীকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করার ঘোষণা দেওয়ার পর মাদ্রাসার সার্বিক পরিস্থিতি ক্রমশ শান্ত হয়ে আসে।

তা ছাড়া গতকাল বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে মাদ্রাসার মাঠে আন্দোলনকারীদের পাঁচটি দাবি পূরণ না হওয়ায় পুনরায় শিক্ষার্থীরা আন্দোলন শুরু করেন। সংবাদ পেয়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছালেও মাদ্রাসার সব ফটক বন্ধ থাকায় ভেতরে প্রবেশ করতে পারেনি। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী সতর্কাবস্থায় মাদ্রাসার বাইরে অবস্থান গ্রহণ করেন। প্রশাসন যাতে মাদ্রাসার ভেতরে প্রবেশ করে কোনো ধরনের হস্তক্ষেপ না করেন এজন্য মাদ্রাসার ছাত্ররা মসজিদের মাইকে বারবার মাইকিং করেন। গতকাল বৃহস্পতিবার বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা মাদ্রাসার ভেতরে তাদের কর্মসূচি অব্যাহত রাখেন। এদিকে সম্ভাব্য অপ্রীতিকর ঘটনার আশঙ্কায় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী সতর্ক অবস্থায় রয়েছে। কি কারণে গতকালও শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ করেছেন তার কোন সুনির্দিষ্ট কারণ জানা যায়নি। এদিকে বড় হুজুরের দফতর ভাঙচুরের কথা প্রচারিত হলেও মাদ্রাসার ভেতর থেকে মাইকিং করে এ ধরনের কোনো ঘটনা ঘটেনি বলে উল্লেখ পূর্বক সবাইকে শান্ত থাকার আহ্বান জানানো হয়। হাটহাজারী থানার ওসি মাসুদ আলম বলেন, বর্তমানে পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে। কোন রকমের অপ্রীতিকর ঘটনার আশঙ্কায় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী বাহিরে সতর্ক অবস্থায় রয়েছে।

 

 

"