দায়গ্রস্ত কন্যার পিতা

প্রকাশ : ১৬ অক্টোবর ২০২০, ১৬:৫০ | আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০২০, ১৭:২৭

শাহাজাদা বসুনিয়া

আমার লক্ষ্মী কন্যা, সেখানেই তুমি ফিরে যাও
যেখান থেকে এসেছো;
আমি আতঙ্কিত, আমি বিমোহিত—
চারপাশে ধর্ষণ, হায়েনারা লুটেপুটে 
খায় দেহ, রক্ত ঝরায় গোপনাঙ্গে
কী উদ্ভট উৎসব, টানাটানি করে দেহ,
কত মমতায় ছোট খুকি বড় হয়েছে!
সেই মমতায় হিংস্র হাতের থাবা!

আমি এক অসহায় পিতা, তোমাকে
নিরাপত্তা দেওয়ার অভাবে আতঙ্কিত
এখন সমাজে নিরাপত্তা বড়ই বিতর্কিত। 

আমার লক্ষ্মী মেয়ে, তুমি ফিরে যাও
লোকান্তরে, তুমি ফিরে যাও অদৃশ্যে
দেবী হয়ে ফিরে এসো এই পৃথিবীতে
ধ্বংস করো উগ্র পুরুষালি
হে পুরুষ, সাবধান। দেবী আসছে
উড়ে উড়ে, পালাও পালাও পুরুষ
সেই ঘরে, যেখানে তোমার স্ত্রী আছে অপেক্ষমাণ।

মনে পড়ে তোমার? তোমার বায়নার 
তৃষ্ণা মিটিয়েছি আমি, কত চকোলেট
বাদাম, কেক, বার্গার আর আইসক্রিম।
রাত-বিরাতে ঘুমিয়েছ বুকে, একটুও
কষ্ট অনুভব করিনি কখনও, বুকের
ওপর ঘুমিয়েছ নিরাপদে-নিবারণে।
এখন আমার নির্ঘুম রাত, বিষণ্ন বদন।

হে মেয়ে, তুমি সমাজেও নিরাপদ নও, 
চারদিকে কত লোক
কেউ শুনবে
না তোমার চিৎকার, সবাই নীরব বোবা
অতঃপর তুমি হাসপাতালে
কত টেস্ট, কত পুলিশ, কত কেইস
সব কিছুই নিষ্ফল;
সবাই বলে তোমার নাকি কলঙ্কিত ফেইস।

হে লক্ষ্মী মেয়ে, ফিরে যাও, যেখান
থেকে এসেছো সেখানেই।
ক্ষমা করো, আমি এক অক্ষম পিতা
হে কন্যা, ফিরে যাও অথবা
চলো বাবা-মেয়ে তুলে নিই হাতে হাতুড়ি ও শাবল
মুক্ত হোক সকল কন্যা, মুক্ত হোক দেশ।

পিডিএসও/হেলাল