খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি

  ১৮ জানুয়ারি, ২০২১

বহিষ্কার আদেশ প্রত্যাহারের দাবি

আমরণ কর্মসূচিতে খুবির ২ শিক্ষার্থী

খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের (খুবি) দুইজন শিক্ষকের সাথে অসদাচারণ ও তদন্তে অসহযোগিতার দায়ে অভিযুক্ত দুই শিক্ষার্থী তাদের বহিষ্কার আদেশ প্রত্যাহারের দাবিতে আমরণ কর্মসূচি শুরু করেছেন। বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের দাবি, আত্মপক্ষ সমর্থনের সুযোগকে উপেক্ষা করে সাজা কার্যকর হওয়ার আগেই তারা এই কর্মসূচি শুরু করেছে।

রোববার সন্ধ্যা ৭টায় খুবির ইতিহাস ও সভ্যতা ডিসিপ্লিনের ১৭ ব্যাচের শিক্ষার্থী ইমামুল ইসলাম ও বাংলা ডিসিপ্লিনের ১৮ ব্যাচের শিক্ষার্থী মোবারক হোসেন নোমান বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের সামনে আমরণ কর্মসূচির ব্যানারসহ অবস্থান নেন।

খুবি শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, পাঁচ দফা আন্দোলনে যুক্ত থাকায় আমাদের অন্যায়ভাবে বহিষ্কার করা হয়েছে। ৪৮ ঘন্টার মধ্যে এই বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার করতে হবে। অন্যথায় আমরা আমরণ অনশন চালিয়ে যাব।

তবে, আত্মপক্ষ সমর্থনের নোটিশপ্রাপ্তির বিষয়টি স্বীকার করলেও তা না করে বা একডেমিক কাউন্সিলে শাস্তির বিষয়ে আপিল না করে তারা কেন আমরণ অনশন শুরু করল—এমন প্রশ্নের জবাবে তারা কোনো মন্তব্য করতে চাননি।

এদিকে, তাদের অবস্থানের বিষয়টি জানতে পেরে ছাত্রবিষয়ক পরিচালক শরীফ হাসান লিমন ঘটনাস্থলে আসেন। সেখানে তিনি অবস্থানরত দুই শিক্ষার্থীকে এই শীতের মধ্যে আমরণ কর্মসূচি থেকে সরে এসে বিশ্ববিদ্যালয়ের নিয়মানুযায়ী আত্মপক্ষ সমর্থনের সুযোগ গ্রহণ করতে বলেন। এ সময় তাদেরকে আত্মপক্ষ সমর্থনের নির্দেশনা-সম্বলিত চিঠিটি পড়তে বলা হলে তারা অস্বীকৃতি জানান।

গণমাধ্যমের এক প্রশ্নের জবাবে ছাত্রবিষয়ক পরিচালক শরীফ হাসান লিমন বলেন, তাদের বিরুদ্ধে যে ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে তা সাময়িক, এখনো চূড়ান্ত নয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের বিধিবিধানের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে তাদের আত্মপক্ষ সমর্থনের সুযোগ গ্রহণের জন্য আহ্বান জানাচ্ছি।

এই প্রতিবেদন লেখা অবধি এই অবস্থান কর্মসূচি চলমান রয়েছে।

পিডিএসও/হেলাল

খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়,বহিষ্কার,আমরণ কর্মসূচি
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close