শ্রীপুর (গাজীপুর) প্রতিনিধি

  ২৫ জানুয়ারি, ২০২২

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারি পার্কে ৯ জেব্রার মৃত্যু, কাউকে না জানানোর নির্দেশ

গাজীপুরের শ্রীপুরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারী পার্কে ৯টি জ্রেবার মৃত্যু হয়েছে! মঙ্গলবার (২৫ জানুয়ারি) বিকেল চারটার দিকে মেডিকেল বোর্ডের প্রধান ডা.মো. শহিদুল্লা ও পার্কের প্রকল্প পরিচালক মো. জাহিদুল কবির সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন। কিন্তু মৃত্যুর সময় কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ডেকে কর্তৃপক্ষ কাউকে না জানানোর নির্দেশ দেন।

ডা.মোহাম্মদ শহিদুল্লা জানান, গত ২জানুয়ারি থেকে পার্কে ৯পা জেব্রার মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে চারটি জেব্রা নিজেরা মারামারি করে মারা গেছে। বাকি ৫টি জেব্রা অসুস্থ হয়ে মারা গেছে। মৃত জেব্রার নমুনা সংগ্রহ করে বিভিন্ন ল্যাবে পরীক্ষা করা হয়েছে। পরীক্ষার রিপোর্টে জানা যায় খাদ্যে ৫ ধরনের ব্যাকটেরিয়া আছে।

বোর্ড সভায় প্রাণীর মৃত্যু হ্রাসে দশটি প্রস্তাব করা হয়। এ গুলো হলো- প্রাণীর সেড বিশ্রামাগার পরিষ্কার করা, মাটি পানি পরিশোধন করা, প্রাণীদের নিয়মিত টিকা দেওয়া, বেশি ঘাস না দেওয়া, ঘাস শুকিয়ে দিতে হবে, সতেজ প্রাণীর মাংস সরবরাহ করতে হবে, পরিষ্কার দানাদার খাদ্য দিতে হবে, নিরাপত্তা জোরদার করতে হবে, নাইট ভিশন ক্যামেরা স্থাপন করতে হবে।

এর আগে গত দু ইসপ্তাহে পার্কে ৯ জেব্রার মৃত্যুহয়। পার্ক কর্তৃপক্ষ বিষয়টি গোপন রেখে ছিল। মঙ্গলবার বিকেলে আনুষ্ঠানিকভাবে প্রকাশ করে।

জ্রেবাগুলো কি কারণে মারা গেছে সে বিষয়ে জানাতে পারেনি কতৃপক্ষ। তবে এবিষয়ে ইতোমধ্যেই ময়নাতদন্তের জন্য নমুনা পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্ত রিপোর্ট পাওয়ার পর মৃত্যুর প্রকৃত কারণ পাওয়া যাবে।

তবে কয়েকদিনের ব্যবধানে এতগুলো জ্রেবার মৃত্যুতে আতংকিত পার্ক কর্তৃপক্ষ। কি কারণে ২০ দিনের ব্যবধানে ৯টি জেব্রার মৃত্যু হয়েছে সেটা নিশ্চিত করে বলতে পারেনি পার্ক কর্তৃপক্ষ। শত্রুতাবশত কেউ কি হত্যা করেছে, নাকি খাবারে বিষক্রিয়া ব্যাকটরিয়ার সংক্রমণ মৃত্যু হয়েছে তা খোঁজে বের করতে কাজ করছে কর্তৃপক্ষ।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারি পার্ক কর্তৃপক্ষ জানায়, করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হয়ে মৃত্যু হয়েছে কি না সে বিষয়েও কাজ করছে। গত ২ জানুয়ারি হঠাৎ করে পার্কে ৬টি জেব্রার মৃতদেহ পড়ে থাকতে দেখা যায়। গত সোমবার পার্কে আরও ৩টি জ্রেবার মৃত্যু হয়।

নাম না প্রকাশ করের শর্তে পার্কের এক কর্মচারী বলেন, এ ঘটনার পর সকল কর্মচারী-কর্মকর্তাক ডেকে নিয়ে বিষয়টি কাউকে না জানানোর জন্য নিদের্শ দেওয়া হয়। এ কারণে তারা মুখ খুলেননি। ৯টি জেব্রার মৃত্যুর বিষয়টি গণমাধ্যমের কাছে এতো দিন গোপন রাখায় বিতর্কের জন্ম দিয়েছে বলে মনে করছে স্থানীয় সচেতন মহল।

তারা বলছেন, এতগুলো প্রাণী হত্যা পরিকল্পিত হত্যা কিনা সেটাও তদন্ত করে বের করা উচিৎ।

সাফারি পার্কে ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ও সহকারী বনসংরক্ষক তবিবুর রহমান বলেন, জেলা প্রাণি সম্পদ কর্মকর্তার উপস্থিতিতে মরদেহগুলোর ময়নাতদন্তের ব্যবস্থা করা হয়েছে। পরে নমুনা সংগ্রহ করে ল্যাবরেটরিতে পাঠানো হয়। সব শেষে জেব্রাগুলো মাটিচাপা দেওয়া হয়। ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন করোনার কোন আলামত পাওয়া যায় নি বলে জানিয়েছেন প্রাণি সম্পদ কর্মকর্তা উকিল উদ্দিন।

তবিবুর রহমান আরও বলেন, প্রাথমিকভাবে করোনা নেগেটিভ এসেছে। মানুষের করোনা পরীক্ষা আর প্রাণির করোনা পরীক্ষার মধ্যে একটু পার্থক্য রয়েছে। প্রাণির করোনা পরীক্ষার চূড়ান্ত ফলাফল আসতে একটু বিলম্ব হবে।

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেব্রা,প্রাণী,সাফারি পার্ক
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close