নড়াইল প্রতিনিধি

  ৩০ জুলাই, ২০২১

কথা ও সুরে কমল দাস গুপ্তের জন্মদিন পালন

মেনেছি গো হার মেনেছি..., এমনি বরষা ছিল সেদিন...এই কি গো শেষ দান..., ভালোবাসা মোরে ভিখারি করেছে...., তুমি কি এখন দেখিছ স্বপন...., কতদিন দেখিনি তোমায়...., পৃথিবী আমারে চায়..., গত বুধবার সন্ধ্যায় এসব জনপ্রিয় গানের সুরের আবেশে মোহিত হয়েছিল শ্রোতারা। গানগুলোর সুরারোপ করেছিলেন উপমহাদেশে সংগীত ইতিহাসের উজ্জ্বল নক্ষত্র কমল দাশগুপ্ত। গত বুধবার ছিল তার ১০৯তম জন্মবার্ষিকী। এ উপলক্ষে নড়াইলে এক ভার্চুয়াল আলোচনা এবং সংগীত সন্ধ্যার আয়োজন করা হয়। গণশিল্পী সংস্থা নড়াইল শাখার সভাপতি মলয় কান্তি নন্দীর সভাপতিত্বে ওই অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট কাজী বশিরুল হক। অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন, সংগঠনের কেন্দ্রীয়সহ সভাপতি খুলনার সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব অ্যাডভোকেট মিনা মিজানুর রহমান, কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক অধ্যাপক মাহমুদুল হাসান, বিশিষ্ট ঔপন্যাসিক ও নজরুল গবেষক ফেরদৌস খান প্রমুখ।

বরেণ্য শিল্পী, সুরকার ও সংগীত পরিচালক কমল দাশগুপ্ত ১৯১২ সালে ২৮ জুলাই তৎকালীন নড়াইল মহকুমার কালিয়ার পৌর এলাকার বেন্দা গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তার বাবার নাম তারা প্রসন্ন দাশগুপ্ত। নবগঙ্গা নদীর ভাঙনে বহু বছর আগেই কমল দাশগুপ্তের পৈতৃক বাড়িটি নদীতে বিলীন হয়ে গেছে। প্রচারবিমুখ এই শিল্পী ও সুরকার ১৯৭৪ সালের ২০ জুলাই ঢাকায় মৃত্যুবরণ করেন।

জানা যায়, কমল দাশগুপ্ত শৈশবকালে তার বড় ভাই অধ্যাপক বিমল দাশগুপ্তের কাছে ‘খেয়াল’ গান দিয়ে সংগীত জীবনের সূচনা করেন। এরপর তিনি প্রখ্যাত সংগীতজ্ঞ ডি এল রায়ের ছেলে দিলীপ রায়, কৃষ্ণচন্দ্র দে এবং ওস্তাদ জমির উদ্দিন খাঁর কাছে ‘রাগণ্ডরাগিনী’ বিষয়ক গান বাজনার তালিম নেন। এ সময় তিনি খেয়াল, ঠুমরী, দাদরা ও গজল গান রপ্ত করেন।

কমল দাশগুপ্ত ৮০টি চলচ্চিত্রের সংগীত পরিচালক ছিলেন প্রায় ১০ হাজার গানের সুর দিয়েছেন। বাংলা গান ছাড়াও হিন্দি ও উর্দু গজল, ভজন, উচ্চাঙ্গ সংগীত, হামদ ও নাথ পরিবেশন করে দর্শক শ্রোতার মন জয় করেন।

বরেণ্য এই শিল্পী কাজী নজরুল ইসলামের কাছে সুর ও সংগীতের দীক্ষা নেন। পেশাদার নজরুল সংগীত শিল্পী হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেন। প্রায় ৩০০ নজরুল গীতির সুর দিয়েছেন কমল দাশগুপ্ত। ১৯৫৫ সালে উপমহাদেশের নজরুল সংগীতের প্রবাদ প্রতিম শিল্পী ফিরোজা বেগমের সঙ্গে প্রণয় সূত্রে আবদ্ধ হন। তাহসিন, হামিন ও শাফিন আহম্মেদ নামে তার তিন পুত্র সন্তান রয়েছে। হামিন ও শাফিন বর্তমানে দেশের জনপ্রিয় ব্যান্ড ‘মাইলস’ণ্ডএর কর্ণধার।

 

 

"

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close