মৌলভীবাজার প্রতিনিধি

  ৩০ নভেম্বর, ২০২০

লাশের পরিচয় খুঁজছে সিআইডি

মৌলভীবাজারের আথাইনগীরিতে গোপলা নদীতে ভেসে উঠেছে একটি লাশ। স্থানীয়রা পুলিশকে খবর দেন। পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে নদীর পাড়ে নিয়ে আসে। লাশটির গলায় বাঁধা রয়েছে দুটি ৫০ কেজি ওজনের বালুর বস্তা। লাশটির পরনে ছিল সবুজ হাফ পেন্ট।

গত ২৮ জুলাই রাতে স্থানীয়রা এই লাশটি ভাসমান অবস্থায় মাঝ নদীতে দেখতে পান। ধারণা করা হচ্ছে আনুমানিক পাঁচ থেকে ছয় দিন আগে কেউ পরিকল্পিভাবে হত্যা করে লাশটি নদীতে ফেলে যায়। লাশটি গলে যাওয়ায় সিআইডির ক্রাইম সিন টিম লাশটির ময়নাতদন্তের সময় ফিঙ্গার প্রিন্ট নিতে অক্ষম হন। তবে পরিচয় শনাক্তের জন্য ডিএনএ সংরক্ষণ করা হয়।

------
মৌলভীবাজার মডেল থানার এসআই জিয়াউল ইসলাম লাশটির সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি করে একটি হত্যা মামলা করেন। পুলিশ দীর্ঘ কয়েক মাস তদন্ত করে মামলাটির কোনো কূলকিনারায় নিয়ে আসতে পারেনি। পরে গত ৬ অক্টোবর মামলাটির তদন্তভার আসে ক্রিমিনাল ইনভেস্টিগেশন ডিপার্টমেন্টর (সিআইডি) কাছে।

মামলাটির তদন্ত কর্মকর্তা সিআইডি মৌলভীবাজারের এসআই মো. সায়েক আহমদ বলেন, সিআইডি মামলাটি তদন্তভার পাওয়ার পর স্থানীয়ভাবে অনেক খোঁজখবর নিয়ে লাশটির পরিচয় শনাক্তের চেষ্টা করে যাচ্ছে। কিন্তু কোনোভাবেই কেউ লাশটির পরিচয় শনাক্ত করতে পারছে না। লাশটি গলে যাওয়ায় ফিঙ্গার প্রিন্ট কালেক্ট করা সম্ভব হয়নি। তবে আমরা আশপাশের সব থানায় চিঠি দিয়েছি, এই সময়ে এই বয়সের কেউ মিসিং আছেন কিনা। কেউ লাশটির পরিচয়ের সন্ধান পেলে, সিআইডিকে তথ্য দিয়ে সহযোগিতা করতে পারেন।

 

 

"

আরও পড়ুন -
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়