নিজস্ব প্রতিবেদক

  ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০২১

ঋণের বোঝায় আত্মহত্যা

রাজধানীর বাড্ডার আফতাবনগর এলাকার একটি অফিস কক্ষ থেকে লামিনাল গ্রুপের ভাইস চেয়ারম্যান নুরুন্নবী ভূঁইয়া (৫৫) নামের এক ব্যক্তির ফ্যানের সঙ্গে ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে বাড্ডা থানা পুলিশ। গতকাল শুক্রবার সকাল ১০টার দিকে লাশটি উদ্ধার করা হয়। পুলিশের দাবি, প্রতিষ্ঠানের ঋণে চাপ, বাসা ভাড়া ও পাওনাদারের বোঝা নিয়ে তিনি হতাশাগ্রস্ত হয়ে ঋণের বোঝা সহ্য করতে না পেরে আত্মহত্যা করেছেন। তবে ময়নাতদন্তের পর এই মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানা যাবে বলেও জানিয়েছেন বাড্ডা থানার ওসি মো. আবুল কালাম আজাদ।

ওসি বলেন, নুরুল আফসার ভূঁইয়া নামে এক ব্যক্তি ফোনে বাড্ডার আফতাবনগর এলাকায় নুরুল টাওয়ারের ২৯/৩১ নম্বর বাসার একটি অফিস কক্ষ থেকে চাদর দিয়ে সিলিং ফ্যানের সঙ্গে প্যাঁচানো ঝুলন্ত অবস্থায় নুরুন্নবী ভূঁইয়ার লাশ উদ্ধার করি। জানা যায়, মৃত ব্যক্তি ব্যবসায় মন্দ যাওয়ায় বেশ ঋণের মধ্যে ছিলেন। দীর্ঘদিনের বাসা ভাড়া, অফিস ভাড়া ও কয়েকটি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ থাকায় মানসিকভাবে তিনি হতাশাগ্রস্ত ছিলেন। গতকালও তিনি কয়েকজনের সঙ্গে ঋণ পরিশোধ নিয়ে অনেক আলোচনা করেন। তিনি আরো বলেন, সুরতহাল শেষে ময়নাতদন্তের জন্য লাশটি ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পেলে বিস্তারিত জানা যাবে।

নিহতের ভাই নুরুল আফসার ভূঁইয়া বলেন, ‘লামিনাল গ্রুপ নামে আমাদের একটি ফরেন ইনভেস্টর অফিস রয়েছে। অফিসটির চেয়ারম্যান আমার বড় ভাই, নিহত মেজো ভাই ছিলেন ভাইস চেয়ারম্যান। আমাদের বাসা থেকে সকাল সাড়ে ৯টার দিকে বের হন তিনি। ভাইকে জিজ্ঞাসা করলে তিনি জানান অফিসে যাচ্ছেন। পরে খবর পাই, তিনি অফিসের মধ্যে চাদর দিয়ে সিলিং ফ্যানের সঙ্গে ফাঁসি নিয়েছেন। পরে পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ এসে লাশ উদ্ধার করে। ময়নাতদন্তের জন্য লাশ ঢামেক হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। তিনি কী কারণে ফাঁসি দিয়েছেন- এ বিষয়ে আমরা কিছু বলতে পারব না।’ তিনি আরো জানান, নুরুন্নবী ভূঁইয়া নোয়াখালীর সোনাইমুড়ী থানার আবিরপাড়া গ্রামের মৃত নুরুল হক ভূঁইয়ার ছেলে। তিনি বাড্ডার আফতাবনগর এলাকার একটি বাসায় থাকতেন।

 

 

"

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close