সংসদ প্রতিবেদক

  ১১ অক্টোবর, ২০২১

সংসদীয় কমিটির সুপারিশ

রুপার পদক পাবেন মুক্তিযোদ্ধারা

স্বাধীনতা যুদ্ধে অনন্য অবদানের জন্য জীবনবাজি রেখে মুক্তিযুদ্ধে অংশ নেওয়া সেই বীর মুক্তিযোদ্ধাদের নম্বর সংবলিত রুপার পদক দেওয়ার সুপারিশ জানিয়েছে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটি। গতকাল রবিবার সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত কমিটির সভায় এ সুপারিশ জানানো হয়। কমিটির সভাপতি শাজাহান খানের সভাপতিত্বে সভায় অংশ নেন কমিটির সদস্য মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক, রাজি উদ্দিন আহমেদ, কাজী ফিরোজ রশীদ এবং মোছলেম উদ্দিন আহমদ। কমিটির সদস্য ছাড়াও বৈঠকে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব, জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিলের মহাপরিচালক, বিভিন্ন সংস্থা প্রধানগণসহ মন্ত্রণালয় এবং জাতীয় সংসদ সচিবালয়ের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

সংসদীয় কমিটি সূত্র জানায়, মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তানদের অবদান স্মরণ করে প্রত্যেক বীর মুক্তিযোদ্ধাকে নিজ নিজ মুক্তিযোদ্ধা নম্বর সংবলিত একটি করে রুপার তৈরি পদক প্রদানের সুপারিশ করা হয়। মন্ত্রণালয় বিষয়টি পর্যালোচনা করে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেবেন বলে মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে কমিটিকে অবহিত করা হয়।

বৈঠকে বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা কল্যাণ ট্রাস্টের বিদ্যমান নীতিমালা অনুযায়ী যুদ্ধাহত, শহীদ ও খেতাব প্রাপ্ত বীর মুক্তিযোদ্ধাদের ভাতা প্রদান ও কল্যাণ ট্রাস্টের অপ্রয়োজনীয় সম্পত্তি ব্যবহার ও বিক্রয় সংক্রান্ত বিষয়ে কল্যাণ ট্রাস্ট কর্তৃক গৃহীত পদক্ষেপগুলো নিয়ে আলোচনা করা হয়। কল্যাণ ট্রাস্টের অপ্রয়োজনীয় সম্পত্তি অর্থ মন্ত্রণালয়ের কাছে বিক্রয়ের লক্ষ্যে যৌক্তিক মূল্যের বিবরণীসহ প্রধানমন্ত্রীর কাছে একটি সারসংক্ষেপ পাঠানোর সুপারিশ করা হয়। এছাড়া চট্টগ্রামে কল্যাণ ট্রাস্টের সম্পত্তি সরেজমিনে পরিদর্শন ও কমিটি বৈঠকের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। স্বাধীনতার ৫০ বছর পূর্তি উপলক্ষে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সমাবেশে স্থায়ী কমিটিকে অন্তর্ভুক্ত করার সুপারিশ করা হয়। এছাড়া সভায় সারা দেশে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য তৈরি মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্সগুলো কতটি শহরে এবং কতটি শহরের বাইরের অবস্থিত সে সংক্রান্ত তথ্য আগামী বৈঠকে উপস্থাপনের সুপারিশ করা হয়।

তাছাড়া দারিদ্র্যদূরীকরণ, বিশ্বের সুরক্ষা এবং সবার জন্য শান্তি ও সমৃদ্ধি নিশ্চিত করতে পদক্ষেপ গ্রহণের সর্বজনীন আহ্বানে সাড়া দিয়ে বাংলাদেশকে সঠিক পথে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রীকে জাতিসংঘের সাসটেইনেবল ডেভেলপমেন্ট সলিউশনস নেটওয়ার্ক (এসডিএসএন) ‘এসডিজি অগ্রগতি পুরস্কার’ প্রদান করায় এবং তাকে ‘জুয়েল ইন দি ক্রাউন অব দি ডে’ হিসেবে অভিহিত করায় বৈঠকের শুরুতে কমিটির পক্ষ থেকে একটি অভিনন্দন প্রস্তাব গৃহীত হয়।

 

 

"

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close