কৃষিবিদ ও নারীদের প্রাধান্য কৃষক লীগে

প্রকাশ : ২০ অক্টোবর ২০২০, ০০:০০

নিজস্ব প্রতিবেদক

আওয়ামী লীগের সহযোগী ও ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠনের পূর্ণাঙ্গ কমিটির তালিকা প্রকাশ করা হচ্ছে পর্যায়ক্রমে। এরই মধ্যে প্রকাশ করা হয়েছে স্বেচ্ছাবেক লীগ, কৃষক লীগ, জাতীয় শ্রমিক লীগ, মৎস্যজীবী লীগ ও মহিলা শ্রমিক লীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি। নতুন ও পুরোনো নেতাদের সমন্বয়ে করা হয়েছে এসব কমিটি। সংগঠনগুলোর কমিটিতে ঠাঁই পেয়েছেন তৃণমূল পর্যায়ের অনেক নেতাও। আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার যাচাই-বাছাই ও নির্দেশনার পর কমিটিগুলো প্রকাশ করা হয়েছে বলে জানা গেছে।

গতকাল সোমবার প্রকাশিত হয়েছে কৃষক লীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি। কৃষিবিদ এবং কৃষি-সংক্রান্ত কাজে অবদানের জন্য পদকপ্রাপ্ত কয়েকজন নেতা ঠাঁই পেয়েছেন ওই কমিটিতে। এ ছাড়া প্রাধান্য দেওয়া হয়েছে নারীদের। পাশাপাশি জেলা পর্যায়ের বেশ কয়েকজন নেতাও উঠে এসেছেন কমিটিতে। এ নিয়ে সন্তুষ্ট সংগঠনের নেতাকর্মী ছাড়াও আওয়ামী লীগের অনেক কেন্দ্রীয় নেতা। দল ও সংঠনের বিভিন্ন সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

কৃষক লীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে সহসভাপতি হয়েছেন আশরাফ আলী, মাহবুব-উল-আলম শান্তি, শেখ জাহাঙ্গীর আলম, আশা লতা বৈদ্য, এস এম আকবর আলী চৌধুরী, হোসনে আরা এমপি, মিয়া আবদুল ওয়াদুদ, মো. আবদুল লতিফ তারিন, মোস্তাফা কামাল চৌধুরী, কৃষিবিদ ডা. মো. নজরুল ইসলাম, ডি এম জয়নুল আবেদীন, এম এ মালেক, মো. আবুল হোসেন, কৃষিবিদ সাখাওয়াত হোসেন সুইট, মো. রেজাউল করিম হিরন, মো. মাকসুদুল ইসলাম। যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হলেন কৃষিবিদ বিশ্বনাথ সরকার বিটু, শামীমা শাহরিয়ার, এ কে এম আজম খান। সাংগঠনিক সম্পাদক পদে আছেন জসীম উদ্দিন (গাজী জসিম), আসাদুজ্জামান বিপ্লব, হাবিবুর রহমান মোল্লা, সৈয়দ সাগিরুজ্জামান শাকীক, নিজামুল বাহার রানা, নুরে আলম সিদ্দিকী হক, নাজমুল হক পানু। এ ছাড়া আছেন অর্থ সম্পাদক নাজির মিয়া, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক শেখ ফারুক আহমেদ, দফতর সম্পাদক রেজাউল করিম রেজা।

কৃষিবিদ বিশ্বনাথ সরকার বিটু প্রতিদিনের সংবাদকে বলেন, কৃষক লীগের কমিটি সর্বকালের শ্রেষ্ঠ কমিটি হয়েছে। দলীয় সভাপতি শেখ হাসিনা নিজে যাচাই-বাছাই করে যোগ্যদের যোগ্য স্থান দিয়েছেন। বিতর্কিত ব্যক্তিদের বাদ দিয়ে তৃণমূলের কৃষক ও কৃষি-সংশ্লিষ্ট নেতাদের পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে আনা হয়েছে।

অন্যদিকে তড়িঘড়ি করে পূর্ণাঙ্গ কমিটি প্রকাশ করায় বিতর্ক সৃষ্টি হয়েছে জাতীয় শ্রমিক লীগের শীর্ষনেতাদের ভূমিকা নিয়ে। সংগঠন সূত্রে জানা গেছে, সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের বিরুদ্ধে আর্থিক বিষয় নিয়ে দ্বন্দ্ব চলছে দীর্ঘদিন ধরে। এ ছাড়া সাধারণ সম্পাদক আজম খসরুর বিরুদ্ধে এক নারীর অভিযোগ গড়িয়েছে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদ পর্যন্ত। এসব অভিযোগ জানাজানি হওয়ায় সংগঠনের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক একজোট হয়ে অনেকটা তড়িঘড়ি করে গত রোববার রাতে পূর্ণাঙ্গ কমিটির তালিকা প্রকাশ করে দেন গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি পদ খালি রেখেই। সংগঠনের একাধিক নেতা জানান, অভিযোগের কারণে শীর্ষ দুই নেতা কোনো ঝুঁকি নিতে চাননি।

জাতীয় শ্রমিক লীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটির সহসভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন মো. শাহজাহান খান, নুর কুতুব আলম মান্নান (রাজশাহী), কামরুজ্জমান চুনু (পাটকল যশোর), হুমায়ুন কবীর, তোফায়েল আহমেদ (মীরপুর), মো. শফর আলী (চট্টগ্রাম), মো. সাহাব উদ্দন (আদমজী), মো. মুশফিকুর রহমান (বিমান সিবিএ), মো. মহসীন ভূঞা (বিআইডাব্লউটিসি সিবিএ) ও মো. আসকার ইবনে শায়েখ খাজা (ওয়াসা সিবিএ)। যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হয়েছেন মো. খান সিরাজুল ইসলাম (স্টিল), সুলতান আহম্মদ (পাউবো) ও বিএম জাফর (খুলনা)। সাংগঠনিক সম্পাদক হয়েছেন কাউছার আহমেদ পলাশ (নারায়ণগঞ্জ) ও মো. আনিসুর রহমান (জনতা ব্যাংক)। এ ছাড়া আছেন প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মো. মেহেদী হাসান (রেল), দফতর সম্পাদক এটিএম ফজলুল হক (বনশিল্প)।

এদিকে গতকাল আনুষ্ঠানিকভাবে স্বেচ্ছাসেবক লীগের কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। কমিটিতে থাকা বেশির ভাগ নেতার নাম গতকাল প্রতিদিনের সংবাদে প্রকাশিত হয়েছে।

মৎস্যজীবী লীগ : মৎস্যজীবী লীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি হয়েছে ১১১ সদস্যের। এতে সহসভাপতি হয়েছেন মো. আবুল বাশার, আবদুল গফুর চৌকিদার, মুহাম্মদ আলম, গিয়াস উদ্দিন খান, মুক্তিযোদ্ধা শাহ আলম প্রমুখ। যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক তিনজন হলেন মো. আবদুল আলীম, রফিকুল ইসলাম খাঁ, ফিরোজ আহম্মেদ তালুকদার। বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক আছেন ১০ জন।

মহিলা শ্রমিক লীগ : মহিলা শ্রমিক লীগের ৩৫ সদস্যের কমিটিতে কার্যকরী সভাপতি হয়েছেন শামসুন নাহার (এমপি)। সহসভাপতি হিসেবে আছেন সুলতানা আনোয়ার, সৈয়দা খালেদা বেগম, আফরোজ বিউটি প্রমুখ। যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হিসেবে আছেন সৈয়দা খায়রুন নাহার (তামরিন), জিনাত রেহানা নাসরিন প্রমুখ। সাংগঠনিক সম্পাদক হলেন সেলিনা আক্তার, শাহনাজ বেগম শেফালী, সৈয়দা নাসিমা আক্তার।

 

 

"